বৃহস্পতিবার ২১ মার্চ, ২০১৯ ইং , ৭ চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১৩ রজব, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

এপ্রিলে চীন সফরে যেতে পারেন প্রধানমন্ত্রী

মার্চ ১৪, ২০১৯ | ১১:৩১ অপরাহ্ণ

।। এমএকে জিলানী, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট।।

ঢাকা: আগামী এপ্রিলে পূর্ব এশিয়ার অন্যতম বন্ধু এবং ঘনিষ্ট রাষ্ট্র চীনে দ্বিপক্ষীয় সফরে যেতে পারেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আসন্ন এই সফরের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এই সফরে বাণিজ্য-বিনিয়োগ এবং রোহিঙ্গা ইস্যু প্রাধান্য পাবে বলে বার্তা পাওয়া যাচ্ছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা সারাবাংলা’কে জানান, চীন সফরের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে অনেক আগেই দাওয়াত দিয়ে রেখেছে বেইজিং। এই সফর হবে চীনের রাষ্ট্রপতি শি জিনপিংয়ের বাংলাদেশ সফরের পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ফিরতি সফর। এই সফরের দিন-ক্ষণ এবং আলোচ্য সূচি ঠিক করতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা কাজ করছেন।

আরও পড়ুন: প্রধানমন্ত্রীকেই পুরস্কার দিয়ে গেলো ছোট্ট পিয়াসা

বিজ্ঞাপন

প্রধানমন্ত্রীর আসন্ন চীন সফরের জন্য ঢাকা-বেইজিং অনবরত যোগাযোগ রক্ষা করছে জানিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা আরও জানান, চীনের রাষ্ট্রপতি শি জিনপিং বাংলাদেশ সফরে যে সকল ঘোষণা দিয়েছিল আসন্ন সফরটি মূলত সেগুলোর ফলোআপ করা হবে।

আসন্ন এই সফরে ঢাকার পক্ষ থেকে বাণিজ্য-বিনিয়োগের ওপরই বেশি গুরুত্ব দেয়া হবে। এরপরই থাকবে রোহিঙ্গা ইস্যূ। এবারের সফরে রোহিঙ্গা ইস্যূতে ঢাকার পাশে বেইজিংয়ের সক্রিয় সমর্থন চাইতে পারেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বেইজিংয়ের কূটনৈতিক সূত্রগুলো জানাচ্ছে, এরই মধ্যে চীনের ব্যবসায়ীরা বাংলাদেশর একাধিক অবকাঠামো খাতে বিনিয়োগ করেছে। এর বাইরে বাংলাদেশের নদী খনন, গাড়ি শিল্প, কৃষি ও সেচ, বিমানবন্দর নির্মাণসহ একাধিক খাতে চীনের বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগের আগ্রহ রয়েছে।

এদিকে, গত বছরের ৮ ও ৯ নভেম্বর বাংলাদেশ-চীনের মধ্যে ১১তম এফওসি (ফরেন অফিস কনসালটেশন) বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ওই বৈঠকে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াঙ ই পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হককে বলেন, ‘বাংলাদেশের উন্নয়নে চীনের সমর্থন অব্যাহত থাকবে। উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন অর্থনৈতিক উন্নয়ন এবং অবকাঠামো উন্নয়নে চীন বাংলাদেশকে সমর্থন দিয়ে যাবে।’

এর আগে, ২০১৪ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চীন সফর করেন। এরপর গত ২০১৬ সালের অক্টোবরে চীনের রাষ্ট্রপতি শি জিন পিংয়ের বাংলাদেশ সফর করেন। শি জিন পিংয়ে সফরের সময় দুই দেশের মধ্যে ২৬ বিষয়ে চুক্তি এবং সমাঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করা হয়।

সারাবাংলা/জেআইএল/এমএইচ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন