শনিবার ২৫ মে, ২০১৯ ইং , ১১ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৯ রমজান, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

আবর্জনা নিয়ে বিরোধ, কানাডার রাষ্ট্রদূতকে তলব ফিলিপাইনের

মে ১৬, ২০১৯ | ৩:১৮ অপরাহ্ণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

আবর্জনা নিয়ে সৃষ্ট এক বিরোধের জেরে কানাডার রাষ্ট্রদূতকে তলব করেছে ফিলিপাইন। ফিলিপাইনের ম্যানিলা ইন্টারন্যাশনাল কনটেইনার বন্দরে কানাডিয়ান এক প্রতিষ্ঠানের ফেলে যাওয়া আবর্জনা নিয়ে এই বিরোধ সৃষ্টি হয়। খবর দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমসের।

২০১৩ ও ২০১৪ সালে কানাডার একটি প্রতিষ্ঠান রিসাইকেলযোগ্য লেবেল লাগিয়ে ম্যানিলা ইন্টারন্যাশনাল কনটেইনার বন্দরে কয়েক টন আবর্জনা ফেলে যায়। কিন্তু পরবর্তীতে জানা যায় আবর্জনাগুলো রিসাইকেলযোগ্য নয়। এ নিয়ে দুই দেশের মধ্যে তীব্র বিরোধ সৃষ্টি হয়েছে। ওই বিরোধের জেরেই বৃহস্পতিবার (১৬ মে) ফিলিপাইনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ম্যানিলায় নিযুক্ত কানাডার রাষ্ট্রদূতকে তলব করেছেন।

ফিলিপাইনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তেওদোরো লসিন জানিয়েছেন, বন্দর থেকে আবর্জনাগুলো সরিয়ে নেওয়ার জন্য কানাডাকে বুধবার (১৫ মে) পর্যন্ত সময় বেধে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু সময়সীমা পার হয়ে গেলেও আবর্জনাগুলো নিয়ে যায়নি কানাডা।

বিজ্ঞাপন

কানাডা জানিয়েছে, তারা আবর্জনাগুলো ফেরত নেওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে কিন্তু কবে নাগাদ ফেরত নেওয়া হবে সে বিষয়ে কিছু জানায়নি।

লসিন বলেন, কানাডা সময়সীমা অতিক্রম করে ফেলেছে। আমাদের এখন কানাডার সঙ্গে তিক্ত কূটনৈতিক সম্পর্ক বজায় রাখতে হবে। যতদিন না এই আবর্জনা এদেশ থেকে বিদায় নিচ্ছ।

এ বিষয়ে গতমাসে ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো দুতের্তে বলেন, কানাডা যদি তাদের আবর্জনা নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে নিয়ে না যায়, তাহলে আমি নিজে জাহাজে করে তাদের এই আবর্জনা ফিরিয়ে দিয়ে আসবো।

এদিকে, নতুন করে সৃষ্ট উত্তেজনার মধ্যে প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র জানিয়েছেন, এই কানাডার সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করতে পারে ফিলিপাইন।

দুতের্তের মুখপাত্র সালভাদর পানেলো বৃহস্পতিবার বলেন, প্রেসিডেন্টের অবস্থান খুবই পরিষ্কার। আবর্জনা ফিরিয়ে নাও, নয়তো আমাদের সম্পর্ক শেষ।

উল্লেখ্য, সাম্প্রতিক দ্বন্দ্ব নিয়ে কানাডার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও সাড়া মেলেনি।

সারাবাংলা/আরএ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন