মঙ্গলবার ১২ নভেম্বর, ২০১৯ ইং , ২৮ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৪ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

‘লুটপাট টিকিয়ে রাখতে শাসকগোষ্ঠী ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়েছে’

এপ্রিল ২০, ২০১৯ | ১০:০৭ অপরাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম ব্যুরো: বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য রুহিন হোসেন প্রিন্স বলেছেন, লুটপাটের জন্য ক্ষমতা টিকিয়ে রাখতে মানুষের ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়েছে শাসকগোষ্ঠী। এরা কখনো গণতান্ত্রিক অধিকার খর্ব করে, আবার কখনো ধর্মের নামে মানুষকে শোষণ করছে।

বিজ্ঞাপন

শনিবার (২০ এপ্রিল) সন্ধ্যায় চট্টগ্রামের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে এক যুব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বৃটিশবিরোধী আন্দোলনের সময় সংঘটিত ‘চট্টগ্রাম যুব বিদ্রোহের’ ৮৯তম বার্ষিকী উপলক্ষে এই সমাবেশের আয়োজন করে জেলা যুব ইউনিয়ন।

রুহিন হোসেন প্রিন্স বলেন, ‘বৃটিশের বিরুদ্ধে আমাদের ২০০ বছর সংগ্রাম করতে হয়েছে। সেই সংগ্রামের তীর্থভূমি ছিল চট্টগ্রাম। সেই সংগ্রাম আমাদের কেন করতে হয়েছিল? এককথায় বলতে হবে- স্বাধীনতার জন্য। কিন্তু শুধু কি একটি পতাকা ওড়াবার কিংবা একটি ভূখণ্ডের জন্য সংগ্রাম হয়েছিল? সেটার জন্য হয়নি। মানুষ হিসেবে আমার যে অধিকার, সেটা যেন কেউ কেড়ে না নেয়, সেই কারণেই লড়াইটা হয়েছিল।’

বাম নেতা প্রিন্স বলেন, ‘আমরা চেয়েছিলাম এমন একটি দেশ, যেখানে আমার কথা বলার অধিকার থাকবে, অর্থনৈতিক স্বাধীনতা থাকবে। অথচ স্বাধীনতার ৪৮ বছর পর কি দেখছি ? আমরা বৃটিশ খেদালাম, পাকিস্তানের ২২ পরিবারকে খেদালাম। কিন্তু আজ নতুন করে ২২ হাজার পরিবারের সৃষ্টি হয়েছে।’

রুহিন হোসেন প্রিন্স আরও বলেন, ‘বাংলাদেশ এখন এমন তরিকায় চলে- যে বানায় টাকা, তার পকেট ফাঁকা। আর যে বানায় না টাকা তাদের পকেট ভরা। যারা টাকা না বানিয়ে পকেট ভরায়, তারা আমাদের কণ্ঠ চেপে ধরে। তারা জনগণের কণ্ঠ চেপে ধরে। তারাই এমপিগিরির নামে লুটপাট করে। এজন্য তারা আমাদের গণতান্ত্রিক অধিকার খর্ব করে। তারাই ধর্মের নামে আমাদের গলাটিপে ধরতে চাই।’

নুসরাত হত্যার প্রসঙ্গ টেনে প্রিন্স বলেন, ‘এখানেও ধর্মকে বর্ম বানানো হয়েছে। সিরাজ উদ দৌলা কিভাবে এত সাহস পেল? তিনি নাকি জামায়াত ইসলাম করতেন, আর এখন আওয়ামী লীগ করেন। তার মানে তার আসল দল হচ্ছে সরকারি দল। মাদরাসায় দোকানপাট আছে। এই দোকানের ভাগ-বাটোয়ারার জন্য আওয়ামী লীগের লোকজন তাকে সমর্থন করে। নীতি-আদর্শের অবশিষ্ট আর নেই।’

এসময় বৃটিশবিরোধী সংগ্রাম এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে নীতি-আদর্শের লড়াই জোরদার করার জন্য যুব সমাজের প্রতি আহ্বান জানান এই রাজনীতিক।

চট্টগ্রাম জেলা যুব ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক উজ্জ্বল শিকদারের সঞ্চালনায় এবং সভাপতি রিপায়ন বড়ুয়ার সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন- সিপিবি নেতা অধ্যাপক কানাই লাল দাশ, যুব ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ আব্দুল মান্নান ও মো. আমির হোসেন।

সারাবাংলা/আরডি/এমও

বিজ্ঞাপন
Advertisement
বিজ্ঞাপন

Tags: , ,

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন