বৃহস্পতিবার ২০ জুন, ২০১৯ ইং , ৬ আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৬ শাওয়াল, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

টনটনে টাইগারদের ছুটির আমেজ

জুন ১৩, ২০১৯ | ৯:১৯ পূর্বাহ্ণ

বিজ্ঞাপন

ব্রিস্টল থেকে বাসে রওনা হয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল টনটন টিম হোটেলে পৌঁছেছে বুধবার দুপুর দেড়টায়। পরের ম্যাচ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ১৭ জুন। প্রায় পাঁচ দিনের বিরতি। দলকে চাঙ্গা করতে তাই দুই দিনের ছুটি দেওয়া হয়েছে। ফলে অনুশীলনের ব্যস্ততা ছিল না। ছিল না ব্যাটে-বলে ঝালিয়ে নেওয়ার তাড়া। সবারই সময় কেটেছে শুয়ে বসে।

অবশ্য সবাই বললে ভুল হবে। সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবাল ছুটি কাটাচ্ছেন নিজেদের মতো করে অন্য কোথাও। মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও মোহাম্মদ মিঠুন ব্রিস্টল থেকে গিয়েছিলেন লন্ডনে। যদিও রাতেই হোটেলে দলের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন।

বুধবার (১২ জুন) সন্ধ্যায় টনটনের উপকণ্ঠে দাঁড়িয়ে হোটেল হলিডে ইনে গিয়ে দেখি বাংলোদেশ দলের জার্সি গায়ে দু’জন সমর্থক অভ্যর্থনা কক্ষে বসে। মাশরাফিদের সঙ্গে ছবি তুলবেন বলে পাশের শহর ব্রিজওয়াটার থেকে এসেছেন। কিন্তু কখন তারা কক্ষ থেকে বেরিয়ে আসবেন সেটা জানেন না। তাই বসে আছেন তো, আছেনই। এভাবে নাকি তিন ঘণ্টা কেটেছে।

বিজ্ঞাপন

আমাদের দেখে আশান্বিত হয়ে জানতে চাইলেন,‘ভাই, প্লেয়াররা কখন বের হবে?’ যেহেতু টিম হোটেল এবং আসরটি আইসিসির তাই ক্রিকেটারদের স্বার্থের কথা ভেবে বাধ্য হয়েই উত্তর দিই, ‘জানি না।’

কিছুটা হতাশ হয়ে নিজের আসনে ফিরে যেতে হয় সেই সমর্থককে।

রুবেল

 

কাকতালীয়ভাবে মিনিট পাঁচেক পরেই বেশ কেতাদুরস্ত হয়ে বেরিয়ে এলেন রুবেল হোসেন। অভ্যর্থনায় কী যেন কাজ ছিল। সেটা সারতে এসেছেন। অমনি ছুটে গিয়ে তার সাথে সেলফি তুলতে চাইলেন। নিরাশ করেননি এই টাইগার পেসার। সেলফি পর্ব শেষ করে আবার কাজে মনোযোগ দিলেন। আমরা তার পাশে দাঁড়িয়ে। কুশলাদি জানতে চাইছি, তিনিও বলে চলেছেন।

হঠাৎ চোখ ঘুরিয়ে দেখি টিম ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ সুজন ও দলের কম্পিউটার অ্যানালিস্ট শ্রীনিবাস চন্দ্র শেখর বেরিয়ে আসছেন। ব্যাস, অমনি রুবেলকে বিদায় জানিয়ে হোটেলের লনে তার সঙ্গে গল্প জুড়ে দেই।

মিরাজ

গল্পের ফাঁকে চোখ চলে যায় হোটেলের মূল প্রবেশ পথে। সেই দুই টাইগার ভক্ত কাকে যেন অনুনয় বিনয় করে বলছেন, ‘ভাই একটা ছবি, একটা ছবি।’ একটু গভীর মনোযোগ দিয়ে তাকিয়ে দেখি মোস্তাফিজ। মানে দেশসেরা পেসার মোস্তাফিজুর রহমান।

রাহি

ভক্তদের ভালবাসার প্রতি শ্রদ্ধা দেখিয়ে নিরাশ করলেন না মোস্তাফিজও। ততক্ষণে সেখানে একে একে হাজির হলেন সৌম্য সরকার, আবু জায়েদ রাহি ও মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। সবার শেষে এলেন মেহেদি হাসান মিরাজ ও অপরারেশন্স ম্যানেজার সাব্বির খান। সংবাদ মাধ্যমকে দেখে কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে কথা বললেন সাব্বির খান। এরপর দলের সবাইকে নিয়ে রওনা হলেন রাতের খাবার খেতে।

বাংলাদেশের দর্শকরা বিশ্বকাপের সব ম্যাচ অনলাইনে কোনো ধরনের সাবস্ক্রিপশন ফি বা চার্জ ছাড়াই দেখতে পারবেন র‍্যাবিটহোলের ওয়েবসাইট www.rabbitholebd.com-এ। এছাড়া র‍্যাবিটহোলের অ্যাপেও দেখা যাবে প্রতিটি ম্যাচ। অ্যাপটি অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীরা ডাউনলোড করতে পারবেন https://goo.gl/UNCWS2 (শুধুমাত্র বাংলাদেশ) এই লিংকে ক্লিক করে। তাছাড়া আইওএস ব্যবহারকারীরা ডাউনলোড করতে পারবেন https://goo.gl/vJjyyL (শুধুমাত্র বাংলাদেশ) এই লিংকে ক্লিক করে।

 

আরও পড়ুন: সাকিবে নির্ভার সুজন

সারাবাংলা/এমআরএফ/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন