শুক্রবার ১৯ জুলাই, ২০১৯ ইং , ৪ শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৫ জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

শাহনেওয়াজ কাকলীর বৈশাখের রান্না

এপ্রিল ৯, ২০১৯ | ৪:৪৯ অপরাহ্ণ

লাইফস্টাইল ডেস্ক

জীবনে প্রথমবারের মতো মুরগি রান্না করতে গিয়ে সব মসলা ঠিকঠাক দিলেও তরকারির মধ্যে এক বাটি ধনে-জিরা বাটা দিয়ে দিয়েছিলেন চলচ্চিত্র নির্মাতা শাহনেওয়াজ কাকলী। মাত্র কলেজে পা দিয়েছেন তখন। রান্নার অভিজ্ঞতা বলতে মা কিংবা বড় বোনদের রান্নাঘরের কাজে সাহায্য করা আর টুকটাক চা-নাস্তা বানানো। তিনি কীভাবে জানবেন, কোন মসলা কতটুকু দিতে হয়?

তবে ধীরে ধীরে রান্নার প্রতি আগ্রহ জন্মে। একসময় দারুণ স্বাদের মাছ রান্না করে সবাইকে চমকে দেন তিনি।

চারুকলায় ভর্তির পর হলে থাকার সময় রান্নায় হাত পাকিয়েছেন, যা ধীরে ধীরে শখে পরিণত হয়েছে। চিত্রশিল্পী বলেই হয়তো রান্নার ক্ষেত্রে রঙের হেরফের একদম সহ্য করতে পারেন না। সবুজ খাবার সবুজই হতে হবে কাকলীর কাছে, না হয় খাওয়ার আগ্রহ পান না তিনি। নিজেকে খাদ্যরসিক না বললেও খাদ্য শৌখিন হিসেবে মানেন। যাই রান্না করেন, স্বাদের পাশাপাশি বর্ণ এবং গন্ধেও হতে হবে মনকাড়া। রান্নাটা কারও কাছ থেকে শিখেছেন এমন নয়। নিজের মতো করেই রাঁধেন তিনি। বৈশাখে তাদের বাড়িতে থাকে পান্তা ভাত বা লাল চালের ভাতের   সঙ্গে নানা ধরনের  দেশি মাছ ভাজা, সবজি, ডাল ইত্যাদি।

পহেলা বৈশাখ আসে চিরন্তন বাঙালি ঐতিহ্য আর বাংলা সংস্কৃতি উদযাপনের উপলক্ষ নিয়ে। বাংলা নববর্ষকে বরণ করে নিতে আমরা বৈশাখের প্রথম দিন বাঙালি পোশাক পরি, বাড়িতে বাড়িতে রান্না হয় নানারকম দেশীয় খাবার।

বিজ্ঞাপন

পহেলা বৈশাখের রান্নায় আজ থাকছে এমনই ২টি ভিন্নরকম মাছের রেসিপি। সারাবাংলার পাঠকদের জন্য চমৎকার রেসিপিগুলো দিয়েছেন জনপ্রিয় চলচ্চিত্র নির্মাতা শাহনেওয়াজ কাকলী।

শোলপালং

উপকরণ

শোলমাছ ৭/৮ টুকরো
পালং শাক (ছোট এক আঁটি)
হলুদ
রসুন বাটা
জিরা গুঁড়া বা বাটা ১ চা চামচ
পেয়াজ কুচি মাঝারি সাইজের ২/৩ টা
সয়াবিন তেল
কাঁচা মরিচ ৩/৪ টি
লবণ স্বাদমতো

মজাদার শোলপালং

পদ্ধতি

প্রথমে মাছ ভালো করে ধুয়ে হলুদ ও লবণ মেখে রাখুন। শাক ভালো করে ধুয়ে ১/২ মিনিট হালকা সেদ্ধ করে নিন। এরপর শাকের পানিসহ ব্লেন্ড করে নিন। এবার লবণ-হলুদ মাখানো মাছগুলো তেলে হালকা করে ভেজে তুলুন।

একটা পাত্রে তেল গরম করে তাতে পেঁয়াজ কুচি দিয়ে বাদামি করে ভাজুন। এরপর একে একে রসুন বাটা, হলুদ, জিরা বাটা, লবণ দিয়ে কষে নিন। ভাজা মাছগুলো মসলা দিয়ে নাড়তে হবে। মাছের গায়ে মসলা কষানো মতো দেখালে পালং পেস্ট ঢেলে দিন। শাক ফুটে উঠলে নামিয়ে নিন।

মনে রাখতে হবে, শাক দেওয়ার পরে বেশিক্ষণ রান্না করা যাবে না, তাতে পালং শাকের সুন্দর সবুজ রঙ নষ্ট হয়ে যাবে। নামানোর  আগে লাল কাঁচা মরিচ দিয়ে গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন।

 

হাতমাখা মলাঢেলা

উপকরণ

মলাঢেলা মাছ ২৫০ গ্রাম
হলুদ গুঁড়া
মরিচ গুঁড়া
রসুন বাটা
জিরা গুঁড়া বা বাটা
লবণ
কাঁচা মরিচ
টমেটো
কুমড়ো পাতা বা লাউ পাতা
সরিষার তেল

সুস্বাদু হাতমাখা মলাঢেলা

পদ্ধতি

একটি পাত্রে মাছ বাদে বাকিসব উপকরণ ভালো করে চটকে হাতে মেখে নিন। তারপর মাছের সঙ্গে ভালো করে মাখিয়ে ৩০ মিনিট রেখে দিন।

একটি ফ্রাইপ্যানে ৪ থেকে ৫ টা কুমড়ো বা লাউ পাতা বিছিয়ে তার ওপর মাছগুলো সাজিয়ে অর্ধেক কাপ পানি দিয়ে চুলায় বসিয়ে দিন। ১০ মিনিট জাল দিয়ে একদম শুকিয়ে যাওয়ার আগে নামিয়ে নিন। পাতাসহ একটি চ্যাপ্টা পাত্রে ঢেলে পরিবেশন করুন মজাদার হাতেমাখা মলাঢেলা।

সারাবাংলা/আরএফ/টিসি

Advertisement
বিজ্ঞাপন

Tags: , , , , , ,

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন