রবিবার ২৫ আগস্ট, ২০১৯ ইং , ১০ ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২৩ জিলহজ, ১৪৪০ হিজরি

বিজ্ঞাপন

টিকে থাকার লড়াইয়ে জয়ী রাহি!

মে ১৫, ২০১৯ | ৮:৩৭ অপরাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

আবু জায়েদ রাহি, রুবেল হোসেন, আবু জায়েদ, আবু জায়েদ, আবু জায়েদ, আবু জায়েদ, সাইফউদ্দিন, সাইফউদ্দিন-স্কোর কার্ডে ঠিক এভাবেই ক্রমানুসারে সাজানো বাংলাদেশের বোলারদের নাম। যার একদিকে আইরিশ ব্যাটসম্যানদের নাম ও রান। ক্রিকেট ভক্তদের বুঝতে বাকি থাকার কথা নয় ত্রিদেশীয় সিরিজে নিয়মরক্ষার ম্যাচে স্বাগতিকদের বিপক্ষে বল হাতে লাল সবুজের সফলতম বোলার ওয়ানডে ক্রিকেটে নবাগত আবু জায়েদ রাহি।

বুধবার (১৫ মে) ডাবলিনে টস হেরে নির্ধারিত ৫০ ওভার বল করে স্টিভ রোডস শিষ্যরা আইরিশদের যে ৮ উইকেটের পতন ঘটিয়েছেন এর ৫টিই রাহির দখলে। বাকি তিনটির দুটি সাইফউদ্দিন ও অপরটি নিয়েছেন রুবেল হোসেন। ইনিংস শেষে দলটির সংগ্রহ দাঁড়িয়েছে ২৯২ রান।

তাহলে কী একথা বলা যায়, বিশ্বকাপে যেতে তাসকিনের সঙ্গে রাহির যে দ্বৈরথ চলছে তাতে রাহিই জয়ী? এই বিষয়টি নিয়ে এতদিন যে চাপ তিনি বয়ে বেড়িয়েছেন তা আজ অনেকটাই সরিয়ে দিলেন? সেই সিদ্ধান্ত না হয় কর্তৃপক্ষই নেবে।

তবে ক্রিকেটীয় দৃষ্টিভঙ্গি থেকে একথা বলাই যায় এই ম্যাচের পারফরম্যান্সে নিজেকে বিশ্বকাপের জন্য শতভাগ প্রমাণ দিয়েছেন এই তরুণ সুইং বোলার। অথচ মাত্র দিন তিনেক আগেও বিশ্বকাপে তিনি থাকছেন নাকি তাসকিন থাকছেন? সেই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে বিসিবি সভাপতির দ্বারস্ত হতে হয়েছিল দেশের সংবাদ মাধ্যমগুলোকে। বিসিবি সভাপতি সোজা কথায় বলে দিয়েছিলেন, ‘আমরা পারফরম্যান্স দেখব। যে পারফর্মার তাকেই বিশ্বকাপ দলে রাখব।’

বিজ্ঞাপন

এদিন রাহি নিজের প্রথম শিকারের দেখা পেয়েছেন ইনিংসের ১১তম ওভারে। শর্ট বলে বালবির্নিকে তুলে দিয়েছেন উইকেটের পেছনে মুশফিকুর রহিমে নিরাপদ গ্লাভসে। তার আগে এই টপ অর্ডার খেলেছেন ব্যক্তিগত ২০ রানের ইনিংস। তৃতীয় উইকেটে পল স্টার্লিং ও উইলিয়াম পোর্টারফিল্ড ১৭৪ রানের জুটিতে যখন উইকেটকে ঘর-বাড়ি বানিয়ে ফেলেছিলেন ঠিক তখন আবার জ্বলে উঠে নার্ভাস নাইনটিতে থাকা পোর্টারফিল্ডকে এক্সট্রাকাভারে লিটন দাসের ক্যাচ বানিয়ে সেই ঘর ভাঙলেন রাহি। মাত্র ৬ রানের জন্য সেঞ্চুরি বঞ্চিত হলেন আইরিশ দলপতি।

এক ওভার পরেই প্যাভিলনের পথ দেখালেন কেভিন ও’ব্রায়ানকে। ৪৭তম ওভারে মিডল স্ট্যাম্পের বল লং অন দিয়ে ছয় হাঁকাতে গেলে ব্যক্তিগত ৩ রানে তামিম ইকবালের মুঠোয় জমে যান ও‘ব্রায়ান। চতুর্থ শিকার ছিলেন ইনিংসের গোড়াপত্তন করে সেঞ্চুরি তুলে নেওয়া পল স্টার্লিং। রাহির ফুল লেংথ স্লোয়ার বলটি স্টার্লিং কাউ কর্নার দিয়ে উঠিয়ে দিলে লিটনের ক্যাচ বনে যান। এর আগে দলকে দিয়ে গেছেন ১৩০ রান।

রাহি তার ওয়ানডে ক্যারিয়ারে প্রথম পঞ্চম শিকার বানান গ্যারি উইলসনকে। ৪৯তম ওভারে তার চতুর্থ বল কাভার ড্রাইভ করতে গেলে ১২ রানে পয়েন্ট অঞ্চলে সাকিবের হাতে ধরা পড়েন গ্যারি। এক চিলতে হাসি খেলে যায় রাহির মুখে। হাসিটি বিজয়ের কী না তা রাহিই বলতে পারেন।

সারাবাংলা/এমআরএফ/এমআরপি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন