শনিবার ২০ জুলাই, ২০১৯ ইং , ৫ শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৬ জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

এসএসসি: চট্টগ্রামে ৪৪ হাজার উত্তরপত্র পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন

মে ১৪, ২০১৯ | ৯:৪৩ অপরাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম ব্যুরো: সদ্য ঘোষিত এসএসসি পরীক্ষার ফল পুনঃনিরীক্ষণের জন্য চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের অধীনের ১৯ হাজার ১৮৩ জন পরীক্ষার্থী আবেদন করেছেন। ইতোমধ্যে ১০টি বিষয়ে ৪৪ হাজার ২৯৭টি উত্তরপত্র পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন জমা পড়েছে শিক্ষাবোর্ডে।

মঙ্গলবার (১৪ মে) বিকেলে চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাহবুব হাসান সারাবাংলাকে এই তথ্য জানিয়েছেন।

গত ৬ মে একযোগে সারাদেশে এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণা করা হয়। চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডে এবার পাসের হার ৭৮ দশমিক ১১ শতাংশ। এর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭ হাজার ৩৯৩ জন। গতবারের চেয়ে পাসের হার বাড়লেও এবার কমেছে জিপিএ-৫।

জিপিএ-৫ কমে যাবার কারণ হিসেবে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাহবুব হাসান জানিয়েছিলেন, চার বিষয়ে এবার পরীক্ষার্থীরা খারাপ ফল করায় জিপিএ-৫ কমে গেছে। বিষয়গুলো হচ্ছে- বাংলা, গণিত, ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং এবং মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের আবশ্যকীয় বিষয় সাধারণ বিজ্ঞান।

বিজ্ঞাপন

মাহবুব হাসান জানান, এবার যে ১০টি বিষয়ে উত্তরপত্র পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন জমা পড়েছে সেগুলো হলো, গণিত, রসায়ন, ইংরেজি প্রথমপত্র, বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয়, বাংলা প্রথমপত্র, জীববিজ্ঞান, ইসলাম ধর্ম, ইংরেজি দ্বিতীয়পত্র, বাংলা দ্বিতীয়পত্র ও পদার্থবিজ্ঞান।

এর মধ্যে গণিতে ৮ হাজার ৩৬৮টি, রসায়নে ৪ হাজার ৪৭৪, ইংরেজি প্রথম পত্রে ৪ হাজার ২৫০, বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয়ে ৩ হাজার ৬৬৮, বাংলা প্রথমপত্রে ৩ হাজার ৬২৪, জীববিজ্ঞানে ২ হাজার ৫৮৮, ইসলাম ধর্মে ২ হাজার ৩৭২, ইংরেজি দ্বিতীয়পত্রে ২ হাজার ৪৪০, বাংলা দ্বিতীয়পত্রে ২ হাজার ১২৫ এবং পদার্থবিজ্ঞানে ২ হাজার ৯০টি উত্তরপত্র পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন জমা পড়েছে।

উত্তরপত্রগুলো পুনঃনিরীক্ষণ শেষে চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ড আগামী ১ জুন ফলাফল ঘোষণা করবে বলে জানিয়েছেন মাহবুব হাসান।

গত ফেব্রুয়ারিতে এসএসসি পরীক্ষায় চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের অধীনে ১ হাজার ৩০টি স্কুলের ১ লাখ ৪৯ হাজার ৬০৬ জন শিক্ষার্থী অংশ নেয়। এর মধ্যে পাস করেছে ১ লাখ ১৬ হাজার ৮৫১ জন। মোট পাসের হার ৭৮ দশমিক ১১ শতাংশ।

পাস করা পরীক্ষার্থীর মধ্যে ছাত্র পাসের হার ৭৮ দশমিক ৪৩ শতাংশ। ছাত্রী পাসের হার ৭৭ দশমিক ৮৩ শতাংশ। বিজ্ঞান বিভাগে পাসের হার ৯১ দশমিক ৪৬ শতাংশ। ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে পাসের হার ৮০ দশমিক ৮৫ এবং মানবিকে ৬৫ দশমিক ৭৯ শতাংশ।

সারাবাংলা/আরডি/এটি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন