সোমবার ১৮ নভেম্বর, ২০১৯ ইং , ৪ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২০ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

কবে হবে ৩৮তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষার ফল, জানে না কেউ!

মে ২৯, ২০১৯ | ১০:৪৯ পূর্বাহ্ণ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ২০১৮ সালের আগস্ট মাসে অনুষ্ঠিত হয়েছিল ৩৮তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষা। এরপর ১০ মাস পেরিয়ে গেলেও ফল প্রকাশ করতে পারেনি সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)। এমনকি কবে নাগাদ ফল প্রকাশ করা হবে, সেটিও নিশ্চিত করে বলতে পারছেন না পিএসসি চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ সাদিক।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (২৮ মে) পিএসসি চেয়ারম্যান সারাবাংলাকে বলেন, ‘প্রথমবারের মতো ৩৮তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষার খাতা আমরা দু’জন পরীক্ষকের দ্বারা মূল্যায়ন করেছি। রোজার পর কিছু কিছু খাতা তৃতীয় পরীক্ষকের মাধ্যমে মূল্যায়ন করা হবে। ফলে এই ফল কবে প্রকাশ করা হবে, সেটি এখনই নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না।’

৩৭তম বিসিএস থেকে নন ক্যাডার নিয়োগ শুরু করায় এবং ৩৯তম বিশেষ বিসিএসের চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশ করায় ৩৮তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষার ফল পিছিয়ে গেছে বলে জানান সাদিক। এজন্য চাকরিপ্রত্যাশীদের ‘সবুর করার’ পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

পিএসসি চেয়ারম্যান বলেন, ‘ভালো কিছু করতে একটু সময় লাগেই। চাকরিপ্রত্যাশীদের এটা বুঝতে হবে। আমরা চাচ্ছি, খাতা মূল্যায়ন পদ্ধতি নিখুঁত হোক। প্রতিটি খাতা চুলচেরা বিশ্লেষণ করা হচ্ছে।’

বিজ্ঞাপন

আগামী দুই মাসের মধ্যে ফল প্রকাশ হবে কি না, এমন প্রশ্নে মোহাম্মদ সাদিক বলেন, ‘এটা হয়তো সম্ভব হবে না। আবার ঈদের পর সম্ভব হয়ে যেতেও পারে। তাই আমি নিশ্চয়তা দিচ্ছি না। তবে এখন পর্যন্ত তৃতীয় পরীক্ষকের কাছে খাতা দেওয়া হয়নি। সেটি ঈদের আগেই বুঝিয়ে দেওয়া হবে।’

পিএসসি সূত্র জানায়, ৩৮তম বিসিএসের মাধ্যমে জনপ্রশাসনে ২ হাজার ২৪ জন ক্যাডার কর্মকর্তা নিয়োগ করা হবে। প্রশাসন ক্যাডারের ৩০০, পুলিশ ক্যাডারের ১০০টি পদসহ ৩৮তম বিসিএসে সাধারণ ক্যাডারে মোট ৫২০টি, কারিগরি ও পেশাগত ক্যাডারে ৫৪৯টি এবং শিক্ষা ক্যাডারে ৯৫৫টি পদ থাকছে।

এদিকে, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এরই মধ্যে ২ হাজার ১৩৫টি শূন্য পদে নিয়োগের চাহিদা দেওয়া হয়েছে। সে লক্ষ্যে ৪১তম বিসিএসের প্রজ্ঞাপন আগস্ট ও সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যেই প্রকাশের চেষ্টা করা হবে বলে জানিয়েছেন পিএসসি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাদিক।

এছাড়া ৪০তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষার ফল প্রকাশ প্রসঙ্গে পিএসসির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাদিক জানান, দু’মাসের মধ্যেই ফল প্রকাশ করার জন্য সব রকমের চেষ্টা করছে কমিশন।

পিএসসি সূত্র জানায়, ২০২০ সালের জানুয়ারি থেকে ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যে প্রিলিমিনারি পরীক্ষা নেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। ৪১তম বিসিএস থেকে প্রশাসন ক্যাডারে ৩২৩ জন, পররাষ্ট্র ক্যাডারে ২৫ জন এবং পুলিশ ক্যাডারে সহকারী পুলিশ সুপার পদে ১০০ জন, শুল্ক ও আবগারিতে ২৩ জন, কর ক্যাডারে ৬০ জন, আনসারে ২৩ জন, নিরীক্ষা ও হিসাব ক্যাডারের ২৫ জন, সমবায় ক্যাডারের ৮ জন, পরিসংখ্যান কর্মকর্তা পদে ১২ জন, তথ্য ক্যাডারে ৪৭ জন, বিসিএস কৃষি ক্যাডারের ১৮৯ জন, বাণিজ্য ক্যাডারের সহকারী নিয়ন্ত্রকের ৪ জন, স্বাস্থ্য ক্যাডারের সহকারী সার্জন, ডেন্টাল সার্জনের ১৪০ জন এবং সাধারণ শিক্ষায় ৮৯২ জনকে নিয়োগ দিতে সুপারিশ করার কথা বলা হয়েছে।

সারাবাংলা/টিএস/এমও

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন