শনিবার ২০ জুলাই, ২০১৯ ইং , ৫ শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৬ জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

গরমে নাভিশ্বাস, আরও বাড়বে তাপমাত্রা

মে ১০, ২০১৯ | ১২:২১ পূর্বাহ্ণ

তুহিন সাইফুল, স্টাফ করেসপন্ডেট

ঢাকা: টানা ২০ দিনের তাপপ্রবাহের পর ঘূর্ণিঝড় ফণীর প্রভাবে সারাদেশে দু’দিন বৃষ্টির দেখা মিললেও আবার শুরু হয়েছে গরমের রাজত্ব। এর মধ্যে আবহাওয়া বার্তাতেও নেই কোনো সুখবর। আগামী টানা তিন কিংবা চার দিন ধরে সূর্যের তেজে জ্বলবে সারাদেশ। সোমবার (১৩ মে) নাগাদ আকাশে দেখা মিলতে পারে মেঘের।

বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদফতরের আবহাওয়াবিদ ওমর ফারুক বৃহস্পতিবার (৯ মে) বিকেলে সারাবাংলাকে বলেন, সোমবার পর্যন্ত ঢাকার আকাশে মেঘের দেখা মিলবে না। একইসঙ্গে রোদের তেজও বাড়বে পাল্লা দিয়ে। আসছে তিন দিনের মধ্যে তাপমাত্রা ৪২ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত উঠতে পারে আশঙ্কা করছেন এই আবহাওয়াবিদ।

বৃহস্পতিবার ঢাকায় সকালে সূর্যের আলো ফোটার পর থেকেই শুরু হয় গরম। দিন যত গড়াতে থাকে, ততই উঠতে থাকে তাপমাত্রার পারদ। সকাল ১১টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত সময়ে গরমের মাত্রা ছাড়িয়ে যেতে থাকে সহ্যের সীমা। আবহাওয়া অফিস বলছে, সপ্তাহের শেষ দিনে ঢাকায় ৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত তাপমাত্রা অনুভূত হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

এমন তাপমাত্রায় স্বাভাবিকভাবেই হাঁসফাঁস করেছে মানুষ। এছাড়াও ‘মরার ওপর খাঁড়ার ঘা’ হিসেবে যুক্ত হয়েছে যানজট। যাত্রী ঠাসা বাস, জনারণ্য পথঘাট, বিদ্যুৎ বিভ্রাট আর পানির অভাব পরিস্থিতিকে আরও সঙ্গীন করে তুলেছে বলে মন্তব্য রাজধানীবাসীর।

রাজধানীর বিজয়নগর সিগন্যালে দাঁড়িয়ে ব্যাংক কর্মকর্তা রাশেদ জামান বলছিলেন, ‘যানজটের আর মানুষের ভীড়ের কারণে নগরের গরমকে নরকের মতো যন্ত্রনাদায়ক মনে হয়।’

হিসাব ভবনের পঞ্চাশোর্ধ সরকারি কর্মকর্তা আব্দুর রহমান বলেন, ‘যারা বাইরে কাজ করেন তাদের জন্য এই গরম অসহনীয়। দিনের একটা নির্দিষ্ট সময় অফিসে বসে থাকি বলে খুব একটা অনুভব করা যায় না। তবে বাড়ি ফেরার সময় বুঝতে পারি, ঢাকা শহরের গরম কতোটা তীব্র। এমন গরমে রোজা রাখাটা খুব কঠিন।’

এদিকে, বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই রংপুর, দিনাজপুর ও সৈয়দপুর অঞ্চলসহ রাজশাহী ও খুলনা বিভাগের ওপর দিয়ে তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। তবে আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, আগামী সোমবার থেকে বৃষ্টি ও বজ্রসহ বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।

বিবিসি ওয়েদার ম্যাপ জানাচ্ছে, সোমবারের পর থেকে ২০ মিলিমিটারের চেয়েও বেশি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে ঢাকায়। রোববারেও ঢাকার আকাশ মেঘাচ্ছন্ন থাকবে। একই কথা বলছে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদফতরের মানচিত্রও। সেক্ষেত্রে ঢাকায় বিচ্ছিন্নভাবে কমপক্ষে তিন দিন বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা দেখছে তারা। এছাড়াও জনপ্রিয় ওয়েদার ম্যাপ উইন্ডিও নিজেদের মানচিত্রে সোমবার থেকে ঢাকার আকাশে ভারি বর্ষণের ছবি এঁকে রেখেছে।

আপাতত সেই বৃষ্টির সম্ভাবনাটুকুই সান্ত্বনা, কড়া রোদের ছবিটাই চড়া বাস্তবতা। রমজানের প্রথম সাপ্তাহিক ছুটির দিনটিতেই যদি ঈদ শপিংয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করে থাকেন, কাঙ্ক্ষিত পণ্যের তালিকা আর বাজেটের পাশাপাশি মাথায় রাখুন শেষ বৈশাখের এই রোদকেও।

সারাবাংলা/টিএস/জেডএফ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন