মঙ্গলবার ১৫ অক্টোবর, ২০১৯ ইং , ৩০ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৫ সফর, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৭-০ তে এগিয়ে গেল ভারত

জুন ১৭, ২০১৯ | ১২:০১ পূর্বাহ্ণ

বিশ্বকাপ ডেস্ক

বিশ্বকাপের মঞ্চে ভারতের সাথে ঠিক যেন পেরে ওঠে না পাকিস্তান। বিশ্বকাপের ইতিহাসে এনিয়ে সাত দেখার একবারও ভারতকে হারাতে পারেনি পাকিস্তান। যার প্রথমটি ছিল ১৯৯২ সালে, তবে সেবারই প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ শিরোপা জিতেছিল পাকিস্তান। দ্বাদশ বিশ্বকাপে পাকিস্তানকে ৮৯ রানে হারিয়েছে ভারত (বৃষ্টি আইনে)।

বিজ্ঞাপন

চলতি বিশ্বকাপের ২২তম ম্যাচে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন পাকিস্তান অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ। টস হেরে ব্যাটিং করতে নেমে ভারত নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে তোলে ৩৩৬ রান। সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন ওপেনার রোহিত শর্মা। ফিফটির দেখা পেয়েছেন আরেক ওপেনার লোকেশ রাহুল। আর দলপতি বিরাট কোহলি খেলেছেন দারুণ এক ফিফটি প্লাস ইনিংস। বৃষ্টি আইনে পাকিস্তানের টার্গেট দাঁড়ায় ৪০ ওভারে ৩০২ রান। পাকিস্তান ৬ উইকেট হারিয়ে তোলে ২১২ রান।

সোমবার (১৬ জুন) বাংলাদেশ সময় দুপুর সাড়ে তিনটায় ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্রাফোর্ড স্টেডিয়ামে শুরু হয় ম্যাচটি। ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করে গাজী টিভি।

ওপেনিংয়ে নেমে রোহিত শর্মা আর লোকেশ রাহুল তুলে নেন ১৩৬ রান। ইনিংসের ২৪তম ওভারে ওয়াহাব রিয়াজের বলে বাবর আজমের হাতে তুলে দেওয়ার আগে রাহুল করেন ৫৭ রান। তার ৭৮ বলের ইনিংসে ছিল তিনটি চার আর দুটি ছক্কার মার। ৩৪ বলে ফিফটি পূর্ণ করেন ওয়ানডতে সর্বোচ্চ তিনটি ডাবল সেঞ্চুরির মালিক রোহিত শর্মা। ৮৫ বলে তিন অঙ্ক স্পর্শ করেন তিনি। ভারতীয় এই ওপেনার ওয়ানডে ক্যারিয়ারে ২৪তম সেঞ্চুরির দেখা পেলেন। এই বিশ্বকাপেই পেলেন দ্বিতীয় সেঞ্চুরির দেখা। চলতি বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষেও সেঞ্চুরি পেয়েছিলেন রোহিত। ১২২ রানে অপরাজিত ছিলেন তিনি। পরের ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে করেছিলেন ৫৭ রান।

বিজ্ঞাপন

ইনিংসের ৩৯তম ওভারে বিদায় নেন রোহিত শর্মা। তার আগে কোহলির সঙ্গে ৯৮ রানের জুটি গড়েন তিনি। ভারতীয় এই ওপেনার খেলেন ১৪০ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস। হাসান আলির বলে শর্ট ফাইন লেগে ওয়াহাব রিয়াজের তালুবন্দি হন রোহিত। সাজঘরে ফেরার আগে ১১৩ বলে ১৪টি চার আর তিনটি ছক্কা হাঁকান তিনি। দলীয় ২৩৪ রানের মাথায় ভারত দ্বিতীয় উইকেট হারায়। ইনিংসের ৪৩তম ওভারে আমিরের বলে ক্যাচ তুলে দিয়ে বিদায় নেন ঝড়ো ইনিংস খেলা হার্দিক পান্ডিয়া। পান্ডিয়ার ১৯ বলে ২৬ রানের ইনিংসে ছিল ২টি চার ও ১টি ছয়ের মার। মোহাম্মদ আমিরের করা ৪৬তম ওভারের প্রথম বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ১ রান করা মহেন্দ্র সিং ধোনি। ২৯৮ রানের মাথায় ভারত চতুর্থ উইকেট হারায়।

দলীয় ৩১৪ রানের মাথায় বিদায় নেন ভারতের দলপতি বিরাট কোহলি। ইনিংসের ৪৮তম ওভারে মোহাম্মদ আমিরের লাফিয়ে ওঠা বলে পুল করতে চাইলে উইকেটের পেছনে সরফরাজ আহমেদের গ্লাভসবন্দি হন কোহলি। তার আগে ৬৫ বলে সাতটি বাউন্ডারিতে করেন ৭৭ রান। কেদার যাদব ৯ আর বিজয় শঙ্কর ১৫ রান করে অপরাজিত থাকেন।

পাকিস্তানি পেসার মোহাম্মদ আমির ১০ ওভারে ৪৭ রান দিয়ে তুলে নেন তিনটি উইকেট। ওয়াহাব রিয়াজ ১০ ওভারে ৭১ রান দিয়ে তুলে নেন একটি উইকেট। হাসান আলি ৯ ওভারে ৮৪ রান খরচায় পান একটি উইকেট। বিশ্বকাপে কোনো পাকিস্তানি বোলারের এক ইনিংসে সবচেয়ে বেশি রান দেওয়ার বাজে রেকর্ড এটি। ইমাদ ওয়াসিম ১০ ওভারে ৪৯ রান দিয়ে কোনো উইকেট পাননি। শাদাব খান ৯ ওভারে ৬১ রান দিয়ে থাকেন উইকেট শূন্য। শোয়েব মালিক ১ ওভারে ১১ আর মোহাম্মদ হাফিজ ১ ওভারে ১১ রান দিয়ে কোনো উইকেট পাননি।

৩৩৭ রানের টার্গেটে দলীয় ১৩ রানের মাথায় বিজয় শঙ্করের বলে এলবির ফাঁদে পড়েন ওপেনার ইমাম উল হক। বিদায়ের আগে ১৮ বলে এক বাউন্ডারিতে ইমাম করেন ৭ রান। ভুবনেশ্বর কুমার আঘাত পাওয়ায় পঞ্চম ওভারের পঞ্চম বলটি করতে আসেন বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচ খেলতে নামা শঙ্কর। নিজের প্রথম ডেলিভারিতেই উইকেট তুলে নেন তিনি। এরপর ১০৪ রানের জুটি গড়েন বাবর আজম এবং ফখর জামান। দলীয় ১১৭ রানের মাথায় বিদায় নেন বাবর আজম। কুলদীপ যাদবের বলে বোল্ড হওয়ার আগে ৫৭ বলে তিনটি চার আর একটি ছক্কায় করেন ৪৮ রান।

দলীয় ১২৬ রানের মাথায় বিদায় নেন ফখর জামান। কুলদীপের আরেকটি শিকারে সাজঘরে ফেরেন ৬২ রান করা ফখর জামান। চাহালের তালুবন্দি হওয়ার আগে তিনি ৭৫ বলে সাতটি চারের সঙ্গে েএকটি ছক্কাও হাঁকান। এরপর সেট হওয়ার আগেই বিদায় নেন মোহাম্মদ হাফিজ। ২৭তম ওভারে হার্দিক পান্ডিয়ার বলে বিজয় শঙ্করের হাতে ধরা পড়ার আগে হাফিজ করেন ৯ রান। পরের বলেই বোল্ড হন শোয়েব মালিক। দলীয় ১২৯ রানের মাথায় টপঅর্ডারের পাঁচ ব্যাটসম্যানকে হারায় পাকিস্তান। দলপতি সরফরাজ আহমেদকে বোল্ড করেন বিজয় শঙ্কর। ৩০ বলে ১২ রান করে সাজঘরের পথ ধরেন পাকিস্তান দলপতি।

৩৫ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে পাকিস্তান তোলে ১৬৬ রান। এরপর বৃষ্টি বাধায় ম্যাচটি বন্ধ হয়ে যায়। পরে বৃষ্টি আইনে পাকিস্তানের টার্গেট দাঁড়ায় ৪০ ওভারে ৩০২ রান। তাতে পাকিস্তানকে জিততে হলে বাকি ৩০ বলে করতে হবে ১৩৬ রান। পাকিস্তান ৪০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে তোলে ২১২ রান। শাদাব খান ২০ এবং ইমাদ ওয়াসিম ৪৬ রানে অপরাজিত থাকেন।

ভারতের কেদার যাদব, হার্দিক পান্ডিয়া আর বিজয় শঙ্কর দুটি করে উইকেট পান।

এবারের বিশ্বকাপে ভারতের শুরুটা ভালোই হয়েছে। অন্যদিকে, পাকিস্তান সেভাবে নিজেদের মেলে ধরতে পারেনি। বিশ্বকাপে খেলা তিন ম্যাচের তিনটিতেই জিতেছে ভারত, তাদের একটি ম্যাচ বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়। এদিকে, পাঁচ ম্যাচে কেবল একটি জয় পাকিস্তানের।

নিজেদের প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৬ উইকেটে হারানোর পর নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে ভারত অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে জিতেছিল ৩৬ রানে। আর তাদের তৃতীয় ম্যাচে বৃষ্টি বাধা দিলে নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে পয়েন্ট ভাগাভাগি করে টিম ইন্ডিয়া। এদিকে, পাকিস্তান নিজেদের প্রথম ম্যাচে উইন্ডিজদের কাছে ৭ উইকেটে হারে। পরের ম্যাচে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১৪ রানে জিতেছিল। তৃতীয় ম্যাচে বৃষ্টির কারণে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে পয়েন্ট ভাগাভাগি করে পাকিস্তান। আর চতুর্থ ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে পাকিস্তান হেরেছিল ৪১ রানে।

বিশ্বকাপে মুখোমুখি দুই দল: মোট ম্যাচ: ০৭টি, ভারত জয়ীঃ ০৭টি, পাকিস্তান জয়ীঃ ০টি, পরিত্যক্তঃ ০টি, ড্রঃ ০টি। মুখোমুখি দুই দল মোট ম্যাচ: ১৩২টি, ভারত জয়ী: ৫৫টি, পাকিস্তান জয়ী: ৭৩টি। ড্র: ০টি ম্যাচ পরিত্যক্ত: ৪টি।

পাকিস্তান একাদশ: সরফরাজ আহমেদ (অধিনায়ক ও উইকেটরক্ষক), বাবর আজম, ফখর জামান, হাসান আলী, ইমাদ ওয়াসিম, ইমাম-উল-হক, মোহাম্মদ হাফিজ, শাদাব খান, শোয়েব মালিক, মোহাম্মদ আমির এবং ওয়াহাব রিয়াজ।

ভারত একাদশ: বিরাট কোহলি (অধিনায়ক), রোহিত শর্মা (সহঅধিনায়ক), মহেন্দ্র সিং ধোনি (উইকেটরক্ষক), বিজয় শঙ্কর, লোকেশ রাহুল, কেদার যাদব, হার্দিক পাণ্ডিয়া, জাসপ্রিত বুমরাহ, ভুবনেশ্বর কুমার, কুলদীপ যাদব ও যুভেন্দ্র চাহাল।

বাংলাদেশের দর্শকরা বিশ্বকাপের সব ম্যাচ অনলাইনে কোনো ধরনের সাবস্ক্রিপশন ফি বা চার্জ ছাড়াই দেখতে পারবেন র‍্যাবিটহোলের ওয়েবসাইট www.rabbitholebd.com-এ। এছাড়া র‍্যাবিটহোলের অ্যাপেও দেখা যাবে প্রতিটি ম্যাচ। অ্যাপটি অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীরা ডাউনলোড করতে পারবেন https://goo.gl/UNCWS2 (শুধুমাত্র বাংলাদেশ) এই লিংকে ক্লিক করে। তাছাড়া আইওএস ব্যবহারকারীরা ডাউনলোড করতে পারবেন https://goo.gl/vJjyyL (শুধুমাত্র বাংলাদেশ) এই লিংকে ক্লিক করে।

সারাবাংলা/এমআরপি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন