সোমবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১১ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৯ জমাদিউস-সানি ১৪৪১

বিজ্ঞাপন

জেমির অপেক্ষা বাড়ছে, চমক থাকছে জাতীয় দলে

মে ১৭, ২০১৯ | ৯:৩৮ অপরাহ্ণ

।। স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট।।

বিজ্ঞাপন

ঢাকা: সবকিছু ঠিকঠাক। প্রধান কোচ হিসেবে আরও এক বছরের জন্য চূড়ান্ত জেমি ডে। তবে অপেক্ষাটা জেমির ফেরার। সব ঠিকঠাকের মধ্যে একটু ঝড়োও বয়ে গেল সমেত। দলের সবচেয়ে প্রয়োজনের সময়ে ইনজুরি ঝড় লাল-সবুজ শিবিরের রক্ষণে একটু ভয়ের কারণও হতে পারে।

ভয়টা বিশ্বকাপের প্রাক বাছাইপর্ব বলেই। আগামী মাসের ৬ তারিখ ভিয়েনতিয়েনে লাওসের সঙ্গে অ্যাওয়ে ম্যাচ বাংলাদেশের। ফিরতি ম্যাচ ঢাকায় ১১ মে। ভয়টা তাই ঝেঁকে বসতে পারে রক্ষণজুড়েই।

বিজ্ঞাপন

কেননা জাতীয় দলের রক্ষণদুর্গে আঘাত হেনেছে ইনজুরি। তপু বর্মন, টুটুল বাদশা আর আতিকুর রহমান ফাহাদ ইনজুরিতে এখন পুনর্বাসনে। লাওস ম্যাচে তাদের ফেরার কোনও পথ নেই। ছিটকে যাচ্ছেন প্রাক বাছাইপর্বের ম্যাচ থেকে।

ছিটকে যাওয়ার ভয়টা জাতীয় দলেরও। কেননা লাওসের বিপক্ষে না জিতলে নির্বাসনে যেতে পারে বাংলাদেশও। দুই ম্যাচ মিলিয়ে এগিয়ে থেকে বিশ্বকাপের মূল বাছাইপর্ব নিশ্চিত করতে হবে।

তাই দলের রক্ষণ ও পূর্ণ স্কোয়াডে তাদের জায়গায় নতুন না অভিজ্ঞ কাউকে নিবে দল? অন্তত চমক থাকছে এমনটাই আভাস ন্যাশনাল টিমস কমিটির।

ইনজুরির ছিটকে যাওয়ার খেলোয়াড়দের বদলে দলে ঢুকতে পারে পরিচিত তিনটি নাম- মামুনুল ইসলাম মামুন, সাদ উদ্দীন ও আরিফ হোসেন।

বাংলাদেশ দলের সাবেক অধিনায়ক মামুনুল ইসলাম মামুন প্রাথমিক স্কোয়াডে থাকতে পারেন। মাঝে কম্বোডিয়া ম্যাচের প্রাথমিক দলে থাকলেও মূল স্কোয়াডে থাকতে পারেননি। ইনজুরি থেকে ফিরে ঢাকা আবাহনীর হয়ে মাঠে ফেরা সাদ উদ্দীনও ফিরতে পারেন জাতীয় দলে। এর আগেও সাদ এশিয়ান গেমসে লাল-সবুজের প্রতিনিধিত্ব করেছেন গত বছরে। সেই টুর্নামেন্টেই ইনজুরিতে পড়ে বহু মাস পুনর্বাসনে ছিলেন। আরামবাগ ক্রীড়া সংঘের উসাইন বোল্ট খ্যাত আরিফও ইনজুরি সেড়ে মাঠে নেমেছেন। কম্বোডিয়া ম্যাচের স্কোয়াডে থাকা এই ফুটবলার ফিরতে পারেন জাতীয় দলে। তাছাড়া একই কারণে বসুন্ধরা কিংসের ইমন বাবুও ফিরতে পারেন লাল-সবুজ শিবিরে।

তাছাড়া রক্ষণে তপু ও বাদশার বিকল্প চূড়ান্ত করা বেশ ভাবাতে পারে জেমি ডে ও ন্যাশনাল টিমস কমিটিকে। সেই সুযোগ থাকছে নতুন চমকও। এএফসি কাপে অনূর্ধ্ব-২৩ প্রতিনিধিত্ব করা রক্ষণের কেউ সুযোগ পেতে পারেন এবার জাতীয় দলে।

সবকিছু মিলিয়ে জেমি ডে ফিরলেই মূলত বৈঠকে বসবে বাফুফে। বৈঠকেই সবকিছু চূড়ান্ত হবে। আপাতত ২৯ জনের প্রাথমিক লিস্ট করা হয়েছে। চমকও আছে কিছু। চূড়ান্ত স্কোয়াড নিয়ে থাইল্যান্ডে ১০ দিনের ক্যাম্পে ২৪ তারিখ রওনা দিবে বাংলাদেশ দল। থাইল্যান্ডে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলে লাওসের উদ্দেশ্যে রওনা দিবে লাল-সবুজরা। তারপর ঢাকায়। এর মধ্যে অনেক চমক অপেক্ষা করছে।

সারাবাংলা/জেএইচ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন