শুক্রবার ১৯ জুলাই, ২০১৯ ইং , ৪ শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৫ জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

সংশোধিত এডিপির বাস্তবায়ন ৬৭ দশমিক ৯৭ শতাংশ

জুন ১৬, ২০১৯ | ১১:০৬ অপরাহ্ণ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: চলতি অর্থবছরে সংশোধিত বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (আরএডিপি) বাস্তবায়ন হার বেড়েছে। জুলাই থেকে মে মাস পর্যন্ত ১১ মাসে বাস্তবায়ন হার দাঁড়িয়েছে ৬৭ দশমিক ৯৭ শতাংশে। এসময়ে মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলো খরচ করেছে ১ লাখ ২০ হাজার ৩৬ কোটি টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ে এ হার ছিল ৬২ দশমিক ৮১ শতাংশ। আরডিপি বাস্তবায়ন, পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগ (আইএমইডি) সূত্রে এসব তথ্য জানাগেছে।

রোববার (১৬ জুন) চলতি অর্থবছরের মে মাস পর্যন্ত সংশোধিত এডিপির অগ্রগতি পর্যালোচনার জন্য একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে এ তথ্য জানানো হয়।

বৈঠকে আরও জানানো হয়, ওই সময় খরচ হয়েছিল ৯৮ হাজার ৯৭৮ কোটি টাকা। সেই তুলনায় চলতি অর্থবছরে ২১ হাজার ৫৮ কোটি টাকা বেশি ব্যয় হয়েছে। চলতি অর্থবছরে সংশোধিত এডিপির আকার হচ্ছে ১ লাখ ৭৬ হাজার ৬২০ কোটি টাকা।

আইএমইডির আয়োজনে রাজধানীর শের-ই বাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। এসময় পরিকল্পনা সচিব মো. নূরুল আমিন, আইএমইডির সচিব আবুল মনসুর মো. ফয়জুল্লাহসহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সচিবরা উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, এখানে আমার মান সম্মান জড়িত আছে। আমরা যার যার জায়গা থেকে সঠিক দায়িত্ব পালনের মধ্যদিয়ে অর্থবছর শেষে সর্বোচ্চ অগ্রগতি অর্জন করতে চাই। প্রকল্প বাস্তবায়নের মানের দিকেও নজর রাখতে হবে।

সূত্র জানায়, চলতি অর্থবছরের জুলাই থেকে মে মাস পর্যন্ত সংশোধিত এডিপি বাস্তবায়নে এগিয়ে থাকা মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলো হচ্ছে, নির্বাচন কমিশন সচিবালয়, ভূমি মন্ত্রণালয়, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগ, বিদ্যুৎ বিভাগ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়। পিছিয়ে থাকা মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলো হচ্ছে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়, পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগ, ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগ ও রেলপথ মন্ত্রণালয়।

সূত্র জানায়, চলতি অর্থবছরের সংশোধিত এডিপিতে সর্বোচ্চ বরাদ্দপ্রাপ্ত ১৫টি মন্ত্রণালয় ও বিভাগের অনুকুলে ১ লাখ ৪৫ হাজার ২৩ কোটি টাকা বরাদ্দ রয়েছে। এটি মোট সংশোধিত এডিপির ৮২ দশমিক ১১ শতাংশ। গত মে মাস পর্যন্ত চলতি অর্থবছরের ১১ মাসে এ বরাদ্দের বিপরীতে ব্যয় হয়েছে ১ লাখ ১ হাজার ৮৫৮ কোটি টাকা। এটি মোট বরাদ্দের ৭০ দশমিক ২৪ শতাংশ।

সারাবাংলা/জেজে/এমআই

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন