শুক্রবার ১৯ জুলাই, ২০১৯ ইং , ৪ শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৫ জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

উড়ন্ত ছন্দে থাকা নিউজিল্যান্ডের প্রতিপক্ষ পাকিস্তান

জুন ২৫, ২০১৯ | ১০:২০ অপরাহ্ণ

বিশ্বকাপ ডেস্ক

বিশ্বকাপের সেমি ফাইনালে নিজেদের জায়গা পাকা করার লক্ষ্যে পাকিস্তানের মুখোমুখি হবে নিউজিল্যান্ড। বিশ্বকাপে নিজেদের লিগ পর্বে খেলা সবগুলো ম্যাচ জিতেছে কিউইরা। একটি ম্যাচে বৃষ্টির কারণে পয়েন্ট ভাগাভাগি করে। অন্যদিকে নিজেদের ছয় ম্যাচে দুই জয়, তিন হার এবং পরিত্যক্ত ম্যাচ নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের সাতে অবস্থান করছে পাকিস্তান।

বুধবার (২৬ জুন) বাংলাদেশ সময় দুপুর সাড়ে তিনটায় এজবাস্টন ক্রিকেট গ্রাউন্ড অনুষ্ঠিত হবে ম্যাচটি। ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করবে গাজী টিভি।

দুই দলের অবস্থান:
আইসিসির প্রকাশিত সবশেষ র‌্যাংকিংয়ে কিউইদের থেকে এক ধাপ পিছিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা। কিউইদের অবস্থান তৃতীয় স্থানে। অন্যদিকে পাকিস্তানের অবস্থান ছয় নম্বরে। দু’দলের রেটিং পয়েন্টের ব্যবধানটাও কম নয়। ১১৪ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে তিনে কিউইরা, আর ৯৩ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে ৬ষ্ঠ স্থানে অবস্থান করছে পাকিস্তান।

ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে দারুণ শুরু হয়েছে কিউইদের। চতুর্থ ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয় গতবারের রানার্সআপদের ম্যাচ। সবশেষ উইন্ডিজদের বিপক্ষে শেষ মুহূর্তের নাটকীয় জয়। প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে ১০ উইকেটে হারিয়েছে, এরপরের ম্যাচে বাংলাদেশকে ২ উইকেটে হারিয়ে আফগানদের বিপক্ষে ৭ উইকেটের বড় জয়। ভারতের বিপক্ষে পরিত্যক্ত আর দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ৪ উইকেটের জয়ের পর শেষ ম্যাচে উইন্ডিজের বিপক্ষে মাত্র ৫ রানের জয়।

বিজ্ঞাপন

আর মুদ্রার যেন বিপরীত দিকটা দেখছে পাকিস্তান। বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত খেলা ছয় ম্যাচে জয় মাত্র দুটিতে। ইংল্যান্ড আর দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে জয় ১৯৯২ চ্যাম্পিয়নদের। অন্যদিকে ভারত, অস্ট্রেলিয়া আর উইন্ডিজের কাছে বড় ব্যবধানে হার। আর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত ম্যাচ।

ভেন্যু:
ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯ এর দ্বিতীয় সেমি ফাইনাল সহ মোট ৫টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে এজবাস্টন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে। বাংলাদেশ বনাম ভারতের হাইভোল্টেজ ম্যাচটিও অনুষ্ঠিত হবে এই মাঠেই। ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে ২ জুলাই বিকাল সাড়ে তিনটায়। ১৮৮২ সালে অনুষ্ঠিত স্টেডিয়ামটির টেস্ট ক্রিকেটে আবির্ভাব ঘটে ১৯০২ সালে অস্ট্রেলিয়ার সাথে ম্যাচ দিয়ে। আর সর্বশেষ টেস্ট ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হয় ২০১৮ সালে ভারতের বিপক্ষে।

১৯০২ সালে টেস্টে অবিষেক ঘটলেও একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট যাত্রা শুরু হয় ১৯৭২ সালে। ইংল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার ম্যাচ দিয়েই শুরু হয় ওডিআই ক্রিকেটে এজবাস্ট ক্রিকেট গ্রাউন্ডের যাত্রা। প্রায় ২৫ হাজার দর্শক একসাথে ম্যাচ উপভোগ করতে পারবেন এই মাঠে। ২০১৭ সালে অনুষ্ঠিত আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে ভারতের বিপক্ষে এই মাঠেই খেলেছিল টাইগাররা। সে ম্যাচে যদিও ৯ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে হারতে হয়েছিল লাল-সবুজদের। আর এই ম্যাচটিই এজবাস্টনে অনুষ্ঠিত শেষ একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ম্যাচ। ১৯৭২ সালে অভিষেকের পর থেকে অনুষ্ঠিত হওয়া একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ ইংল্যান্ডের। ২০১৫ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৪০৮ রানই এই স্টেডিয়ামের এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ।

বিশ্বকাপে হেড টু হেড মোট ম্যাচ: ৮টি, নিউজিল্যান্ড জয়ী: ২টি। পাকিস্তান জয়ী: ৬টি। মুখোমুখি দুই দল মোট ম্যাচ: ১০৬টি, নিউজিল্যান্ড জয়ী: ৪৮টি। পাকিস্তান জয়ী: ৫৪টি। ড্র: ১টি ম্যাচ পরিত্যক্ত: ৩টি।

দৃষ্টি থাকবে যাদের ওপর: কেন উইলিয়ামসন, ট্রেন্ট বোল্ট (নিউজিল্যান্ড), বাবর আজম, মোহাম্মদ আমির (পাকিস্তান)।

বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ড স্কোয়াড: কেন উইলিয়ামসন (অধিনায়ক), মার্টিন গাপটিল, হেনরি নিকোলস, রস টেইলর, টম লাথাম (উইকেটরক্ষক), কলিন মুনরো, টম ব্লান্ডেল, কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম, মিচেল স্যান্টনার, জিমি নিশাম, ইশ সোধি, ম্যাট হেনরি, লুকি ফার্গুসন, টিম সাউদি ও ট্রেন্ট বোল্ট।

বিশ্বকাপে পাকিস্তান স্কোয়াড: সরফরাজ আহমেদ (অধিনায়ক ও উইকেটরক্ষক), বাবর আজম, ফখর জামান, হারিস সোহেল, হাসান আলী, ইমাদ ওয়াসিম, ইমাম-উল-হক, মোহাম্মদ হাফিজ, মোহাম্মদ হাসনাইন, শাদাব খান, শাহীন শাহ আফ্রিদি, শোয়েব মালিক, মোহাম্মদ আমির, ওয়াহাব রিয়াজ, আসিফ আলী।

বাংলাদেশের দর্শকরা বিশ্বকাপের সব ম্যাচ অনলাইনে কোনো ধরনের সাবস্ক্রিপশন ফি বা চার্জ ছাড়াই দেখতে পারবেন র‍্যাবিটহোলের ওয়েবসাইট www.rabbitholebd.com-এ। এছাড়া র‍্যাবিটহোলের অ্যাপেও দেখা যাবে প্রতিটি ম্যাচ। অ্যাপটি অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীরা ডাউনলোড করতে পারবেন https://goo.gl/UNCWS2 (শুধুমাত্র বাংলাদেশ) এই লিংকে ক্লিক করে। তাছাড়া আইওএস ব্যবহারকারীরা ডাউনলোড করতে পারবেন https://goo.gl/vJjyyL (শুধুমাত্র বাংলাদেশ) এই লিংকে ক্লিক করে।

** ‘আনপ্রেডিক্টেবল’ পাকিস্তান ১৯৯২’র পিছু পিছু!

সারাবাংলা/এসএস/এমআরপি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন