শুক্রবার ২৪ মে, ২০১৯ ইং , ১০ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৮ রমজান, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

কিরগিজদের হারানোর অস্ত্র জানা আছে মেয়েদের

এপ্রিল ২৫, ২০১৯ | ৯:২৫ অপরাহ্ণ

।। স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট।।

ঢাকা: মেয়েদের ফুটবল মানেই গোলের উৎসব। সম্প্রতি কয়েকবছর তাই দেখে অভ্যস্ত দেশের ফুটবল সমর্থকরা। এবার বঙ্গমাতা আন্তর্জাতিক গোল্ড কাপের শুরুটা সেভাবে শুরু না হলেও মারিয়া-মণিকা-মৌসুমীদের ‍দুর্দান্ত ফুটবল নিদর্শন নিদ্বিধায় মন জয় করে নিয়েছে সমর্থকদের। এবার ফুটবলটা ধরে রাখতে হবে গ্রুপের পরের ম্যাচ কিরগিজস্তানের সঙ্গে।

মাঝে তিনদিন সময় পেয়েছে গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যরা। প্রথম ম্যাচে ফিনিশিংয়ের হতাশাটা মেটানোর অস্ত্রেই যেন ধার দিতে হয়েছে অনুশীলনে। সঙ্গে কিরগিজস্তান ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের ম্যাচের দিকেও নজর ছিল লাল-সবুজদের। মাঠে না গেলেও টেলিভিশন স্ক্রিনে খেলা দেখেছে কোচসহ মেয়েরা। কিরগিজদের দুর্বলতা নিয়ে এক সেশন কাটিয়েছেন কোচ।

সেই সেশনে যোগ হয়েছে অতীত স্মৃতিও। কিরগিজদের সঙ্গে এর আগেও ২০১৬ সালে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপে মুখোমুখি হয়েছিল বাংলাদেশ। সেবার কিরগিজদের জালে ১০ গোলের বন্যা বইয়ে দিয়েছিল কৃষ্ণা-শামসুন্নাহাররা। ওই দলের সবাই এখন লাল-সবুজে আছে। কিরগিজদের সেই দলের কয়েকজন সদস্য এবারের এই দলে আছেন।

সেটাও মনে করিয়ে দিচ্ছেন কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন, ‘ওরা এখন পরিণত হয়েছে। ওদের ২০১৬ সালের সেই দলের কিছু ফুটবলার এই দলেও আছে। তবে, আমরা ফোকাস করছি গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়া নিয়ে। তাদের দুর্বল ভেবে মাঠে নামছি না। তাদের ম্যাচ দেখেছি। তাদের দুর্বলতাগুলো কাজে লাগানো যায় কীভাবে সেটাই অনুশীলনে প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে।’

বিজ্ঞাপন

জয় ছাড়া কিছুই ভাবছেন না অধিনায়ক মিসরাত জাহান মৌসুমী, ‘আমরা গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতে চাই। গেল ম্যাচে যে ভুলত্রুটি হয়েছে সেগুলোই কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা করবো কিরগিজদের সঙ্গে। ওদের দুর্বলতা নিয়ে কাজ করেছেন কোচ। আমরা সেটাই উপস্থাপন করবো ম্যাচেও।’

সেই হিসেবে চেনা প্রতিপক্ষকে বধের অস্ত্র জানা আছে দেশের মেয়েদের। গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়া নিয়েই সবার এখন পরিকল্পনা। সেই কৌশল ফলানোর চেষ্টা করবে তারা শুক্রবার (২৬ এপ্রিল) সন্ধ্যা ৬টায়। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে।

এদিকে গ্রুপ ‘এ’র নিজেদের প্রথম ম্যাচে মঙ্গোলিয়াকে হারিয়েছে লাওস। প্রথমার্ধেই মঙ্গোলিয়ার জালে তিনবার বল জড়িয়েছে লাওস। দ্বিতীয়ার্ধে আরও দুটি। ৫-০ ব্যবধানে উড়িয়ে সেমির পথে এক ধাপ দিয়ে রেখেছে লাওস। সেমি ফাইনালে পথে আছে মঙ্গোলিয়াও। এ’ গ্রুপের প্রথম ম্যাচে তাজিকিস্তানকে ৩-০ ব্যবধানে হারিয়ে মিশন শুরু করেছিল মঙ্গোলিয়া। শেষ ম্যাচে তাজিকদের জন্য সবচেয়ে কঠিন চ্যালেঞ্জ। হারাতো যাবেই না। খালি চোখে যেটা অসম্ভবই মনে হচ্ছে। যদি সেটা না হয় তাহলে মঙ্গোলিয়া ও লাওসই যাচ্ছে শেষ চারে।

সারাবাংলা/জেএইচ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন