বৃহস্পতিবার ১৭ অক্টোবর, ২০১৯ ইং , ২ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৭ সফর, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

ধ্বংসস্তূপের মধ্যে সাব্বিরের সেঞ্চুরি

ফেব্রুয়ারি ২০, ২০১৯ | ১১:৩৬ পূর্বাহ্ণ

।। স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট ।।

বিজ্ঞাপন

জয়ের জন্য ৩৩১ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে টিম সাউদির পেস তোপে ২ রান তুলতেই তিন টপ অর্ডারকে হারায় বাংলাদেশ। তামিম ফিরলেন রানের খাতা না খুলে, সৌম্য সরকার ও তাকে অনুসরণ করলেন। আর লিটন দাস যথারীতি ১ রানে। চারে নামা মুশফিকও দলকে টেনে নিতে পারেননি। দলীয় ৪০ ও ব্যক্তিগত ১৭ রানে ট্রেন্ট বোল্টের বলে মুনরোর তালুতে নিজেকে সঁপে দিলেন। মোটামুটি ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয় বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইনআপ। ঠিক তখনই জ্বলে ওঠেন সাব্বির। তুলে নেন ওয়ানডে ক্যারিয়ারে প্রথম সেঞ্চুরি।

তার এই জ্বলে ওঠার দিনে বাংলাদেশ জয় তুলে নিতে পারেনি ঠিক কিন্তু মোক্ষম একটি জবাব ব্যাট হাতে ঠিকই দিতে পেরেছে। যা লাল সবুজের স্বীকৃত কোন ব্যাটসম্যানই পারেননি। না তামিম, মুশফিক, মাহমুদউল্লাহ কিংবা সৌম্য বা লিটন। পাশাপাশি অধিনয়াকের আস্থার প্রতিদানও দেয়া হলো।

মাঠে মাঠের বাইরে অপ্রীতিকর ঘটনায় ৬ মাস নিষিদ্ধ ছিলেন সাব্বির। নিউজিল্যান্ড সফরে কন্ডিশন বিবেচনা করে দলপতি মাশরাফি তাকে দলে চাইলেন। নিষেধাজ্ঞা শেষ হতে তখনো ১ মাস বাকি। তাতে কী? অধিনায়কের চাওয়ায় সায় দিলেন নির্বাচক প্যানেল। ১ মাস কমিয়ে দলে নেওয়া হলো। তাতে কাজও হলো বিস্তর। নিউজিল্যান্ড সফরে ওয়ানডে সিরিজে একমাত্র সেঞ্চুরিটি এল তার ব্যাটেই।

বিজ্ঞাপন

মুশফিকের বিদায়ে ১০ম ওভারে ব্যাটিংয়ে নেমে সেন্সিবল ব্যাটে নিজের সক্ষমতার প্রমান দিলেন এই টাইগার হার্ডহিটার ব্যাটসম্যান। ক্যারিয়ারের পঞ্চম ফিফটি করেছেন ৫৯ বলে। ফিফটির পর নির্ভার ব্যাটে নিজেকে ছাড়িয়ে গেছেন। ওয়ানডে ফরম্যাটে এতদিন তার সর্বোচ্চ সংগ্রহ ছিলো ৬৫। যা টপকে গেছেন ৩৪তম ওভারে স্যান্টনারকে মিডউইকেট দিয়ে চার মেরে।

এরপর কিছুটা ধীরলয় ব্যাটিংয়ে ছুঁয়ে ফেললেন সেই ম্যাজিক সংখ্যা। সেঞ্চুরিটি তুলে নিতে ১০৫ বল খরচায় সাব্বির চার মেরেছেন ১২টি ছয় ২টি। আর স্ট্রাইক রেট ছিল ৯৫.২৩। বলা বাহুল্যই হবে তার ম্যাজিক ফিগারেই ব্যাটিংয়েই চলমান ওয়ানডে সিরিজে সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ পেল সফরকারী বাংলাদেশ।

শেষ পর্যন্ত ১১০ বলে ১০২ রানে ক্যাচ দিয়ে মাঠ ছাড়েন সাব্বির।

সারাবাংলা/এমআরএফ/এসএন

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন