বিজ্ঞাপন

‘সাংবাদিকরা বিক্রয়কর্মী নয়, লাভ-ক্ষতির হিসাবে ছাঁটাই করবেন না’

May 5, 2019 | 3:04 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: প্রতিষ্ঠান হিসেবে গণমাধ্যমের লাভ-লোকসানের হিসাব দেখে ছাঁটাই না করার দাবি জানিয়েছেন সাংবাদিক নেতারা। রোববার (৫ মে) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে) আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা এই দাবি জানান।

বিজ্ঞাপন

গণমাধ্যমে অনৈতিক ছাটাই বন্ধ, নিয়মিত বেতন প্রদান, অবিলম্বে গণমাধ্যমকর্মী আইন পাস ও নবম ওয়েজ বোর্ড রোয়েদাদ ঘোষণার দাবিতে এই সমাবেশের আয়োজন করা হয়। সমাবেশ থেকে ঈদুল ফিতরের আগেই নবম ওয়েজ বোর্ড বাস্তবায়নের দাবি জানানো হয়।

সমাবেশে সাংবাদিক নেতারা বলেন, কারণে-অকারণে মালিকের ইচ্ছায় কোনো গণমাধ্যমকর্মীকে ছাঁটাই মেনে নেওয়া হবে না। একইসঙ্গে যাদের চাকরিচ্যুত করা হয়েছে, অবিলম্বে তাদের চাকরিতে পুনঃবহাল করতে হবে। এ সময় তারা নবম ওয়েজ বোর্ড রোয়েদাদ ঘোষণার দাবি জানান।

বিজ্ঞাপন

সভাপতির বক্তব্যে বিএফইউজে, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মোল্লা জালাল বলেন, আজ গণমাধ্যমকর্মীদের কেউ ভালো নেই। মাঠে কাজে আছেন, অফিসে গিয়ে তিনি জানতে পারেন— তার চাকরি নেই। আমরা এমন নৈরাজ্যের পরিস্থিতি চাই না।

তিনি বলেন, আগামীকাল (সোমবার) সকাল ১১টায় প্রেস ক্লাবের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশ করবে বিএফইউজে। সেখানে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

বিজ্ঞাপন

বিএফইউজে মহাসচিব শাবান মাহমুদ বলেন, সাংবাদিকদের অধিকার সবসময় মাঠে থাকতে চাই। আমরা রাজপথে এসেছি, আমাদের দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত ঘরে ফিরে যাব না। গণমাধ্যমে বিশ্বাসঘাতক মোশতাকের আগমন ঘটেছে। এই ঘাতকদের চিহ্নিত করে তাদের গণমাধ্যম থেকে বিতাড়িত করতে হবে।

সারাবাংলা ডটনেট, দৈনিক সারাবাংলা ও জিটিভি’র এডিটর ইন চিফ সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা  বলেন, সাংবাদিকরা বিক্রয়কর্মী নয়, গণমাধ্যমে লাভ-লোকসানের হিসাব করে তাদেরকে কেন ছাঁটাই করা হবে? মালিকপক্ষ এখানে একধরনের দুরভিসন্ধি করছে। তারা চায় না দেশে গণমাধ্যমে বিকশিত হোক। এটা একধরনের রাষ্ট্রবিরোধী আচরণ। অবিলম্বে এই প্রবণতা বন্ধ করতে হবে।

বিজ্ঞাপন

ডিইউজের সভাপতি আবু জাফর সূর্য বলেন, আমরা সাংবাদিকতা করতে চাই। এজন্য কর্মপরিবেশ চাই, নিয়মিত বেতন-ভাতা চাই। আমাদের চোখে ধুলা দেওয়ার চেষ্টা করবেন না। যাদের চাকরিচ্যুত করা হয়েছে, তাদের অবিলম্বে চাকরিতে পুনঃবহালের দাবি জানাই।

ডিইউজের যুগ্ম সম্পাদক আখতার হোসেন সমাবেশ পরিচালনা করেন। বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) যুগ্ম মহাসচিব আব্দুল মজিদ, ডিইউজে’র সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরীসহ অনেকে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/টিএস/টিআর/এটি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন