বৃহস্পতিবার ২১ মার্চ, ২০১৯ ইং , ৭ চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১৩ রজব, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

‘যারা নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে, তাদের ওখানেই খেলতে যাব’

মার্চ ১৫, ২০১৯ | ১২:৪১ অপরাহ্ণ

।। স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট ।।

ঢাকা: টুর্নামেন্ট খেলতে কিংবা দ্বিপাক্ষিক সিরিজে অংশ নিতে বিদেশী কোন দল বাংলাদেশ সফরে এলেই নজিরবিহীন নিরাপত্তার ব্যবস্থা করে থাকে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। বিমানবন্দর থেকে শুরু করে টিম হোটেল, টিম হোটেল থেকে ভেন্যু এবং ভেন্যু থেকে টিম হোটেল। পুরো পথই নিরপত্তার চাদরে মুড়ে দেয়া থাকে। এমনকি ম্যাচের বাইরে বিদেশি প্লেয়াররা কোথাও ভ্রমনে গেলে সেখানেও তিনস্তরের নিরাপত্তা দেখা যায়।

পক্ষান্তরে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল বিদেশে কোথাও সিরিজ বা টুর্নামেন্টে অংশ নিতে গেলে এমন নিরাপত্তা দূরে থাক ন্যূনতম নিরাপত্তাও দেখা যায় না। বিগত দিনের বিভিন্ন সফরের সেই নিরাপত্তাহীনতার ধারাবাহিকতায় স্পষ্টত দেখা গেল চলমান নিউজিল্যান্ড সফরেও।

বিজ্ঞাপন

আর মাত্র ১০ মিনিট আগে ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলি ওভালের আল নূর মসজিদে জুম্মা আদায় করতে গেলে হয়তো বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটারদের কারোরই জীবিত দেশে ফেরা হতো না। সন্ত্রাসী হামলায় নিহতদের পরিণতি তাদেরও বরণ করে নিতে হতো। উদ্ভুত পরিস্থিতিতে নড়েচড়ে বসেছে বিসিবি। ভবিষ্যতে যে কোন সফরে স্বাগতিক দেশ থেকে ন্যূনতম নিরাপত্তার নিশ্চয়তা না পেলে টাইগারদের সিরিজ খেলতে বিদেশে পাঠানো হবে না বলে সাফ জানিয়ে দিলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

শুক্রবার (১৫ মার্চ) দুপুরে নিজ বাসভবনে জরুরী ভিত্তিতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন।

পাপন জানান, ‘আমাদের দেশে কোন দেশ যখন আসে এবং যে ধরণের নিরাপত্তা নিয়ে ওরা কথাবার্তা বলে আর যে ধরণের নিরাপত্তা আমাদের দিতে হয় এখন পর্যন্ত আমরা সেকরম কিছু পাইনি এবং সত্যি কথা আমরা এটা নিয়ে জোরাজুরিও করিনি। অন্যান্য দেশও দেখেছি, কেউ করে না। ওসব দেশে যারা খেলতে যায় কেউ করে না। আসলে আমার কাছে যেটা মনে হয়েছে এই ধরণের ঘটনা ঘটতে পারে এরকম কোন ধারণাই নিউজিল্যান্ডের নেই। এখন হয়তো এ ব্যাপারে সতর্ক হবে। তবে অন্যরা কি করে জানি না, আজকের ঘটনার পরে এটা নিশ্চিত। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড এখন থেকে যে দেশেই দল পাঠাক না কেন আমাদের ন্যূনতম চাওয়া অনুযায়ী নিরাপত্তা দিতে হবে। এটা যারা দিতে পারবে তাদের ওখানেই আমরা খেলতে যাবো। এছাড়া না।’

নিউজিল্যান্ডে বড় রকমের বিপদে বেঁচে গেছেন বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। শুক্রবার জুম্মার নামাজ আদায় করতে ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলি ওভালের যে মসজিদে গিয়েছিলো সেখানে সন্ত্রাসী হামলা চালানো হয়। তবে হামলাটি আগে হওয়ায় এর কোন প্রভাব তামিম, মুশফিকদের ওপর পড়েনি।

বলে রাখা ভাল, স্বাগতিকদের বিপক্ষে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টেস্টের ভেন্যু ক্রাইস্ট চার্চে হওয়ায় এখন সেখানেই অবস্থান করছে লাল সবুজেরর দল।

বিসিবি সুত্রে জানা গেছে, লিটন দাস ও নাইম হাসান ছাড়া সবাই শেষ টেস্ট সামনে রেখে অনুশীলনে ছিলেন। অনুশীলন শেষে তারা ওই মসজিদে জুম্মা আদায় করতে যান। মসজিদে প্রবেশের সময় স্থানীয় একজন তাদের ঢুকতে নিষেধ করেন। বলেন এখানে সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে। একথা শোনামাত্র ভীত সন্ত্রস্ত হয়ে ক্রিকেটোররা টিম হোটেলে ফিরে আসেন।

সারাবাংলা/এমআরএফ/টিআর/এসএন

আরও পড়ুন-

টাইগারদের দেশে ফিরিয়ে আনতে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীকে পাপনের ফোন

বেঁচে গেছি, সবাই দোয়া করবেন: তামিম

ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে গুলি, বেঁচে গেলেন তামিমরা

নিউজিল্যান্ডে ক্রিকেটাররা নিরাপদে আছেন: বিসিবি

তৃতীয় টেস্ট বাতিল, বাংলাদেশ দলের নিরাপত্তা জোরদার

ইতিহাসের অন্যতম কালো দিন: নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী

সিরিজ ‘সন্ত্রাসী’ হামলায় বিপর্যস্ত নিউজিল্যান্ড, ২৭ প্রাণহানি

‘যারা নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে, তাদের ওখানেই খেলতে যাব’
বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন