মঙ্গলবার ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ২ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৭ মুহাররম, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

সহকারী রেজিস্ট্রারের ‘ধর্মানুভূতিতে আঘাত’, চবি কর্মচারী বরখাস্ত

জুন ১২, ২০১৯ | ৪:০৭ অপরাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম ব্যুরো: ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় কারাগারে নেওয়ার পর চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) তৃতীয় শ্রেণির কর্মচারী নিবারণ বড়ুয়াকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

বিজ্ঞাপন

বুধবার (১২ জুন) চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার কে এম নুর আহমদের স্বাক্ষরিত অফিস আদেশে তাকে ‘১১ জুন থেকে পুনরাদেশ না দেওয়া পর্যন্ত’ সাময়িক বরখাস্তের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। আদেশে চবি কর্মচারী (দক্ষতা ও শৃঙ্খলা) সংবিধির ১৫(এ) ধারায় নিবারণের বিরুদ্ধে এই পদক্ষেপের কথা বলা হয়েছে।

ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার কে এম নুর আহমদ সারাবাংলাকে বলেন, ‘যেহেতু তার (নিবারণ) বিরুদ্ধ মামলা দায়ের হয়েছে এবং সে জেলে আছে, নিয়ম অনুযায়ী তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। তবে বরখাস্তকালীন অবস্থায় সে নিয়মিত জীবিকা ভাতা পাবে।’

চট্টগ্রামের হাটহাজারী থানায় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) আইনে করা মামলায় গত ১০ জুন নিবারণ বড়ুয়াকে গ্রেফতার করা হয়। চবির সহকারী রেজিস্ট্রার মো. মশিউর রহমান বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে- গত ২৯ মে বিকেলে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর হেলাল উদ্দিন ও লিটন মিত্র এবং কর্মচারী সমিতির সভাপতি আনোয়ার হোসেন বিশ্ববিদ্যালয় ক্লাবে অবস্থান করছিলেন। এসময় আনোয়ার হোসেনের মোবাইলে ফেসবুকে গিয়ে দেখা যায় নিবারণ বড়ুয়া তার টাইমলাইনে ধর্মীয় অবমাননাকারী একটি পোস্ট দিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

নিবারণ বড়ুয়ার ওই পোস্ট ধর্মপ্রাণ মুসলমান হিসেবে বাদীকে আঘাত করেছে এবং গোটা বিশ্বের মুসলিম সমাজের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হেনেছে বলে এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে।

গত ১০ জুন গ্রেফতারের পর ওইদিনই আদালতে হাজির করে নিবারণ বড়ুয়াকে কারাগারে পাঠানো হয়।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী নিবারণ বড়ুয়া সাংবাদিকতা পেশায় জড়িত ছিলেন। পরে তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাব নিয়ামক অফিসের ঊর্ধ্বতন সহকারী পদে যোগ দেন।

সারাবাংলা/আরডি/এমআই

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন