মঙ্গলবার ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ২ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৭ মুহাররম, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

সংগীতশিল্পী খালিদ হোসেনের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতির শোক

মে ২৩, ২০১৯ | ৩:৪০ পূর্বাহ্ণ

সারাবাংলা ডেস্ক

ঢাকা: একুশে পদকপ্রাপ্ত বরেণ্য নজরুল সংগীতশিল্পী খালিদ হোসেনের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

বিজ্ঞাপন

এক শোকবার্তায় রাষ্ট্রপতি মরহুম খালিদ হোসেন এর আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

এর আগে বুধবার (২২ মে) রাত সোয়া ১০টায় খালিদ হোসেন বার্ধক্যের কাছে হার মেনে ৮৫ বছর বয়সে মারা যান। প্রখ্যাত এই শিল্পীর ছেলে আসিফ হোসেন সারাবাংলাকে এই তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, খালিদ হোসেন দীর্ঘ দিন থেকে হৃদরোগের পাশাপাশি কিডনি রোগসহ নানা জটিলতায় ভুগছিলেন। গত ৪ মে থেকে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) ভর্তি ছিলেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের পরিচালক ডা. উত্তম বড়ুয়ার অধীনে তাকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছিল।

আসিফ আরও জানান, মোহাম্মদপুরে বাসার পাশের মসজিদে ফজরের নামাজের পর তার প্রথম জানাজা হবে। এরপর সকাল ১০ টায় প্রথমে নজরুল ইনস্টিটিউট ও সাড়ে ১০ টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদের সামনে নেওয়া হবে। সেখানে জানাজা শেষে কুষ্টিয়ায় তার গ্রামের বাড়িতে নেওয়া হবে মরদেহ। সেখানেই সমাহিত করা হবে তাকে।

বিজ্ঞাপন

খালিদ হোসেনের জন্ম ১৯৩৫ সালের ৪ ডিসেম্বর। তখন তাঁরা ছিলেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কৃষ্ণনগরে। দেশ বিভাগের পর মা–বাবার সঙ্গে তিনি চলে আসেন কুষ্টিয়ার কোর্টপাড়ায়। ১৯৬৪ সাল থেকে তিনি স্থায়ীভাবে ঢাকায় ছিলেন।

নজরুল গবেষক হিসেবে তিনি ছিলেন প্রসিদ্ধ। নজরুলের বহু ইসলামী গান তার গলায় যুগ যুগ ধরে শুনেছেন মানুষ। তার ছয়টি নজরুল গীতির অ্যালবাম এবং ১২টি ইসলামী গানের অ্যালবাম প্রকাশিত হয়েছে। সঙ্গীতের অবদানের জন্য ২০০০ সালে তিনি বাংলাদেশ সরকার প্রদত্ত সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মান একুশে পদকে ভূষিত হন।

সারাবাংলা/এমএইচ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন