সোমবার ২০ মে, ২০১৯ ইং , ৬ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৪ রমজান, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

টানা সাত ম্যাচে দর্শক সাকিব

এপ্রিল ১৭, ২০১৯ | ৯:১০ অপরাহ্ণ

স্পোর্টস ডেস্ক

ব্যাগ ভর্তি বুদ্ধি নিয়ে গেছেন সাকিব-এমন কথাই জানিয়েছিল আইপিএলের দল সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ। কিন্তু, বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডারকেই টানা ৭ ম্যাচে বসিয়ে রেখেছে দলটি। নিজেদের অষ্টম ম্যাচ খেলতে নামা হায়দ্রাবাদ সাকিবকে শুধু প্রথম ম্যাচটিতেই মাঠে নামিয়েছিল। এই ম্যাচে লিগ টেবিলের শীর্ষ দল মহেন্দ্র সিং ধোনির চেন্নাইয়ের বিপক্ষে খেলতে নেমেছে হায়দ্রাবাদ।

এদিকে, বিশ্বকাপ সামনে রেখে ১৫ সদস্যের চূড়ান্ত দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড, বিসিবি। ২২ এপ্রিল থেকে শুরু হবে মাশরাফিদের কন্ডিশনিং ক্যাম্প। সেখানে যোগ দিতে আইপিএলের মাঝপথ থেকে ফিরে আসার কথা টাইগারদের প্রাণভোমরা সাকিবের।

বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান এমনটিই নিশ্চিত করেছেন। আজ (বুধবার, ১৭ এপ্রিল) চেন্নাই সুপার কিংসের বিপক্ষে ম্যাচ শেষে ২১ এপ্রিল সাকিবের সাবেক ক্লাব কলকাতার বিপক্ষে খেলবে হায়দ্রাবাদ। এই দুটি ম্যাচ পর্যন্ত দলে থেকে সাকিবের ফিরে আসার সম্ভাবনা বেশি।

বিজ্ঞাপন

যেহেতু আইপিএলে খেলার সুযোগ সেভাবে হচ্ছে না, সেহেতু দেশে ফিরে জাতীয় দলের অনুশীলন ক্যাম্পে সাকিবের থাকাটাই শ্রেয়তর। এটা বুঝতে ক্রিকেট বোদ্ধা হতে হয় না। টানা ৭ ম্যাচে যেখানে খেলার সুযোগ পাননি সাকিব, সেখানে বসে থেকে কী লাভ? আজকের ম্যাচে হায়দ্রাবাদ বিদেশি চার ক্রিকেটারকে মাঠে নামিয়েছে। একাদশে আছেন ইংল্যান্ডের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান জনি বেয়ারস্টো, অস্ট্রেলিয়ান ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার, নিউজিল্যান্ডের কেন উইলিয়ামসন (অধিনায়ক) এবং আফগানিস্তানের স্পিনার রশিদ খান।

বিশ্বকাপের প্রস্তুতি সাকিবের ভারতে বসেই নেওয়ার কথা শোনা গিয়েছিল। সেজন্য কোচ মোহাম্মদ সালাহউদ্দিনকে ভারতে ডেকে পাঠিয়েছেন। তার অধীনে অনুশীলন সেরে নাকি ত্রিদেশীয় সিরিজে অংশ নিতে ভারত থেকেই আয়ারল্যান্ডের বিমান ধরার কথা ছিল। কিন্তু, বিসিবি থেকে সাকিবকে ডেকে চিঠি পাঠানো হয়েছে। টাইগারদের কন্ডিশনিং ক্যাম্প শুরু ২২ তারিখ থেকে। আকরাম খান জানিয়েছেন, ২০ বা ২২ এপ্রিল দলের সঙ্গে যোগ দেবেন সাকিব।

ইনজুরির কারণে নিউজিল্যান্ড সফরে ছিলেন না সাকিব। সেরে উঠতে না উঠতেই আইপিএলে খেলতে ভারতে উড়াল দেন। শর্ত সাপেক্ষে তাকে আইপিএল খেলতে অনুমতি দেয় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। যদিও ওয়ানডে বিশ্বকাপের আগে সাকিবের টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে খেলা ভালোভাবে নেননি অনেকেই। বিশ্বকাপের আগে ম্যাচ প্র্যাকটিসের কথা বিবেচনা করেই আইপিএলে খেলার ছাড়পত্র দেয়া হয় সাকিবকে। যদি তিনি ম্যাচই খেলতে না পারেন তাহলে সেখানে থেকে লাভ কী?

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) ম্যান অব দ্য টুর্নামেন্ট নির্বাচিত হওয়া সাকিব বল হাতে তুলে নেন ১৫ ম্যাচে সর্বোচ্চ ২৩ উইকেট। এছাড়াও রানার্সআপ ঢাকা ডায়নামাইটসের দলপতি ব্যাট হাতে করেছিলেন ৩০১ রান। কিন্তু আইপিএলে নিজেদের প্রথম ম্যাচের বোলিং বিবেচনা করে একাদশ থেকে বাদ পড়েন আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে শহীদ আফ্রিদি আর লাসিথ মালিঙ্গার পরেই উইকেট শিকারির তালিকায় থাকা সাকিব। ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক টি-টোয়েন্টির টুর্নামেন্টে সাকিবের উপরে আছেন শুধু ডোয়াইন ব্রাভো, লাসিথ মালিঙ্গা এবং সুনীল নারাইন।

সারাবাংলা/এমআরপি

** অবসরের সিদ্ধান্ত নেইনি কিংবা কাউকে বলিওনি: ইমরুল

Advertisement
বিজ্ঞাপন

Tags: ,

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন