শনিবার ১৭ আগস্ট, ২০১৯ ইং , ২ ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৫ জিলহজ্জ, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশে বিনিয়োগের সম্ভাবনা নিয়ে ইতালিতে সেমিনার

জুন ৩, ২০১৯ | ৬:২৮ অপরাহ্ণ

সারাবাংলা ডেস্ক

বাংলাদেশের উন্নয়ন চিত্র, বিনিয়োগ পরিবেশ ও সম্ভাবনা নিয়ে ইতালির বাংলাদেশ দূতাবাস সেমিনারের আয়োজন করেছে। গত ৩১ মে রোমের নেপলস চেম্বার ভবনে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন ইতালিতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আবদুস সোবহান সিকদার। আরও ছিলেন নেপসল চেম্বার অব কমার্সের নেতৃবৃন্দসহ কাম্পানিয়া অঞ্চলের প্রায় ৩০ জন ইতালিয়ান ব্যবসায়ী। সোমবার (০৩ জুন) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে দূতাবাস এতথ্য জানায়।

সেমিনারে রাষ্ট্রদূত আবদুস সোবহান সিকদার বলেন, দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য বৃদ্ধি ও বিনিয়োগের উত্তম ক্ষেত্র হিসেবে বাংলাদেশ বিবেচিত হতে পারে। কারণ বাংলাদেশে রয়েছে স্থিতিশীল রাজনৈতিক অবস্থা, উৎপাদিত পণ্যের বিশাল বাজার, উৎপাদনের জন্য নিম্ন শ্রম মজুরি এবং সর্বোপরি সরকারের পক্ষ থেকে বিভিন্ন ধরনের বিনিয়োগ প্রণোদনা প্যাকেজ।

রাষ্ট্রদূত প্রথমে বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ দেশে রূপান্তরিত করার লক্ষ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন-২০২১ এবং ভিশন-২০৪১ সম্পর্কে ধারণা দেন। এছাড়া, বিগত দশ বছরে বাংলাদেশের ধারাবাহিক অর্থনৈতিক উন্নয়নের চিত্র ব্যবসায়ীদের কাছে তুলে ধরেন।

আবদুস সোবহান সিকদার আরও বলেন, বাংলাদেশ এবং ইতালির মধ্যে একটি চমৎকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক বিদ্যমান রয়েছে যার ফলে দু’দেশের বাণিজ্য ক্রমবর্ধমান হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। দু’দেশের এ সম্পর্কের ক্ষেত্রে ব্যবসায়ীদের অনেক ভূমিকা রয়েছে এবং এ সম্পর্ককে আরও শক্তিশালী করতে বাংলাদেশে বিনিয়োগ বাড়ানোর জন্য আহ্বান জানান রাষ্ট্রদূত।

বিজ্ঞাপন

সেমিনারে ইকোনমিক কাউন্সিলর মানস মিত্র ‘বাংলাদেশ: ডেস্টিনেশন নেক্সট’ শিরোনামে একটি পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশন দেন। প্রেজেন্টেশনে বাংলাদেশের বাণিজ্য এবং বিনিয়োগ এর বর্তমান অবস্থান এবং ইতালির সঙ্গে বিদ্যমান দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য সম্পর্কের বিষয়ে আলোকপাত করেন।

সবশেষে হাই-টেক পার্ক ও নির্ধারিত অর্থনৈতিক অঞ্চলে বরাদ্দ নিয়ে বিনিয়োগ করার সুযোগসহ বিদেশি বিনিয়োগকারীদের জন্য বাংলাদেশ সরকার প্রদত্ত বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা এবং বিনিয়োগের সম্ভাব্য ক্ষেত্র তুলে ধরা হয়। বিনিয়োগের সম্ভাব্য ক্ষেত্র হিসেবে কৃষি প্রক্রিয়াজাত পণ্য, ফার্মাসিউটিক্যাল, তথ্যপ্রযুক্তি, চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য, লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং, সিরামিকস, নবায়নযোগ্য শক্তি, ব্ল-ইকোনমি এবং ট্যুরিজম বিষয়ে প্রেজেন্টেশনে বিস্তারিত তুলা ধরা হয়।

এরপর প্রশ্ন-উত্তর ও মুক্ত আলোচনা পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। বিপুল আগ্রহ ও স্বতঃস্ফূর্তভাবে প্রশ্ন-উত্তর ও মুক্ত আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন উপস্থিত ব্যবসায়ীরা। ব্যবসায়ীগণ দূতাবাসের এ উদ্যোগকে সাধুবাদ জানান এবং ইতালি ও বাংলাদেশের মধ্যে বাণিজ্যিক সম্পর্ক বৃদ্ধির ক্ষেত্রে এ ধরনের উদ্যোগ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আশা প্রকাশ করেন।

সারাবাংলা/এনএইচ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন