শনিবার ২৫ মে, ২০১৯ ইং , ১১ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৯ রমজান, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

অভিযোগের সত্যতা পেলে ২৪ ঘণ্টায় অব্যাহতি: শোভন-রাব্বানী

মে ১৬, ২০১৯ | ১২:৫৭ পূর্বাহ্ণ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে স্থান পাওয়া বিতর্কিত নেতাদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেলে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তাদের পদ থেকে অব্যাহতি দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী।

বুধবার (১৫ মে) দিবাগত রাতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে আওয়ামী লীগ নেতাদের সঙ্গে কয়েক ঘন্টার বৈঠক শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে ছাত্রলীগের শীর্ষ এই দুই নেতা এ তথ্য জানান।

সংগঠনের এই দুই নেতা বলেন, ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে স্থান পাওয়া বিতর্কিতদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ ২৪ ঘণ্টার মধ্যে খতিয়ে দেখে এর সত্যতা পাওয়া গেলে তাদেরকে পদ থেকে অব্যাহতি দেয়া হবে। যে পদগুলো খালি হবে সেখানে ত্যাগী ও বঞ্চিতদের অন্তর্ভূক্ত করা হবে।

বিজ্ঞাপন

তারা জানান, এখন পর্যন্ত আমরা ১৭ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ পেয়েছি। এদের বিরুদ্ধে বিবাহিত হওয়া, মাদক ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত থাকা, দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ ও বিএনপি-জামাত পরিবারের সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগ পাওয়া গেছে। যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ এসেছে, সেসব অভিযোগ প্রমাণিত হলে তাদের অব্যাহতি দেয়া হবে। এর বাইরেও কারো বিরুদ্ধে অভিযোগের সঠিক প্রমাণ পাওয়া গেলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থাও নেয়া হবে, বলেন তারা।

সংবাদ সম্মেলনে অভিযুক্ত ১৭ জনের নাম ঘোষণা করেন গোলাম রব্বানী। তিনি বলেন, আমি অভিযুক্তদের নাম ঘোষণা করছি। এই ১৭ জন হলেন—তানজীল ভুইয়া তানভীর (বয়স), আরেফিন সিদ্দিকি সুজন (মাদক সংশ্লিষ্টতা), সুরঞ্জন ঘোষ( বয়স), আতিকুর রহমান খান (মাদক সংশ্লিষ্টতা), বরকত হোসেন হাওলাদার (শিক্ষকের সঙ্গে অসদাচরণের অভিযোগ), শাহরিয়ার হোসেন বিদ্যুৎ( সংগঠনের নীতি বিরোধী কর্মকাণ্ড), মাহমুদুল হাসান তুষার (মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধে চেতনা ধারণের অভিযোগ), আমিনুল ইসলাম বুলবুল (মামলা রয়েছে), আহসান হাবীব (চাকরি) ,সাদিক খান (বিবাহ), তৌফিক হাসান সাগর (পরিবারের বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী কর্মকাণ্ডের অভিযোগ), সোহানী হাসান তিথি (বিবাহ), রুশি চৌধুরী (বিবাহ), মুনমুন নাহার বৈশাখী (বিবাহ) ও আফরিন লাবণী (বিবাহ)।

রাব্বানী বলেন, আমরা প্রাথমিকভাবে ১৭টি নাম পেয়েছি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও গণমাধ্যমসহ বিভিন্নভাবে এই নামগুলো এসেছে। এবং সার্বিকভাবে এই নামগুলো ঘোষণা করলাম। আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে যাদের নাম গণমাধ্যমে বলা হলো তাদের মধ্যে কেউ যদি প্রমাণিত করতে পারে তাদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সত্য নয় এবং ডকুমেন্ট দিতে পারে, আমরা তা যাচাই বাচাই করে দেখবো। এর বাইরে যদি অভিযোগ প্রমাণ করতে না পারে তাহলে তাদেরকে দলীয় পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হবে। ওই সব পদের জায়গায় যোগ্যতা অনুযায়ী বঞ্চিতদের অন্তভূর্ক্ত করা হবে।

ছাত্রলীগ সভাপতি শোভন বলেন, নয় মাস পর আমরা এই কমিটি দিতে সক্ষম হয়েছি। আমাদের কমিটিতে অনেকের নাম এসেছে, যাদের নামে বিভিন্ন রকম সংগঠন বহির্ভূত কাজের অভিযোগ উত্থাপিত হয়েছে। এরকম কিছু নামের তালিকা আমরা পেয়েছি। এই নামগুলো আমাদের সংগঠনের জেনারেল সেক্রেটারি ঘোষণা করলেন। এগুলো আমরা যাচাই-বাছাই করে এগুলো যদি সত্য হয় তাহলে ২৪ ঘন্টার মধ্যে এই পদগুলো শূন্য ঘোষণা করে এই জায়গায় ত্যাগী এবং যোগ্য কর্মী যারা আছেন তাদেরকে মূল্যায়ন করবো।

ঘোষিত কমিটি স্থগিত করবেন কি না এমন প্রশ্নের জবাবে শোভন বলেন, ছাত্রলীগের কমিটি যা আছে সেটাই একমাত্র কমিটি এবং সেটাই বহাল থাকবে। যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আছে তাদের পদগুলো শূণ্য হবে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাস, সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেনসহ ঢাকা মহানগর ছাত্রলীগ উত্তর ও দক্ষিণ শাখার সভাপতি ও সাধাররণ সম্পাদক। তার আগে ৯টার পর থেকে ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনে দেখভালে দায়িত্বশীল চার নেতার সঙ্গে দুই ঘন্টাব্যাপী রুদ্ধদ্বার বৈঠক হয়। বৈঠকে আওয়ামী লীগের যু্গ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম উপস্থিত ছিলেন।

সারাবাংলা/এনআর/ইএইচটি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন