রবিবার ১৬ জুন, ২০১৯ ইং , ২ আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১২ শাওয়াল, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

ঈদযাত্রায় বৃষ্টির বাগড়া

জুন ২, ২০১৯ | ১২:২৫ অপরাহ্ণ

সিরাজুম মুনিরা, সিনিয়র নিউজরুম এডিটর

দিনটা সরকারি ছুটির, তার ওপর ভোর হতে না হতেই হয়ে গেছে এক পশলা বৃষ্টি। সকালটাও ছিল দারুন নরম। এমন সকালে যারা বাড়ি থেকে বের হয়েছেন তারা দেখেছেন বৃষ্টিভেজা শহরের চমৎকার রূপটা।

রোববার (২ জুন) সকাল পেরোতেই আকাশ ছেয়েছে কালো মেঘে। তারপর সেই মেঘ নেমেছে ঝুম বৃষ্টি হয়ে। এমন দিনে যারা ঈদযাত্রায় বেরিয়েছেন তারা পড়েছেন কিছুটা মুশকিলে। এক আকাশ বৃষ্টি মাথায় করে বাক্স পেটরা নিয়ে তাদের ছুটতে হচ্ছে বাস টার্মিনাল, ট্রেন স্টেশন, লঞ্চ টার্মিনাল কিংবা বিমান বন্দরের দিকে।

অবশ্য ঈদযাত্রায় যে বৃষ্টি বাগড়া দিতে পারে সে আভাস বেশ আগেই দিয়ে রেখেছিল আবহাওয়া অধিদফতর।

আবহাওয়াবিদ ওমর ফারুক সারাবাংলাকে জানান, আরও কিছু দিন থাকবে বৃষ্টি। ধারণা করা হচ্ছে ৭ জুন পর্যন্ত আবহাওয়ার এই অবস্থাই থাকবে।

বিজ্ঞাপন

অর্থাৎ এবছর রমজানের ঈদটা দেশের বেশিরভাগ মানুষকেই বৃষ্টি মাথায় নিয়েই পার করতে হবে।

সদরঘাট থেকে ৪৩ রুটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ

ওমর ফারুক জানান, রোববার সকাল ৬টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় ৪৬ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। এই সময়ে কিশোরগঞ্জের নিকলিতে ৪৫, ময়মনসিংহে ৫৭, নেত্রকোনায় ৩০, সিলেটের শ্রীমঙ্গলে ১৮ ও  রংপুরে ২২ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।

দেশের সমুদ্রবন্দরগুলোতে কোনো সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা না হলেও উত্তরাঞ্চল ছাড়া অন্যান্য নদীবন্দরে দুই নম্বর হুঁশিয়ারী সংকেত দেখাতে বলেছে আবহাওয়া অধিদফতর। সংকেতের কারণে এরইমধ্যে নৌপথের অনেক রুটেই যান চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, রোববার বেলা ১১টা থেকে পরবর্তী ১২ ঘণ্টার মধ্যে রাজশাহী, পাবনা, বগুড়া, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, ঢাকা, যশোর, কুষ্টিয়া, মাদারীপুর, বরিশাল, পটুয়াখালী, কুমিল্লা, নোয়াখালী ও চট্টগ্রাম অঞ্চলের উপর দিয়ে দমকা ও ঝড়ো হাওয়াসহ বজ্রবৃষ্টি হতে পারে।

এর মানে হলো, এবার ঈদটা কাটাতে হবে বৃষ্টি-কাদার মধ্যে। তাই আগে থেকেই সাবধান থাকা ভালো। মানে বৃষ্টি হবে এটা ধরে রেখেই সফরের পরিকল্পনা করুন, পোশাক নির্বাচন করুন এবং ঘোরাঘুরির পরিকল্পনা করুন। তাহলে ভোগান্তিটা কিছুটা হলেও কম হবে।

সারাবাংলা/এসএমএন

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন