শুক্রবার ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ৫ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২০ মুহাররম, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

৩ ব্যাংক থেকে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার তথ্য পেয়েছে গোয়েন্দারা

জুন ১১, ২০১৯ | ১২:৩২ অপরাহ্ণ

উজ্জল জিসান, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ডাচবাংলা ব্যাংকের ৯টি এটিএম বুথ থেকে টাকা লুটের পর হ্যাকার চক্রটি বেসরকারি আরও তিন ব্যাংক থেকে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে ধারণা করছে গোয়েন্দারা। ব্যাংক তিনটি হলো- প্রাইম ব্যাংক, এনসিসি ব্যাংক ও ব্র্যাক ব্যাংক।

বিজ্ঞাপন

সোমবার (১০ জুন) বিকেলে ঢাকা মহানগর গোয়ন্দা পুলিশের তদন্তসংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা সারাবাংলাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গোয়েন্দা কর্মকর্তারা জানান, ডাচবাংলা ব্যাংকের বুথ থেকে টাকা তুলতে গিয়ে ইউক্রেনের ৭ হ্যাকারের ৬ জন ডিবির কাছে ধরা পড়লেও বাংলাদেশে এখনও হ্যাকারদের ২০-২৫ জনের আরও একটি গ্রুপ অবস্থান করে থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে ৬ হ্যাকার ধরা পড়ার আগেই নতুন তিনটি ব্যাংকের বুথ থেকে টাকা উত্তোলন করে নেয় নিয়েছে তারা। কিন্তুওইসব টাকা কোথায় কিভাবে আছে, নাকি বিদেশি মুদ্রায় রূপান্তরিত হয়ে পাচার হয়েছে তা এখনও জানা যায়নি।

এদিকে নতুন করে তিন ব্যাংকের টাকা খোয়া যাওয়ার ব্যাপারে ব্যাংকগুলোর পক্ষ থেকে সংশ্লিষ্ট কেউ অভিযোগ করেনি। এমনকি টাকা হাতিয়ে নেওয়া হয়েছে এরকমটা জানিয়ে সহযোগিতা চাওয়া হলেও কেউ এগিয়ে আসছে না। গোয়েন্দাদের ধারণা, সুনাম নষ্ট ও গ্রাহকদের মধ্যে ভীতি সঞ্চার হতে পারে ভেবে হয়তো ব্যাংকগুলো এগিয়ে আসছে না। তবে দেশের বৃহৎ স্বার্থে সকলকে এগিয়ে আসা উচিত বলে মনে করছেন তদন্ত কর্মকর্তারা।

টাকা খোয়া যাওয়া ৩ ব্যাংকের সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে সারাবাংলার পক্ষ থেকে সোমবার (১০জুন) যোগাযোগ করা হলেও কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

বিজ্ঞাপন

অন্যদিকে ব্যাংকিং খাতকে সাইবার হামলা থেকে ঝুঁকিমুক্ত করতে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের কার্যালয়ে সোমবার দিনভর রুদ্ধদ্বার বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৈঠকে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট), ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি), আইটি এক্সপার্ট, সংশ্লিষ্ট ব্যাংকগুলোর আইটি এক্সপার্ট, ডিবি, সিআইডি, সাইবার ইউনিটসহ বিভিন্ন পর্যায়ের ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন এমন একজন আইটি বিশেষজ্ঞ নাম প্রকাশ না করার শর্তে সারাবাংলাকে বলেন, ‘বৈঠকে ব্যাংকগুলোর আইটি বিভাগকে আরও বেশি শক্তিশালী করার কথা বলা হয়। এছাড়া সম্ভাব্য সাইবার ঝুকি মোকাবেলায় আইটি বিশেষজ্ঞদের দিয়ে কাজ করানোর পাশাপাশি নতুন নতুন সফটওয়্যার ব্যবহারের ওপর গুরুত্ব বাড়াতে পরামর্শ দেওয়া হয়।’

গত ৩০ মে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর দিয়ে ইউক্রেনের সাত হ্যাকার ঢাকায় আসে। ঢাকায় ঢুকেই তারা এটিএম বুথগুলোতে হানা দেয় এবং ১৫ থেকে ১৬ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়। ১ জুন খিলগাঁও তালতলা এলাকায় ডাচবাংলা ব্যাংকের এটিএম বুথ থেকে রাত আটটার দিকে টাকা তুলতে গিয়ে ধরা পড়ে একজন। আরেকজন পালিয়ে গেলেও ওই রাতেই পান্থপথের অলিও হোটেল থেকে ৫ জনকে আটক করে গোয়েন্দা পুলিশ। ইউক্রেনের ছয় নাগরিককে আদালত রিমান্ডে দিলেও দোভাষী না থাকায় এখনও তাদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেনি ডিবি। তবে মঙ্গলবার তাদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরুর কথা রয়েছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি পূর্ব) অতিরিক্ত উপ-কমিশনার শাহিদুর রহমান বলেন, ‘ইউক্রেনের হ্যাকার চক্রটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার পর ব্যাংকিং খাতে ভয়াবহ অশনি সংকেতের আশঙ্কা করা হচ্ছে। যদিও হ্যাকাররা শুরুতেই গ্রেফতার হওয়ায় বিষয়টা নিয়ে ভয় একটু কমেছে। তবে অচিরেই করণীয় ঠিক করতে সম্ভাব্য সব পদক্ষেপ নেওয়া হবে।’

সারাবাংলা/ইউজে/পিটিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন