সোমবার ২৭ মে, ২০১৯ ইং , ১৩ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২১ রমজান, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতদের ৪৮ ঘণ্টার আল্টিমেটাম

মে ১৪, ২০১৯ | ২:২৮ অপরাহ্ণ

ঢাবি করেসপন্ডেন্ট

ছাত্রলীগের সদ্যঘোষিত পূর্ণাঙ্গ কমিটি ভেঙে দিতে ৪৮ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়েছেন এই কমিটিতে পদবঞ্চিত ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। তারা বলছেন, ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে এই কমিটি ভেঙে দেওয়া না হলে তারা বিক্ষোভ ও অনশন করবেন এবং যে কয়েকজন কমিটিতে স্থান পেয়েছেন, তারা গণপদত্যাগ করবেন।

মঙ্গলবার (১৪ মে) দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) মধুর ক্যান্টিনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে ‘যোগ্য পদ’ না পাওয়া বা কমিটিতে স্থান না পাওয়া নেতাকর্মীরা এই আল্টিমেটাম দেন।

বিজ্ঞাপন

সংবাদ সম্মেলনে শামসুন নাহার হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ও ডাকসু’র কেন্দ্রীয় সদস্য নিপু ইসলাম তন্বী বলেন, ছাত্রলীগের যে কমিটি করা হয়েছে, এতে বিবাহিত, ছাত্রদল সদস্য ও অছাত্র রয়েছে। ত্যাগীদের এই কমিটি থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। অবিলম্বে এই কমিটি ভেঙে দিয়ে নতুন কমিটি করতে হবে। ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে এই কমিটি ভেঙে না দেওয়া হলে আমরা কমিটি থেকে গণপদত্যাগ করব, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত বিক্ষোভ ও অনশন করব।

সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়, দীর্ঘ দিন ধরে যারা ছাত্রলীগে সক্রিয় এবং সংগঠনের জন্য নিবেদিত হয়ে কাজ করছেন, তাদের নতুন কমিটিতে মূল্যায়ন করা হয়নি। অযোগ্য ও নিষ্ক্রিয়দের বড় বড় পদ দেওয়া হলেও ত্যাগী ও নিবেদিতদের অনেকেই কমিটিতে স্থান পাননি। যারা স্থান পেয়েছেন, তাদেরও উপসম্পাদক ও সদস্যের মতো পদ দিয়ে অবমূল্যায়িত করা হয়েছে। তাদের যোগ্যতা অনুযায়ী পদ দেওয়া হয়নি। আবার ছাত্রদল করে আসা ও বিবাহিতদেরও স্থান দেওয়া হয়েছে এই কমিটিতে। সে কারণেই ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে এই কমিটি ভেঙে দিয়ে যোগ্যদের মূল্যায়নের দাবি জানিয়েছেন তারা।

এদিকে, সোমবার (১৩ মে) এই কমিটি ঘোষণা দেওয়ার পর পদবঞ্চিতরা বিক্ষোভ করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায়। সেসময় বিক্ষোভকারীদের মারধর করা হয়। পরে ওই ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে ছাত্রলীগ। তবে সেই কমিটিকে প্রত্যাখ্যান করছেন বিক্ষোভকারীরা।

রোকেয়া হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি বি এম লিপি আক্তার সংবাদ সম্মেলনে বলেন, যারা গতকাল (সোমবার) আমাদের মারধর করেছে, তাদেরই তদন্ত কমিটিতে সদস্য করা হয়েছে। আমরা এই কমিটি মানি না।

কমিটি ভেঙে দিয়ে যোগ্যদের মূল্যায়িত করে নতুন কমিটি গঠনের জন্য প্রয়োজনে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার দ্বারস্থ হওয়ার কথা জানিয়েছেন বিক্ষোভকারীরা।

সংবাদ সম্মেলনে জসিদ উদদীন হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহেদ খান বলেন, ডাকসু নির্বাচনের সময় আওয়ামী লীগ নেতারা বলেছিলেন, ডাকসুতে যাদের স্থান দেওয়া সম্ভব হয়নি সেসব ত্যাগী নেতাদের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে মূল্যায়ন করা হবে। কিন্তু সেটা করা হয়নি। তাই আমরা আর আওয়ামী লীগ নেতাদের কথা শুনব না। আমাদের ছাত্রলীগের আদর্শিক নেতা শেখ হাসিনা। আমরা সরাসরি তার কথা শুনব।

এর আগে, কমিটিতে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে ঢাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেন পদবঞ্চিতরা। মিছিল থেকেও তারা মিছিল থেকে তারা এই কমিটি ভেঙে দিয়ে যোগ্য ও ত্যাগী নেতাদের কমিটিতে স্থান দেওয়ার দাবি জানান।

সারাবাংলা/কেকে/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন