শনিবার ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ৩০ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৬ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

র‌্যাবের অভিযান নিয়ে দীপংকর দীপনের নতুন ছবি ‘অপারেশন সুন্দরবন’

জুন ১৩, ২০১৯ | ৬:৫২ অপরাহ্ণ

এন্টারটেইনমেন্ট করেসপন্ডেন্ট

দেড় বছর অপেক্ষার পালা শেষ। নতুন ছবির নাম ঘোষণা করলেন নির্মাতা দীপংকর দীপন। ছবির নাম ‘অপারেশন সুন্দরবন’। সুন্দরবনে র‌্যাবের দুঃসাহসিক অভিনয় নিয়ে নির্মিত হবে ছবিটি। এটি প্রযোজনা করছে র‌্যাব ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ও থ্রি হুইলারস লিমিটেড।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিকার (১৩ জুন) রাজধানীর একটি অভিজাত রেস্তোঁরায় দুই প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠিত হয়। এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন র‌্যাবের মহাপরিচালক ড. বেনজীর আহমেদ।

বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আব্দুল করিম, মুক্তিযোদ্ধা ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সৈয়দ হাসান ইমাম, চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজারসহ আরও অনেকে। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ছবিটির অন্যতম প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান থ্রি-হুইলার্স লিমিটেড’র ভাইস চেয়ারম্যান খালেদুর রহমান জুয়েল এবং ছবির পরিচালক দীপংকর দীপন।

বিজ্ঞাপন

অনুষ্ঠানের শুরুতে বক্তব্য রাখেন দীপংকর দীপন। তিনি বলেন, ‘অপারেশন সুন্দরবন বাংলাদেশের প্রথম ওয়াইল্ড লাইফ থ্রিলার ছবি। সারা পৃথিবীতে এ ধরনের ছবির ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। সুন্দরবনে যখন আমরা রিসার্চ করতে যাই তখন মনে হলো এখানে গ্যাংস্টারধর্মী ছবি নির্মাণের সকল উপাদান আছে।’


আরও পড়ুন :  আমি উত্তাপ দেখাতে চেয়েছি, আগুন নয়: ফারুকী


তিন আরও বলেন, ‘সুন্দরবনের প্রান্তিক মানুষরা জলদস্যুদের দ্বারা অত্যাচারিত হয়ে আসছিল। সেই জলদস্যু নির্মূল হয়েছে র‌্যাবের দুঃসাহসিক অভিযানে। আমাদের এই ছবিতে সুন্দরবনের রূপবৈচিত্র তুলে ধরা হবে।’

দীপন জানান, এক বছর সুন্দরবন নিয়ে গবেষণার পর রিচার্স পেপার র‌্যাবের কাছে উপস্থাপন করি। তখন র‌্যাব এই সিনেমাটির সঙ্গে যুক্ত হওয়ার ইচ্ছার কথা জানায়।

মুশফিকুর রহমান গুলজার এসময় চলচ্চিত্র প্রযোজনার জন্য র‌্যাবকে ধন্যবাদ জানান। তিন বলেন, ‘চলচ্চিত্র প্রযোজনায় আসার জন্য র‌্যাবকে সিনেমার সকল মানুষের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানাই। বাংলা চলচ্চিত্রের উন্নয়নে র‌্যাব আগেও ভূমিকা পালন করেছে। চলচ্চিত্রের অশ্লীলতা ও পাইরেসি রোধে র‌্যাব বড় ভূমিকা পালন করেছে। ’

তিনি আরও বলেন, ‘দীপংকর দীপনের প্রথম ছবি ছিল সফল। তাই তাকে নিয়ে আমাদের প্রত্যাশা অনেক। তাই এই কাজটি তার জন্য চ্যালেঞ্জ। আমার বিশ্বাস তিনি তার দ্বিতীয় ছবি নির্মাণেও সফল হবেন।’

প্রধান অতিথির বক্তব্যে র‌্যাবের মহাপারিচালক ড. বেনজীর আহমেদ সুন্দরবনকে দস্যুমুক্ত করায় র‌্যাবের ভূমিকার কথা তুলে ধরেন। সেই সঙ্গে সুন্দরবনে র‌্যাবের অভিযানের ওপর নির্মিতব্য সিনেমার প্রশংসা করেন। সিনেমাটি যেনো পুরোপুরি উপভোগ্য করে নির্মাণ করা হয় সেজন্য নির্মাতাকে অনুরোধ করেন।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত অন্যান্য অতিথিরা তাদের বক্তব্যে দীপংকর দীপনের নতুন সিনেমার জন্য শুভ কামনা জানান। ভবিষ্যতে এরকম ছবি আরও নির্মাণের আহ্বান জানান তারা।

এদিকে ছবির কেন্দ্রিয় চরিত্রের নাম জানানো হয়নি সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে। সূত্রের খবর, এই ছবিতে এবিএম সুমন কেন্দ্রিয় চরিত্রে অভিনয় করতে পারেন। এর আগে সুমন একই পরিচালকের ‘ঢাকা অ্যাটাক’ ছবিতে দেশের স্পেশাল ফোর্স ‘সোয়াট’র সদস্যের চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন। এছাড়াও সম্ভাব্য অভিনয়শিল্পী হিসাবে থাকতে পারে তাসিকন, তারিক আনাম খান ও রোশান।

আরও পড়ুন: র‌্যাবের অভিযান নিয়ে দীপংকর দীপনের নতুন ছবি

ছবি: আশীষ সেনগুপ্ত

সারাবাংলা/আরএসও/পিএ


আরও পড়ুন :

.   ভাগ্যবঞ্চিত একব্যক্তির কাহিনী নিয়ে ‘সুড়ঙ্গ মাসুদ’

.   বর্ণবৈষম্য নিয়ে ছবি করছেন বানসালী


বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন