রবিবার ২১ জুলাই, ২০১৯ ইং , ৬ শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৭ জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

নাসার অ্যাপস চ্যালেঞ্জে চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ দল যাচ্ছে নাসায়

জুন ২০, ২০১৯ | ৬:১৭ অপরাহ্ণ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বিশ্বের ১৩ শ’র বেশি দলকে হারিয়ে ২০১৮ সালে নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জে বিজয়ী হয় শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের দল ‘টিম অলিক’। নাসার আমন্ত্রণে বিজয়ী দলের সদস্যরা যাচ্ছেন নাসায়। তারা কেনেডি স্পেস সেন্টারে ভ্রমণ এবং ফ্যালকন-নাইন স্পেস শাটলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অংশ নিবেন। আগামী ২১-২৩ জুলাই এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে।

তথ্যপ্রযুক্তিতে বাংলাদেশ দলের সাফল্য সম্পর্কে মাননীয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, তরুণদের নিয়ে গড়া শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের দল ‘টিম অলিক’ বিশ্ব চ্যাম্পিয়নের খেতাব অর্জন করেছে। বাংলাদেশে বেসিস, বেসিস স্টুডেন্টস ফোরামের মাধ্যমে এই আয়োজন করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশের দল বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। পাশাপাশি, নাসায় এবার উড়বে বাংলাদেশের পতাকা। এ অর্জন ডিজিটাল বাংলাদেশের অগ্রযাত্রার আরেকটি অনন্য দৃষ্টান্ত।

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেসের (বেসিস) সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর বলেন, এ বছর আমাদের লক্ষ্যই ছিল গত তিন আসরের তুলনার ভালো করার। প্রথমবারের মতো নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ এর বিশ্ব চ্যাম্পিয়নের খেতাব অর্জনের পাশাপাশি বাংলাদেশ দল নাসায় যাচ্ছে। আমরা বেসিস থেকে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার যে যাত্রা অব্যাহত রেখেছি, এ অর্জন আমাদের প্রচেষ্টার পথে আরেকটি বড় মাইলফলক।

বিজ্ঞাপন

নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ-২০১৮ এর আহ্বায়ক দিদারুল আলম বলেন, আমরা বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়েছি। এবার নাসা ভ্রমণের পালা। নিঃসন্দেহে এটি গোটা বাংলাদেশের জন্য বড় অর্জন।

টিম অলিকের দলনেতা আবু সাবিক মাহদি বলেন, প্রথমবারের নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় এবং নাসা ভ্রমণের সুযোগ পাওয়ায় এখন বাংলাদেশের সবার আমাদের প্রতি অনেক প্রত্যাশা। আমরা বাংলাদেশকে আরও উঁচুতে আসীন করতে চাই।

এর আগে, চলতি বছরের ১৬ ফেব্রুয়ারি নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০১৮-তে  সিলেট থেকে চ্যাম্পিয়ন হিসেবে মনোনয়ন পায় শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের দল ‘টিম অলিক’। টিম অলিকের ‘লুনার ভিআর প্রজেক্ট’টি মূলত একটি ভারচুয়াল রিয়েলিটি অ্যাপ্লিকেশন। যার মাধ্যমে ব্যবহারকারী চাঁদে ভ্রমণের একটি অভিজ্ঞতা পাবেন।

‘টিম অলিক’ নাসা প্রদত্ত বিভিন্ন রিসোর্স থেকে থ্রিডি মডেল ও তথ্য সংগ্রহ করে, নাসা অ্যাপলো-১১ মিশন এর ল্যান্ডিং এরিয়া ভ্রমণ, চাঁদ থেকে সূর্যগ্রহণ দেখা এবং চাঁদকে একটি স্যাটেলাইটের মাধ্যমে আবর্তন করা, এই তিনটি ভিন্ন পরিবেশকে ভার্চুয়ালভাবে তৈরি করেছে।

সারাবাংলা/ এনএইচ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন