সোমবার ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ৮ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২৩ মুহাররম, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

জাপানে খুন হওয়া বাংলাদেশির মরদেহ দেশে আসছে

মার্চ ৯, ২০১৯ | ৬:৫২ অপরাহ্ণ

।। স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট।।

বিজ্ঞাপন

ঢাকা: জাপানপ্রবাসী বাংলাদেশি নারী শামিমা আক্তারের মরদেহ দেশে আসছে। স্থানীয় বাংলাদেশিরা ওই মরদেহ দেশে পাঠানোর ব্যবস্থা করেছে।

গত ৮ মার্চ ভাড়া বাসায় খুন হন শামিমা আক্তার। জাপানের পুলিশ ঘটনাটির তদন্ত করছে। খুনি সন্দেহে এরইমধ্যে ওই নারীর স্বামী বি এম শাহাদাত হোসেনকে পুলিশ আটক করেছে।

জাপান মিশনের একাধিক কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, শামিমা আক্তার খুন হওয়ার ঘটনাটি দূতাবাস কর্মকর্তারা আনঅফিসিয়ালি জানতে পেরেছেন। শনি ও রোববার জাপানের বাংলাদেশ মিশন বন্ধ থাকে। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার। এ ঘটনায় মিশন থেকে অফিসিয়ালি কিছু করার সুযোগ ছিল না এবং জাপানের পুলিশ বিষয়টি এখনো মিশনকে জানায়নি বলে সূত্রগুলো সারাবাংলাকে জানিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

কূটনৈতিক সূত্রগুলো আরো জানায়, আনঅফিসিয়ালি জাপান মিশন ঘটনার ওপর নজর রাখছে। স্থানীয় বাংলাদেশি কমিউনিটির সদস্যরা শামিমা আক্তারের মরদেহ দেশে পাঠানোর ব্যবস্থা করছে। মরদেহ দাফনের জন্য জাপানের সরকারি একটি সংস্থা রয়েছে। তাদের মাধ্যমেই শামিমার মরদেহ বাংলাদেশে পাঠানো হবে। এ জন্য জাপান মিশনের একাধিক বিষয়ে সনদ দিতে হবে। আগামী রোববার অফিস খুললেই জাপান মিশন এ বিষয়ে সব প্রস্তুতি নেবে।

শামিমা আক্তারকে খুন করার বিষয়টি জাপান পুলিশের কাছে প্রাথমিকভাবে তার স্বামী বি. এম. শাহাদাত হোসেন স্বীকার করেছেন বলে একাধিক কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে।

জাপানের সাইতামা প্রিফেকচার এর মাৎসুবিশি চো এর ভাড়া করা এক অ্যাপার্টমেন্টে বাংলাদেশি শামিমা আক্তার ও তার স্বামী বসবাস করতেন।

গত ৮ মার্চ (শুক্রবার) শামিমা আক্তারের মৃতদেহ রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ। ঘাড় ও গলা কেটে তাকে হত্যা করা হয়।

সারাবাংলা/জেআইএল/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন