মঙ্গলবার ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ২ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৭ মুহাররম, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

এশিয়ার সেরা টুর্নামেন্টের চার চ্যালেঞ্জের সামনে বাংলাদেশ

জুন ১২, ২০১৯ | ১০:০৫ অপরাহ্ণ

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট

বিশ্বকাপ ফুটবলের মূল বাছাইপর্ব নিশ্চিত করে আরও চ্যালেঞ্জ এসেছে বাংলাদেশের সামনে। সেপ্টেম্বর থেকে দ্বিতীয় পর্বের লড়াইয়ে নেমে পড়তে হবে জামাল-রবিউলদের। সঙ্গে এশিয়ার সেরা টুর্নামেন্টের আরও তিনটি চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে চলেছে বাংলাদেশের যুবারা।

বিজ্ঞাপন

শুরু করা যাক এএফসি কাপ অনূর্ধ্ব-১৬ পুরুষ চ্যাম্পিয়নশিপ দিয়ে। দেশের ফুটবল সমর্থকদের মনে আছে নিশ্চয়ই। কাতারকে ২-০ গোল ব্যবধানে হারিয়েছিল বাংলাদেশের যুবারা। সেটা এএফসি কাপের অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপ ছিল। দুই বছর পর সেই কাতারকেই পেয়েছে বাংলাদেশ।

যেখানে বাংলাদেশের যুবাদের প্রতিপক্ষ স্বাগতিক কাতার, ইয়েমেন ও ভুটান। চলতি বছর টুর্নামেন্টটি ১৪ হতে ২২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কাতারে অনুষ্ঠিত হবে।

অন্যদিকে এএফসির অনূর্ধ্ব-১৯ পুরুষ চ্যাম্পিয়নশিপ। বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ ফুটবল দল লড়াই করবে ‘ই’ গ্রুপে থাকা জর্ডান, বাহরাইন ও ভুটানের বিপক্ষে। প্রতিযোগিতাটি এ বছরের ২ হতে ১০ নভেম্বর পর্যন্ত বাহরাইনে অনুষ্ঠিত হবে।

এই দুই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করবে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের একাডেমির ফুটবলাররা। সেখানে অনূর্ধ্ব-১৫ সাফ চ্যাম্পিয়নরা অবস্থান করছে। সঙ্গে সারাদেশ থেকে বাছাইকৃত অনূর্ধ্ব-১৮ পর্যায়ের ফুটবলাররা আছে। সব মিলে দুই বয়সের ৬০ ফুটবলার একাডেমিতে অনুশীলনে আছে। সম্প্রতি তাদের কোচিংয়ে জন্য তিন ব্রিটিশ কোচ নিয়োগ দেয়া হয়েছে। তারা কাজও শুরু করে দিয়েছেন বলে জানা যায়।

বিজ্ঞাপন

তাছাড়া সেপ্টেম্বরে থাইল্যান্ডে বাংলাদেশের মেয়েদের সামনে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপের চ্যালেঞ্জ তো আছেই। ৮ দলের মধ্যে চূড়ান্ত দুই দলই টিকিট পাবে ভারতে ২০২০ সালের বিশ্বকাপে। এই টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ আয়োজক থাইল্যান্ড, জাপান ও অস্ট্রেলিয়া।

এর আগেও ২০১৭ সালেও এএফসির চূড়ান্ত পর্ব বসেছিল থাইল্যান্ডে। যা ছিল বিশ্বকাপের এশিয়া অঞ্চলেরও চূড়ান্ত বাছাই। চ্যাম্পিয়ন উত্তর কোরিয়া, রানার্সআপ দক্ষিণ কোরিয়া ও তৃতীয় জাপান উঠেছিল উরুগুয়েতে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে। ওই আসরে খেলেছিল বাংলাদেশের মেয়েরা। ‘বি’ গ্রুপে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ছিল উত্তর কোরিয়া, জাপান ও অস্ট্রেলিয়া। বাংলাদেশ প্রথম ম্যাচে ৯-০ গোলে হেরেছিল উত্তর কোরিয়ার কাছে। দ্বিতীয় ম্যাচে জাপানের কাছে লাল-সবুজ জার্সিধারীরা হেরেছিল ৩-০ গোলে। তবে বাংলাদেশের মেয়েরা চমক দেখিয়েছিল শেষ ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে। তীব্র লড়াই করে হেরেছিল ৩-২ গোলে।

এবারও ২০২০ সালে অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপের এশিয়ান অঞ্চলের চূড়ান্ত বাছাইপর্ব। এখান থেকে দুটি দল বিশ্বকাপে পা রাখবে। বঙ্গমাতা গোল্ড কাপের পর মেয়েরা এখন এই চ্যালেঞ্জকে সামনে রেখে ঘাম ঝরিয়ে যাচ্ছে। তাদের দেখভালের দায়িত্বে আছেন কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন।

তাছাড়া বাংলাদেশ সিনিয়র ফুটবল দলের এএফসি এশিয়ান কাপ-২০২৩ বাছাইপর্ব তো আছে। এইতো কালই লাওস বাধা টপকে দ্বিতীয় পর্বে পা রেখেছে বাংলাদেশ। সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হবে এশিয়ার ৪০ দলের লড়াই। আগামী ১৭ জুলাই প্রতিপক্ষ নির্ধারিত হবে। ড্র অনুষ্ঠানে জানা যাবে বাংলাদেশ কাদের পাচ্ছে এবার।

সারাবাংলা/জেএইচ/এমআরপি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন