বিজ্ঞাপন

সরকারি চাকরির বয়স: ৩৫ না হলে ঈদের পরে বৃহত্তর কর্মসূচির হুশিয়ারি

April 29, 2019 | 5:40 pm

ঢাবি করেসপন্ডেন্ট

সরকারি চাকরিতে আবেদনের বয়সসীমা ৩৫ বছরে উন্নীত না করলে রমজানের ঈদের পর অবরোধের মতো কর্মসূচির হুশিয়ারি দিয়েছে ‘৩৫ চাই’ আন্দোলনকারীরা।

বিজ্ঞাপন

সোমবার (২৯ এপ্রিল) দুপুর ২টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির কার্যালয়ে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রীর বক্তব্যের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে এসব কথা বলেন ‘বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র পরিষদ’-এর যুগ্ম আহ্বায়ক হারুন-অর রশিদ।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘আগামী রোজার ঈদের আগে চাকরিতে আবেদনের বয়সসীমা ৩৫ বছরে উন্নীত করা না হলে রমজানের ঈদের পর অবরোধের মতো বৃহত্তম কর্মসূচি দেওয়া হবে। আগামীকাল থেকে সারাদেশের জেলা ও উপজেলা কমিটিগুলো সংস্কার ও বর্ধিত করার কাজ শুরু হবে।’ তাই ৩৫ প্রত্যাশীদের মানসিকভাবে প্রস্তুতি নেওয়ারও আহ্বান জানান তিনি।

বিজ্ঞাপন

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রীর কথা উল্লেখ্য করে তিনি বলেন, ‘জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রীর উক্ত বক্তব্য সত্যের অপলাপ এবং আংশিক উদোর পিণ্ডি বুদোর ঘাড়ে ছাড়া আর কিছু নয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা সেশনজট নিরসনসহ পাঁচদফা দাবিতে ২৩ এপ্রিল নীলক্ষেত মোড় অবরোধ করে। তাছাড়া ২০০৮ থেকে ২০১৪ পর্যন্ত মাস্টার্স পরীক্ষার সেশনজট ছিল গড়ে তিন বছর। একই অবস্থা ২০১৫, ২০১৬ ও ২০১৭ সালের মাস্টার্স পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে। কাজেই সেশনজট না থাকার বিষয়ে প্রতিমন্ত্রী যে বক্তব্য দিয়েছেন তা পুরোটাই সত্যের অপলাপ। সেশন জটের উল্লেখিত পরিসংখ্যান প্রতিমন্ত্রী না জেনে থাকলে সেটি তার অজ্ঞতা এবং আমাদের জন্য দুর্ভাগ্য। আর যদি তিনি এ বিষয়ে অবগত থেকেই তা অস্বীকার করেন তবে তা আমাদের জন্য অশনি সংকেত।’

আন্দোলনকারীরা তাদের দাবির স্বপক্ষে বিভিন্ন যুক্তি তুলে ধরেন। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক নাসরিন সুলতানা, জিৎ শিকদার, মুকুল হোসেন ও ইউসুফ জামিল মহাদেব সরকার।

বিজ্ঞাপন

উল্লেখ্য, ২৫ এপ্রিল জাতীয় সংসদে সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩৫ বছরে উন্নীত করার জন্য বগুড়া-৭ আসন থেকে নির্বাচিত স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য মো. রেজাউল করিম বাবলু সরকারি সিদ্ধান্ত প্রস্তাব উত্থাপন করেন। তার এই প্রস্তাবটি সমর্থন করে সরকারি ও বিরোধী দলের ১০ জন সংসদ সদস্য অবিলম্বে চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩৫ করা হোক মর্মে সংশোধনী প্রস্তাব দেন। কিন্তু প্রস্তাবটি কণ্ঠভোটে প্রত্যাখাত হয়।

সারাবাংলা/কেকে/এমআই

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন