বৃহস্পতিবার ২০ জুন, ২০১৯ ইং , ৬ আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৬ শাওয়াল, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

দাম বাড়ছে স্মার্টফোনের, কথা বলার খরচও বাড়ছে

জুন ১৩, ২০১৯ | ৬:৩০ অপরাহ্ণ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: দেশীয় শিল্পকে সুরক্ষা দিতে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে স্মার্টফোন আমদানিতে শুল্ক বাড়ানোর প্রস্তাব করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। একইসঙ্গে মোবাইল ফোন ব্যবহারেও শুল্ক বাড়ানোর প্রস্তাব করেছেন তিনি। এতে দেশে স্মার্টফোনের দাম বাড়বে, খরচ বাড়বে কথা বলারও। তবে ফিচার ফোনের আমদানি শুল্ক একই থাকায় এবং ফোন উৎপাদন ও সংযোজনে অর্থমন্ত্রী রেয়াতি সুবিধার প্রস্তাব করায় ফিচার ফোনের দাম কমতে পারে।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) জাতীয় সংসদে ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট উত্থাপনের সময় এমন প্রস্তাব দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী।

বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী বলেন, আইসিটি খাতের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ সেলুলার ফোন উৎপাদন ও সংযোজনে রেয়াতি সুবিধা দেওয়ার কারণে স্থানীয় পর্যায়ে পাঁচ থেকে ছয়টি সেলুলার ফোন উৎপাদন ও সংযোজনকারী প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে। এ খাতে বিদ্যমান সুবিধা অব্যাহত রেখে সেলুলার ফোন উৎপাদনে প্রয়োজনীয় কিছু যন্ত্রাংশ আমদানির ক্ষেত্রে শুল্ক কমানোর প্রস্তাব করেন তিনি।

তবে ফিচার ফোন ও স্মার্টফোনের মধ্যে স্মার্টফোনের ওপর আমদানি শুল্ক বাড়ানোর প্রস্তাব করেছেন অর্থমন্ত্রী। তিনি বলেন, আমদানি পর্যায়ে স্মার্টফোন ও ফিচার ফোনে বর্তমানে ১০ শতাংশ আমদানি শুল্ক রয়েছে। ফিচার ফোন দেশের অপেক্ষাকৃত নিম্ন আয়ের জনগোষ্ঠী ব্যবহার করে থাকে। অন্যদিকে স্মার্টফোন ব্যবহার করে থাকে দেশের বিত্তবান মানুষেরা। তাই স্মার্টফোনের আমদানি শুল্ক ১০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ২৫ শতাংশ করার প্রস্তাব করছি।

বিজ্ঞাপন

বাজেটের এই প্রস্তাবনায় দেশে আমদানি করা স্মার্টফোনের খরচ বাড়বে। তবে ফিচার ফোনের আমদানি শুল্ক বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়নি। উল্টো সেলুলার ফোন উৎপাদনে প্রয়োজনীয় কিছু যন্ত্রাংশ আমদানিতে শুল্ক কমানোর প্রস্তাব করায় ফিচার ফোনের দাম কমতে পারে।

এদিকে, প্রস্তাবিত বাজেট পাস হলে মোবাইল ফোনে কথা বলার খরচও বাড়বে। প্রস্তাবনা অনুযায়ী, মোবাইল কলের ওপর নতুন করে ৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপ করা হয়েছে। এর আগেও মোবাইল কলে ৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক থাকায় এখন মোট সম্পূরক শুল্কের পরিমাণ হচ্ছে ১০ শতাংশ। অর্থাৎ, মোবাইলে কথা বললে আগের চেয়ে বেশি টাকা দিতে হবে সরকারের কোষাগারে।

বর্তমানে মোবাইল ফোনে কথার বলার ওপর ১৫ শতাংশ ভ্যাট, ৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক ও ১ শতাংশ সারচার্জসহ মোট ২২ শতাংশ কর রয়েছে। অর্থাৎ, ১০০ টাকার কথা বললে ২২ টাকা কর দিতে হয় সরকারকে। নতুন করে ৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপ করায় এখন ১০০ টাকায় ২৭ টাকা কর দিতে হবে।

সারাবাংলা/ইএইচটি/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন