বিজ্ঞাপন

হাইকোর্টকে হাইকোর্ট দেখাচ্ছেন? নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষকে আদালত

May 23, 2019 | 12:17 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্স অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশনের (বিএসটিআই) পরীক্ষায় নিম্নমান প্রমাণিত হওয়ায় নামি-দামি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ৫২ ব্র্যান্ডের পণ্য বাজার থেকে এখনো অপসারণ করতে ব্যর্থ হওয়ায় নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের প্রতি অসন্তোষ জানিয়েছেন হাইকোর্ট।

বিজ্ঞাপন

আদালত বলেন, এত দিনেও আপনারা একটি পণ্যও অপসারণ করতে পারলেন না? কী করেছেন আপনরা? আপনারা কি হাইকোর্টকে হাইকোর্ট দেখাচ্ছেন?

আরও পড়ুন- ৫২ প্রতিষ্ঠানের নিম্ন মানের পণ্য প্রত্যাহারের নির্দেশনা চেয়ে রিট

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের হাইকোর্ট বেঞ্চ এভাবেই অসন্তোষ প্রকাশ করেন।

এসময় আদালত আরও বলেন, আপনারা এত দিনেও আদেশ বাস্তবায়ন করেননি। আমাদের ভদ্রতার একটা লিমিট আছে। ভদ্রতাকে দুর্বলতা মনে করেন?

বিজ্ঞাপন

আদালতে আবেদনের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার শিহাব উদ্দিন খান। আর রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে অংশ নেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোখলেছুর রহমান, নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার মুহাম্মদ ফরিদুল ইসলাম। ভোক্তা অধিকারের পক্ষে ছিলেন কামরুজ্জামান কচি, প্রাণ এগ্রোর পক্ষে ছিলেন এম কে রহমান, এসিআইয়ের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার রোকন উদ্দিন মাহমুদ, সান চিপসের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার তানজীব উল আলম, বাঘাবাড়ী ঘি’র পক্ষে মোমতাজ উদ্দিন আহমদ মেহেদী ও বিএসটিআইয়ের পক্ষে ছিলেন সরকার এম আর হাসান।

এর আগে, বিএসটিআইয়ে পরীক্ষায় নিম্নমান প্রমাণিত হওয়া ওই ৫২ পণ্য জব্দ ও বাজার থেকে তুলে নিয়ে ধ্বংস করতে গত ১২ মে নির্দেশ দিয়েছিলেন আদালত। সেইসঙ্গে এসব পণ্য উৎপাদন বন্ধেরও নির্দেশ দেন। নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ ও ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরকে আদালতের এই নির্দেশ বাস্তবায়ন করতে বলা হয়।

বিজ্ঞাপন

এর আগে বৃহস্পতিবার (৯ মে) কনসাস কনজ্যুমার সোসাইটির পক্ষে হাইকোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার শিহাব উদ্দিন খান জনস্বার্থে এ বিষয়ে একটি রিট দায়ের করেন। তার আগে গত ৬ মে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়। ওই রিটের শুনানি নিয়ে ১২ মে রুল জারি করেন হাইকোর্ট।

বিএসটিআইয়ের ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, পবিত্র রমজান মাস উপলক্ষ্যে খোলা বাজার থেকে ৪০৬টি পণ্যের নমুনা ক্রয় করে বিএসটিআইয়ের ল্যাবে পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ৩১৩টি পরীক্ষার প্রতিবেদন পাওয়া গেছে। যার মাধ্যে ৫২টি পণ্য পরীক্ষায় অকৃতকার্য হয়েছে। ২ মে এক সংবাদ সম্মেলনে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় বিএসটিআইয়ের ওই প্রতিবেদন প্রকাশ করে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এজেডকে/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন