রবিবার ২৫ আগস্ট, ২০১৯ ইং , ১০ ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২৩ জিলহজ, ১৪৪০ হিজরি

বিজ্ঞাপন

ঢাকা বোর্ডে গণিত ও ইসলাম শিক্ষায় পুনর্মূল্যায়নের আবেদন বেশি

মে ১৬, ২০১৯ | ২:১৭ অপরাহ্ণ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: এবারের মাধ্যমিক পরীক্ষার ফলাফলে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডে গণিত ও ইসলাম ধর্ম বিষয়ে খাতা পুনর্মূল্যায়নের জন্য সবচেয়ে বেশি আবেদন জমা পড়েছে। বুধবার (১৬ মে) ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান মু. জিয়াউল হক সারাবাংলাকে এই তথ্য নিশ্চিত করেন।

মু. জিয়াউল বলেন, এ বছর গণিত ও ইসলাম ধর্ম পরীক্ষার ফলাফল নিয়ে শিক্ষার্থীরা সবচেয়ে বেশি অসন্তুষ্ট। আমাদের এখানে যারা খাতা পুনর্মূল্যায়নের আবেদন করেছেন তাদের বেশির ভাগ আবেদন জমা হয়েছে এই দুটি বিষয়ে। আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখছি।

তিনি জানান, গণিতের খাতা পুনর্মূল্যায়নের জন্য ঢাকা শিক্ষা বোর্ডে ২২ হাজার ১৫০টি ও ইসলাম ধর্মের খাতা যাচাই এর জন্য আবেদন করা হয়েছে ১৫ হাজারটি। এছাড়া, ইংরেজি প্রথমপত্রে পুনর্মূল্যায়নের জন্য ১২ হাজার ৭০০টি আবেদন জমা পড়েছে।

তবে সব শিক্ষা বোর্ডে পুনর্মূল্যায়নের আবেদন করা শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১ লাখ ৬৫ হাজার ৬৫৮ জন। এরমধ্যে ঢাকা বোর্ডে ৫৮ হাজার ৭০ জন, চট্টগ্রামে ১৯ হাজার ১৮৩ জন, কুমিল্লা বোর্ডে ১৩ হাজার ২২৬ জন, সিলেটে ১০ হাজার ৫৪১ জন, রাজশাহীতে ১৫ হাজার ১৭৩ জন, দিনাজপুরে ১২ হাজার ৫৪০ জন, বরিশালে ৮ হাজার ৪৮০ জন, মাদরাসা বোর্ডে ১১ হাজার ৭৪৫ জন এবং কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে ১৬ হাজার ৭০০ জন শিক্ষার্থী খাতা পুনর্মূল্যায়নের আবেদন করেছে। সবগুলো বোর্ড হিসেব করলে ইংরেজি ও গণিত বিষয়েই সবচেয়ে বেশি পুনর্মূল্যায়নের আবেদন জমা পড়েছে।

বিজ্ঞাপন

এছাড়া, উত্তীর্ণরা একাধিক বিষয়ের ফলাফল নিয়ে অসন্তুষ্ট হওয়ায়, যাচাই করতে চাওয়া উত্তরপত্রের সংখ্যা তিন লাখ ৩৮ হাজার ৬২৯টি ছাড়িয়ে গেছে। এর মধ্যে ঢাকা বোর্ডে সবচেয়ে বেশি ১ লাখ ৪০ হাজার ৯২৩টি উত্তরপত্র যাচাই করার আবেদন জমা পড়েছে। এবছর ১২টি বিষয়ের মধ্যে একজন শিক্ষার্থী সর্বনিম্ন দুটি এবং সর্বোচ্চ পাঁচটি বিষয়ে ফল পুনর্মূল্যায়নের আবেদন করতে পেরেছেন।

মু. জিয়াউল হক জানান, খাতা পুনর্মূল্যায়নের জন্য ঠিকমতো নম্বর দেয়া হয়েছে কি না, প্রাপ্ত নম্বর গণনা, প্রাপ্ত নম্বর, ওএমআর শিটে উত্তোলন, প্রাপ্ত নম্বর অনুযায়ী ওএমআর শিটের বৃত্ত ভরাট করার বিষয়গুলো গুরুত্ব দিয়ে দেখা হবে। এসব বিষয় ঠিক থাকলে তবেই খাতাটি পুনরায় যাচাই করা হবে। ভুল মার্কিংয়ের জন্য কোনো শিক্ষার্থী যেনো ফলাফল বঞ্চিত না হয়, পরীক্ষকদের সে নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, গত ৬ মে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়। ফল প্রকাশের পরদিন থেকে ১৩ মে পর্যন্ত খাতা পুনর্মূল্যায়নের জন্য আবেদন করেন উত্তীর্ণরা। আগামী ২ জুনের মধ্যে খাতা পুনর্মূল্যায়নের ফল প্রকাশ করা হবে।

সারাবাংলা/টিএস/এনএইচ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন