শুক্রবার ২১ জুন, ২০১৯ ইং , ৭ আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৭ শাওয়াল, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

সামাজিক নিরাপত্তায় বরাদ্দ ৭৪ হাজার ৩৬৭ কোটি টাকা

জুন ১৩, ২০১৯ | ৪:৪৪ অপরাহ্ণ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির আওতা বাড়ানো হয়েছে ২০১৯-২০২০ সালের প্রস্তাবিত বাজেটে। এতে সুবিধা পাবেন প্রায় ৮৯ লাখ গরীব মানুষ। এ জন্য বাজেটে সামাজিক নিরাপত্তা খাতে বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে ৭৪ হাজার ৩৬৭ কোটি টাকা, যা মোট বাজেটের ১৪ দশমিক ২১ শতাংশ। তাছাড়া মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) ২ দশমিক ৫৮ শতাংশ।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) জাতীয় সংসদে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেট ঘোষণার সময় এসব বিষয় তুলে ধরা হয়।

পদ্মাসেতুতে বরাদ্দ ৫ হাজার ৩৭০ কোটি টাকা

চলতি অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটে এ খাতে বরাদ্দ ছিল ৬৪ হাজার ৪০৪ কোটি টাকা, যা চলতি অর্থবছরের বাজেটের বর্তমান দেশব্যাপী প্রায় ৭৬ লাখ মানুষ সামাজিক সুরক্ষার আওতায় সুবিধা ভোগ করছেন। সরকার প্রায় ১৩ লাখ গরীব মানুষকে নতুনভাবে এ সুরক্ষার আওতা আনার উদ্যোগ নিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বাজেট বক্তৃতায় আরও বলা হয়, দারিদ্র্য নিরসন ও বৈষম্য হ্রাসে সামাজিক নিরাপত্তা কৌশলপত্র ২০১৫ প্রণয়ন করা হয়েছে। এছাড়া এই কৌশলপত্র বাস্তবায়নে ২০১৬-২১ সাল পর্যন্ত অ্যাকশন প্ল্যান অনুমোদিত হয়েছে। দারিদ্র্য নিরসনের লক্ষ্যে প্রতিবছর এ খাতে বরাদ্দ বাড়ানো হচ্ছে। নির্বাচনি ইশতেহার অনুযায়ী আগামী পাঁচ বছরে এ খাতে বরাদ্দ দ্বিগুণ করা হবে।

সামাজিক সুরক্ষার আওতায় যেসব কর্মসূচির আওতা বাড়ছে সেগুলো হচ্ছে, আগামী অর্থবছরের বাজেটে নতুন করে আরও ৪ লাখ গরীব প্রবীণকে বয়স্ক ভাতা দেওয়া হবে। ফলে দেশ্যব্যাপী ৪৪ লাখ মানুষকে এ ভাতার আওতায় আনা হচ্ছে। বর্তমান সারাদেশে বয়স্কভাতা পাচ্ছেন ৪০ লাখ প্রবীণ। এই ভাতা কর্মসূচি পরিচালনার জন্য আগামী বাজেটে সম্ভাব্য বরাদ্দ থাকছে ২ হাজার ৬৪০ কোটি টাকা। এছাড়া স্বামী কর্তৃক নিগৃহীতা বা বিধবা নারীদের এক ধরনের ভাতা কর্মসূচির আওতায় নতুন করে ৩ লাখ নারীকে যুক্ত করা হবে। ফলে ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের বাজেটে বিধবা ভাতা পাবেন ১৭ লাখ নারী। এ জন্য নতুন বাজেটে বরাদ্দ রাখা হচ্ছে ১ হাজার ২০ কোটি টাকা। বর্তমান এখাতে বরাদ্দ আছে ৮৪০ কোটি টাকা।

এছাড়া নতুন করে ৫ লাখ অস্বচ্ছল প্রতিবন্ধী যুক্ত হবে ভাতার আওতায়। এতে ভাতা পাবেন ১৫ লাখ ৪৫ হাজার প্রতিবন্ধী। এ জন্য বরাদ্দ রাখা হচ্ছে ১ হাজার ৩৯০ কোটি ৫০ হাজার টাকা। বাজেটে এই কর্মসূচিতে নতুন করে ৭০ হাজার উপকারভোগীর সংখ্যা বাড়ানো হচ্ছে। বর্তমান ৭ লাখ দারিদ্র মাকে মাতৃত্বকালীন ভাতা দেওয়া হচ্ছে। নতুন অর্থবছরে এ সুবিধা দেওয়া হবে ৭ লাখ ৭০ হাজার জনকে। এ জন্য বরাদ্দ রাখা হচ্ছে ৭৩৯ কোটি ২০ লাখ টাকা।

এছাড়া কর্মজীবী ল্যাকটেটিং মাদার সহায়তার আওতায় ২ লাখ ৭৫ হাজার মাকে সুবিধা দেওয়া হবে। বর্তমান এ সুবিধা পাচ্ছেন আড়াই লাখ কর্মজীবী ল্যাকটেটিং মাদার। বাজেটে বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে ২৬৪ কোটি টাকা। বর্তমান এ খাতে বরাদ্দ আছে ২৪০ কোটি টাকা। চা শ্রমিকদের জীবন মান উন্নয়ন কর্মসূচির আওতায় সুবিধা দিতে নতুন করে আরও ১০ হাজার চা শ্রমিককে অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে। বর্তমান ৪০ হাজার চা শ্রমিককে এ কর্মসূচির আওতায় সুবিধা দেওয়া হচ্ছে। যা আগামী অর্থবছরে সুবিধাভোগীর সংখ্যা ৫০ হাজারে উন্নীত করা হবে। এ জন্য বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে ২৫ কোটি টাকা।

সারাবাংলা/জেজে/এমআই

আরও পড়ুন: প্রামাণ্যচিত্র দিয়ে বাজেট উপস্থাপন শুরু

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন