বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই, ২০১৯ ইং , ৩ শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৪ জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

নিরাপদ আম নিয়ে হাইকোর্টের আদেশ পৌঁছেনি সংশ্লিষ্টদের কাছে

এপ্রিল ১৫, ২০১৯ | ৬:৫৯ অপরাহ্ণ

এম এ কে জিলানী, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: আসছে আমের মৌসুমে মানুষের জন্য নিরাপদ আম নিশ্চিত করতে রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে  হাইকোর্ট দেওয়া  নির্দেশ এখনো পৌঁছেনি সংশ্লিষ্টদের কাছে।

গত ৯ এপ্রিল বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চের দেওয়া ওই আদেশে সাত দিনের মধ্যে নির্দেশ বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন। হাইকোর্টের একটি সূত্র সারাবাংলাকে জানায়, আদেশটি দেওয়ার পর মাত্র দুই কর্মদিবস (সোমবার, ১৫ এপ্রিল বাদে) সরকারি অফিস খোলা ছিল। তাই আদেশটি পৌঁছতে সময় লাগছে।

আম বাগানে পুলিশি পাহারার নির্দেশ হাইকোর্টের

হাইকোর্টের এই আদেশ বাস্তবায়ন নিয়ে সারাবাংলার এই প্রতিবেদক থেকে রাজশাহী বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার মো. নূর-উর-রহমানের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করেন। মো. নূর-উর-রহমান এসময় বলেন, ‘ আমরা হাইকোর্টের আদেশটির কথা শুনেছি কিন্তু এখনো হাতে পাইনি।’

বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ে বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ড অ্যান্ড টেস্টিং ইন্সটিটিউটের (বিএসটিআই) উপপরিচালক মো. রিয়াজুল হক সারাবাংলাকে বলন, ‘গণমাধ্যমের কল্যাণে আমরা হাইকোর্টের আদেশের কথা শুনেছি কিন্তু আদেশটির কপি হাতে পাইনি।’

রাজশাহী বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার মো. নূর-উর-রহমান সারাবাংলাকে আরও জানান, ‘হাইকোর্টের আদেশ হাতে না পেলেও যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। এই বিষয়ে রাজশাহী বিভাগের সকল জেলা প্রশাসক এবং আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিত বাহিনীর সঙ্গে সোমবার (১৫ এপ্রিল) একটি বৈঠক হয়েছে। ওই বৈঠকে সকলকে হাইকোর্টের নির্দেশের আলোকে পদক্ষেপ নেওয়ার আহবান জানানো হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আশা করছি আগামীকাল থেকেই বড় বড় প্রতিটি আমবাগানে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে। যাতে সকলের জন্য নিরাপদ আম নিশ্চিত করা যায়।’

হাইকোর্টের আদেশে বলা হয়, রাজশাহীর বড় আমবাগানগুলোতে রাসায়নিক ব্যবহার বন্ধে পুলিশ মোতায়েন করতে হবে। একইসঙ্গে রাজধানীর ফলের বাজার ও গুদামগুলোতে যেন আমে কেমিক্যাল ব্যবহার করতে না পারে, সেজন্য পর্যবেক্ষণ টিম গঠন করতে হবে।

আদেশে আরও বলা হয় আগামী সাত দিনের মধ্যে রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার, পুলিশ মহাপরিদর্শক, বিএসটিআইয়ের চেয়ারম্যান ও র‌্যাবের মহাপরিচালককে এ নির্দেশ বাস্তবায়ন করে প্রতিবেদন দাখিল করতে হবে।

জানা গেছে, এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিগত ২০১২ সালের ২৯ ফেব্রুয়ারি সাতদফা নির্দেশনা দিয়ে রায় দিয়েছিলেন আদালত। ওই রায়ের আলোকে ফের বাগানের আম বিষমুক্ত রাখতে নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেন আইনজীবী মনজিল মোরসেদ। পরে আদালত এ নির্দেশ দেন।

সারাবাংলা/জেআইএল/এমআই

Advertisement
বিজ্ঞাপন

Tags: ,

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন