বিজ্ঞাপন

‘ঢাকায় নারী-শিশু নির্যাতন বেশি’

May 23, 2019 | 7:42 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ‘জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি নারী ও শিশু নির্যাতন হয়েছে ঢাকা বিভাগে, সংখ্যার বিচারে ২০৯টি। এছাড়া চট্টগ্রামে ৫৩, বরিশালে ৪৯, রাজশাহীতে ৩৭, খুলনাতে ৩৩ রংপুরে ২৪, ময়মনসিংহে ২০ এবং সিলেটে ১৮টি নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে।’

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানায় পারিবারিক নির্যাতন প্রতিরোধ জোট ‘আমরাই পারি’। ছয়টি জাতীয় পত্রিকায় নারী ও শিশু নির্যাতনের সংবাদ বিশ্লেষণ করে এ তথ্য জানিয়েছে তারা।

প্রসঙ্গত, ‘আমরাই পারি’ বিশ্বের ১৫টি দেশে পরিচালিত একটি কার্যক্রম। নারীদের ওপর নির্যাতন বন্ধে আমরাই পারি কার্যক্রম মানুষের মানসিকতা ও আচরণ পরিবর্তনের জন্য কাজ করে আসছে, পারিবারিক নির্যাতন বন্ধে তারা ৪১টি জেলায় কাজ করছে।

বিজ্ঞাপন

আমরাই পারি’র জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত প্রতিবেদন অনুযায়ী, এসময়ে সারাদেশে ধর্ষণের শিকার হয়েছে ১৭৭ জন। এছাড়া হত্যা ১০৭টি, আত্মহত্যা ২৩টি, যৌন হয়রানি ২৯টি, বাল্যবিবাহ ২৬টি, পারিবারিক নির্যাতন ৪টি, শিশু নির্যাতন ৪টি, এসিড সন্ত্রাসের ঘটনা ৬টি, অপহরণ ৬টি এবং অন্যান্য ঘটনা ৫৬টিসহ মোট ৪৪২টি ঘটনা ঘটেছে। আর ৬৮টি শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এছাড়া সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে ৩৪টি।

এছাড়া, ১১৮টি পারিবারিক নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। এর পাশাপাশি কর্মক্ষেত্রে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে, গণপরিবহনে, পাবলিক এলাকায়, প্রতিবেশি দ্বারা, হোটেলে ইত্যাদিতে প্রতিনিয়ত কোনো না কোনো নারী নির্যাতনের ঘটনা ঘটছে।

বিজ্ঞাপন

প্রতিটি নারী নির্যাতনের ঘটনার কঠোর ও দ্রুত বিচার দাবি করে আমরাই পারি জোটের জাতীয় সমন্বয়কারী জিনাত আরা হক বলেন, ‘নারীকে পিছিয়ে রেখে, বঞ্চিত করে কোনো উন্নয়নই দীর্ঘস্থায়ী হতে পারে না। শুধুমাত্র কঠোর শাস্তিই পারে নারী নির্যাতন কমিয়ে আনতে।’ এসময় তিনি নারীদের সাবলম্বী হওয়ার ও নির্যাতনের বিরুদ্ধে আওয়াজ তোলার প্রতিও গুরুত্ব আরোপ করেন।

সারাবাংলা/জেএ/এমও

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন