বুধবার ১৭ জুলাই, ২০১৯ ইং , ২ শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৩ জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

কোম্পানিগুলোই ধ্বংস করবে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ, বৈঠকে সিদ্ধান্ত

জুন ২৩, ২০১৯ | ৬:৩৫ অপরাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: দেশের বাজারে থাকা সব মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ সংগ্রহ করে ধ্বংস করবে প্রস্তুতকারক কোম্পানিগুলো। এরপর বিজ্ঞানসম্মত পদ্ধতিতে ধ্বংস করে ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরে প্রতিবেদন আকারে বিস্তারিত তথ্য দেবে।

রোববার (২৩ জুন) ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরে আয়োজিত এক বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়। আগামী ২ জুলাইয়ের মধ্যেই মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ ধ্বংস করা হবে।

বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন অধিদফতরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. মাহবুবুর রহমান। এ সময় ওষুধ শিল্প সমিতি, ওষুধ প্রস্তুতকারক কোম্পানি, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের সভাপতি, বাংলাদেশে কেমিস্ট অ্যান্ড ড্রাগিস্ট সমিতির সভাপতি, ইম্পোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের সভাপতি, বাংলাদেশ ফার্মেসি কাউন্সিলের সভাপতি ও সচিবসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

মেজর জেনারেল মো. মাহবুবুর রহমান বলেন, দীর্ঘ আলোচনার পর ওষুধ কোম্পানি এবং ফার্মেসি মালিকদের রাজি করানো গেছে। ফার্মেসি মালিকদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে কোম্পানিগুলো তাদের মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ সংগ্রহ করবে। এরপর তারাই বিজ্ঞানসম্মত পদ্ধতিতে ধ্বংস করে আমাদের কাছে প্রতিবেদন আকারে বিস্তারিত তথ্য দেবে।

বিজ্ঞাপন

তিনি সারাবাংলাকে বলেন, মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ ধ্বংস করার সিদ্ধান্তে একমত পোষণ করেছে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ফার্মাসিউটিক্যালস ইন্ডাস্ট্রিজ (বাপি) এবং বাংলাদেশ ক্যামিস্ট অ্যান্ড ড্রাগিস্ট সমিতি। আজই সব স্টেকহোল্ডারদের কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

এর আগে গত ১৮ জুন এক মাসের মধ্যে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ ধ্বংস করার আদেশ দেন হাই কোর্ট।

সারাবাংলা/জেএ/এটি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন