মঙ্গলবার ২৩ জুলাই, ২০১৯ ইং , ৮ শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৯ জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

বাজেটের আকার বাড়লেও সংক্ষিপ্ত হচ্ছে বক্তৃতা

মে ২৭, ২০১৯ | ১১:১২ অপরাহ্ণ

গোলাম সামদানী, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: আগামী ১৩ জুন জাতীয় সংসদে ২০১৯-২০ অর্থবছরের জাতীয় বাজেট পেশ করা হবে। বাজেট তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছে অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগ ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ড। বরাবরের মতো এবারও বাজেটের আকার বাড়ছে। তবে বাজেটের আকার বাড়লেও সংক্ষিপ্ত হচ্ছে বাজেট বক্তৃতা। অর্থাৎ প্রচলিত ধারার প্রায় দেড় শতাধিক পৃষ্ঠার বাজেট এবার থাকছে না। বাজেট বক্তৃতাও অনূর্ধ্ব ১০০ পৃষ্ঠার মধ্যে সীমিত রাখার প্রক্রিয়া চলছে।

অর্থ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, অর্থমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী, এবারের বাজেট বক্তৃতা হবে ‘স্মার্ট’। অর্থাৎ ‘টু দ্য পয়েন্ট’। তবে ‘টু দ্য পয়েন্ট’ হলেও বাজেট যাতে সাধারণ জনগণের কাছে বোধগম্য হয় সেভাবেই উপস্থাপন করা হবে বাজেট বক্তৃতা। এ পরিপ্রেক্ষিতে এবারের বাজেট বক্তৃতা অনূর্ধ্ব ১০০ পৃষ্ঠার মধ্যে সীমিত রাখার প্রক্রিয়া চলছে।

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, ‘দীর্ঘ বাজেট বক্তৃতার পরিবর্তে এবারের বাজেট হবে সংক্ষিপ্ত আকারে স্মার্ট বাজেট। সঙ্গত কারণেই বাজেটের আকার অনেক বাড়লেও বাজেট বক্তব্য কমে আসবে। কয়েকটি দেশের বাজেটের উদাহরণও দিয়ে তিনি বলেন, পৃথিবীর অধিকাংশ দেশের বাজেট বক্তব্য অনেক ছোট আকারের হয়ে থাকে। সেই ধারায় বাংলাদেশের বাজেট বক্তব্য দেওয়া সম্ভব।’

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘এবারের বাজেট ‍শুধু একবছরের জন্য হবে না। এই বাজেটে ২০৪১ সাল পর্যন্ত করণীয় বিষয়ে দিক নির্দেশনা দেওয়া থাকবে। ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটের নতুনত্ব হলো এটি হবে একটি সহজ বাজেট। যাদের জন্য বাজেট তারা যাতে বাজেটটি সহজেই বুঝতে পারেন।’

বিজ্ঞাপন

অর্থমন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, এবারের বাজেটে উন্নয়নের বিভিন্ন চিত্র তুলে ধরা হলেও বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের পরিসংখ্যান চিত্র কম উপস্থাপন করা হবে। এই চিত্রগুলো পৃথক পুস্তিকার অভ্যন্তরে স্থান পাবে বলে এখন পর্যন্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সার্বিকভাবে এবার নতুন বাজেটের আকার হতে পারে ৫ লাখ ২৫ হাজার কোটি টাকা। মধ্য মেয়াদী সামষ্টিক অর্থনৈতিক কাঠামোর হিসাব অনুযায়ী, আগামী বাজেটের মোট আকার ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকা নির্ধারণের প্রস্তাব করা হয়েছিল। চলতি অর্থবছরের মূল বাজেটের আকার হচ্ছে ৪ লাখ ৬৪ হাজার ৫৭৩ কোটি টাকা। সে হিসাবে নতুন বাজেটের আকার বাড়ছে ৬০ হাজার ৪২৭ কোটি টাকা। কিন্তু সংশোধিত বাজেটে মূল বাজেটের আকার থেকে প্রায় ২১ হাজার ৯০০ কোটি টাকা কাটছাঁট করা হতে পারে বলে অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগ সূত্রে জানা যায়। এ প্রেক্ষিতে চলতি অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটের আকার দাঁড়াবে ৪ লাখ ৪২ হাজার ৬৭৩ কোটি টাকা। সংশোধিত বাজেটের আকারের সঙ্গে তুলনা করলে আসন্ন বাজেটের প্রকৃত আকার বাড়বে ৮২ হাজার ৩২৭ কোটি টাকা।

এবার বাজেটের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য বিষয় হচ্ছে তিন স্তরের ভ্যাট হার ঘোষণা। ভ্যাটের হার হবে ৫, ৭ ও ১০ শতাংশ। বাজেট ঘোষণার দিন থেকেই নতুন ভ্যাট আইন কার্যকর করা হবে। এছাড়া করপোরেট কর কমানো, কৃষকদের জন্য শস্য বিমা চালু, সামাজিক নিরাপত্তা খাতের আওতা বাড়ানোর কথা থাকবে বাজটে।

সারাবাংলা/জিএস/এমআই

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন