মঙ্গলবার ২৫ জুন, ২০১৯ ইং , ১১ আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২১ শাওয়াল, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

বিশ্বকাপে ইয়র্কারই বাঁচাবে পেসারদের: ব্রেট লি

মে ২২, ২০১৯ | ২:২৬ অপরাহ্ণ

বিশ্বকাপ ডেস্ক

ইংল্যান্ডের আবহাওয়া সব সময় পেসারদের অনুকূলে। আর ইংলিশ পিচ যে পেসারদের স্বর্গরাজ্য তা বলার অপেক্ষা রাখে না। তবে বর্তমানে ক্রিকেট বদলেছে অনেকাংশে। এখন আর পেসারদের সুইং, গতি আর বাউন্সার দেখে দর্শকরা মুগ্ধ হন না।

ক্রিকেট সমর্থকেরা এখন মোহিত হয়ে আছে ব্যাটসম্যানদের ঝড় ইনিংস দেখার জন্য। প্রতি ওভারেই বাউন্ডারি, ওভার বাউন্ডারির দিকেই আকৃষ্ট তারা। তাই তো পেসারদের স্বর্গরাজ্য ইংল্যান্ডে বিশ্বকাপের আসর বসলেই বিশ্লেষকরা মনে করছেন ৫০০ রানের ইনিংসও দেখা যেতে পারে এবার।

আর এ নিয়ে দুঃশ্চিন্তায় পেস বোলাররা। তবে কি পেস বোলারদের গুরুত্ব কমে যাচ্ছে ক্রিকেটে? অস্ট্রেলিয়ান কিংবদন্তী গতি তারকা ব্রেট লি কথা বলেছেন পেসারদের এই অবস্থা নিয়ে সাথে নিজের দেশের পেসারদের নিয়েও।

লি অজি পেসারদের পরামর্শ দিয়েছেন ব্যাটিং বান্ধব এই পিচের জন্য ইয়র্কার নিয়েই বেশি কাজ করতে হবে তাদের। লাইন লেন্থে বল করলেও ফ্ল্যাট পিচে তা ব্যাটসম্যানের জন্যই সুখকর হবে। যে লেন্থেই বল আসুক না কেন একজন ভাল ব্যাটসম্যান বলের লাইনে গিয়ে নির্দ্বিধায় খেলতে পারবেন।

বিজ্ঞাপন

তাই তো পেসারদের প্রতি লির পরমার্শ, ‘ইয়র্কার পৃথিবীর সব পিচেই কার্যকরী। সঠিক জায়গায় বল ফেলতে পারলে কোনো ব্যাটসম্যানই ইয়র্কার বল খেলতে পারবে না।’

অস্ট্রেলিয়া দলে আছে ২০১৫ বিশ্বকাপের টুর্নামেন্ট সেরা পেসার মিচেল স্টার্ক। সে বিশ্বকাপেই স্টার্কের সুইং আর ইয়র্কারের মনোমুগ্ধকর প্রদর্শনী দেখেছে ক্রিকেট বিশ্ব। আর সেই সাথে এবার যুক্ত হয়েছে প্যাট কামিন্স ও নাথানও।

গেল বিশ্বকাপে ২২ উইকেট নিয়ে টুর্নামেন্টের সেরা ক্রিকেটারের পুরস্কারটা নিজের করে নিয়েছিল অজই গতি তারকা স্টার্ক। তবে সময় পাল্টেছে, পেরিয়ে গেছে চার বছর। ইনজুরির কারণে গত বছরের নভেম্বরের পর থেকে ক্রিকেটের ময়দানে দেখা যায়নি স্টার্ককে।

বিশ্বকাপের জন্য বলিদান দিয়েছিলেন এবারের আইপিএলকেও। পুরোপুরি সুস্থ হওয়া স্বত্ত্বেও নেননি কোন ধরনের ঝুঁকি। বিশ্বকাপের জন্য প্রস্তুতি স্বরূপ ফিটনেস, বোলিং লাইন, লেন্থ নিয়ে কাজ করেছেন বোলিং কোচের সাথে। আর এখন নিজের সেরা ফর্মে ফিরে ব্যাটসম্যানদের মনে ভয় জাগাতে তৈরি এই গতি তারকা।

এ সম্পর্কে স্টার্ক বলেন, ‘চার বছর পেরিয়ে গেছে গত বিশ্বকাপের পর। আমার বয়স বেড়েছে চার বছর। অনেক কিছুই পালটে গেছে এখন ক্রিকেটে। তবে তারপরেও আমি চেষ্টা করবো বিশ্বকাপে নিজের সেরাটা দিয়ে অজিদের জন্য কিছু করতে।’

আর নিজের বোলারদের সম্পর্কে বলতে গিয়ে ক্রিকেট বিশ্বকেই যেন বিশ্বকাপে সফলতা পাওয়ার রহস্য জানিয়ে দিলেন ব্রেট লি। বিশ্বকাপে পেসারদের মূল অস্ত্র তাই যে ইয়র্কার হবে তা বলে অপেক্ষা রাখে না। আর যে দলের পেসাররা যত নিক্ষুত ইয়র্কার দিতে পারদর্শী তারাই তত বেশি সফলতা পাবে।

ইংল্যান্ডের পিচ যেমনই হোক না কেন। আবহাওয়া সব সময়ই পেসারদের অনুকূলে থাকবে। হালকা বৃষ্টি সাথে একটু মৃদু বাতাস পেসারদের বাড়তি সুইং যোগাবে। আর এই সুবিধা নিতে পারলে ব্যাটিং বান্ধব পিচেও বোলারদের ছড়ি ঘোরানো অসম্ভব হবে না।

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন