বৃহস্পতিবার ২৫ এপ্রিল, ২০১৯ ইং , ১২ বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৮ শাবান, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

বাসে আগুন দেওয়ার সময় চালককে ধরলেন শিক্ষার্থীরা

মার্চ ১৯, ২০১৯ | ১:২৩ অপরাহ্ণ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বাসের ধাক্কায় সহপাঠীর মৃত্যুর ঘটনায় বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের মধ্যেই একটি বাসে আগুন দেওয়ার সময় এক বাসচালককে হাতেনাতে ধরে মারধর করেছেন শিক্ষার্থীরা। পরে সেই চালক পালিয়ে যাওয়ায় তাকে পুলিশে দেওয়া সম্ভব হয়নি।

মঙ্গলবার (১৯ মার্চ) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বসুন্ধরা গেট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। সকাল সাড়ে ৭টার দিক থেকেই শিক্ষার্থীরা ওই এলাকায় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছেন।

আরও পড়ুন- মেয়রের আশ্বাস, তবু সড়কে অনড় বিইউপি শিক্ষার্থীরা

বিজ্ঞাপন

ঘটনাস্থলে দেখা যায়, সকাল থেকেই সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছেন শিক্ষার্থীরা। সকালের দিকে কিছু বাস এই এলাকা দিয়ে চলাচল করতে চাইলে তারা সেগুলোকে রাস্তায় আটকে দেন। বাসগুলো সেখানেই রাখা আছে। এর মধ্যে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে হঠাৎ দাঁড়িয়ে থাকা ওই বাসগুলোর মধ্যে সুপ্রভাত পরিবহনের একটি বাসে আগুন লাগতে দেখা যায়।

বিক্ষোভরত শিক্ষার্থীরাই বাসে আগুন দিয়েছেন বলে মনে করা হলেও কিছুক্ষণের মধ্যেই এক ব্যক্তিকে শিক্ষার্থীরা ধরে ফেলে। এসময় তাকে মারধর করা হচ্ছিল।

শিক্ষার্থীরা বলেন, ওই লোক একটি বাসের চালক। সে বাসে আগুন দিয়েছে। শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে কোনো বাসে কোনো ধরনের ভাঙচুরও করা হয়নি। পরে শিক্ষার্থীদেরই ওই বাসের আগুন নেভাতে দেখা যায়।

বিইউপি শিক্ষার্থী হুমায়ুন আহমেদ রাসেল সারাবাংলাকে বলেন, আমাদের কোনো শিক্ষার্থী বাসে আগুন দেয়নি। কোনো এক গাড়ির চালক বাসটিতে আগুন দেয়। পরে আমরা সেই চালককে ধরতে সক্ষম হই। কিন্তু তিনি পালিয়ে যান।

আরও পড়ুন- বাসের ধাক্কায় বিইউপি শিক্ষার্থীর মৃত্যু, চালক আটক, সড়কে অবরোধ

এই শিক্ষার্থী আরও বলেন, আমরা সকাল থেকে শান্তিপূণর্ভাবে অবস্থান ধমর্ঘট পালন করছি। আমাদের দাবি বাস্তবায়ন না করা পযর্ন্ত আমরা সড়ক ছাড়ব না। কিন্তু আমরা কোনো ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনাও ঘটাব না।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার সকাল ৭টার দিকে রাস্তা পারাপার হওয়ার সময় বসুন্ধরা গেট এলাকায় সুপ্রভাত পরিবহনের বাসের ধাক্কায় প্রাণ হারান বিইউপি আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষার্থী আবরার আহমেদ চৌধুরী। এ খবর জানার পর থেকেই শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছেন। ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’ স্লোগানে গোটা এলাকা মুখর করে রেখেছেন তারা। ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। শিক্ষার্থীদের অবরোধে বিমানবন্দর থেকে বাড্ডা হয়ে রামপুরা-গুলিস্তান রুটের যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

এদিকে, নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি, ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ ও আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরাও বিইউপি শিক্ষার্থীদের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করেছেন। তারা বিইউপি শিক্ষার্থীদের সঙ্গে এক হয়ে বিক্ষোভে অংশ নিচ্ছেন।

সারাবাংলা/এসজে/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন