রবিবার ২১ জুলাই, ২০১৯ ইং , ৬ শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৭ জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

হজযাত্রা: প্রস্তুতি ও করণীয়

জুলাই ৪, ২০১৯ | ৪:৩৫ অপরাহ্ণ

সারাবাংলা ডেস্ক

ঢাকা: ৪ জুলাই থেকে শুরু হয়েছে হজ ফ্লাইট। জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা সাপেক্ষে ১০ আগস্ট অনুষ্ঠিত হতে পারে পবিত্র হজ। এবার যাঁরা হজ পালন করতে এরইমধ্যে সৌদি গেছেন এবং যারা যাওয়ার অপেক্ষায় রয়েছেন তাদের প্রস্তুতি নিয়েই আমাদের বিশেষ আয়োজন।

হজে যাওয়ার আগে যে কাজগুলো করা জরুরি সেগুলো হলো- স্বাস্থ্যপরীক্ষা, টিকা দেওয়া, স্বাস্থ্যসনদ সংগ্রহ এবং হজের জন্য প্রয়োজনীয় মালপত্র সংগ্রহ। এছাড়া হজ পালনের প্রশিক্ষণও নেওয়া উচিত। হজ প্রশিক্ষণসহ অন্যান্য তথ্য ঢাকার আশকোনা হজ কার্যালয় থেকে জানা যাবে। এছাড়া প্রয়োজনীয় বইপুস্তক বা পরিচিত লোকজনের কাছ থেকেও হজবিষয়ক তথ্য জানা যায়। তবে হজের প্রয়োজনীয় তথ্য পাওয়া যাবে www.hajj.gov.bd ওয়েবসাইটে।

হজযাত্রার আগে পাসপোর্ট, বিমানের টিকিট সংগ্রহ ও তারিখ নিশ্চিত করুন। প্রয়োজনীয় বৈদেশিক মুদ্রা সংগ্রহ করতে ভুলবেন না। হজের নিয়ম জানার জন্য একাধিক বই পড়তে পারেন। যাঁরা পড়তে পারেন না, তাঁরা অভিজ্ঞ হাজিদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করতে পারেন।

প্রয়োজনীয় যে মালপত্রগুলো সঙ্গে নেবেন

বিজ্ঞাপন

মালপত্র নেওয়ার জন্য বাংলাদেশের পতাকা খচিত ট্রলি ব্যাগ (৬৫ x ৪৫ x ২৫ সেন্টিমিটার) ও হাতব্যাগ নিজ দায়িত্বে সংগ্রহ করতে হবে। এরপর ব্যাগের ওপর ইংরেজিতে নিজের নাম ও ঠিকানা, ফোন নম্বর এবং পাসপোর্ট নম্বর লিখতে হবে। এছাড়া পরিচয়পত্র, পাসপোর্ট ও টাকা রাখার জন্য গলায় ঝোলানো ছোট ব্যাগও সঙ্গে নিতে হবে। ইহরামের কাপড় নিতে হবে কমপক্ষে দুই সেট (পুরুষের জন্য)। প্রতি সেটে শরীরের নিচের অংশে পরার জন্য আড়াই হাত বহরের আড়াই গজ কাপড় এক টুকরা আর গায়ের চাদরের জন্য একই বহরের তিন গজ কাপড় এক টুকরা। ইহরামের কাপড় সাদা এবং সুতি হলে ভালো হয়। নারীদের জন্য সেলাইযুক্ত স্বাভাবিক পোশাকই ইহরামের কাপড়। ইহরামের জন্য আরও প্রয়োজন হতে পারে বেল্ট। কাজেই বেল্টও সঙ্গে রাখা উচিত। একজন হজযাত্রী যত দিন বিদেশে থাকবেন, সেই অনুযায়ী নিবন্ধিত চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্রসহ ওষুধ নিতে হবে। সৌদি আরবে ব্যবহার করা যায় এমন সিম কিনতে হবে মোবাইলে ব্যবহার করার জন্য। এছাড়া চশমা ব্যবহার করলে অতিরিক্ত একটি চশমা সঙ্গে নেবেন হজযাত্রী। পাশাপাশি কোরআন শরিফ, ধর্মীয় পুস্তক ও হজবিষয়ক বই নিতে হবে। এছাড়া ব্যাগের ভেতর প্রয়োজনীয় যে জিনিসগুলো তুলতে হবে সেগুলো হলো- নরম ফিতাওয়ালা স্যান্ডেল, গামছা, তোয়ালে, লুঙ্গি, গেঞ্জি, পায়জামা, পাঞ্জাবি, শার্ট, নারীদের জন্য বোরকা, সাবান, টুথপেস্ট, টুথব্রাশ বা মিসওয়াক, নখ কাটার যন্ত্র, সুই-সুতা, থালা, বাটি, গ্লাস, এবং দেশে ফেরার পর বিমানবন্দর থেকে বাড়ি যাওয়ার জন্য বাংলাদেশি টাকা।

হজযাত্রায় জরুরি কাগজপত্র

হজযাত্রায় জরুরি কাগজপত্রের মধ্যে সঙ্গে নিতে হবে ১০ কপি পাসপোর্ট সাইজ ও ৬ কপি স্ট্যাম্প সাইজের ছবি। হজযাত্রীর পাসপোর্টের শুরুর ২-৩ পৃষ্ঠার ফটোকপি, স্বাস্থ্যপরীক্ষা ও টিকার সনদ। এছাড়া নারী হজযাত্রীর ক্ষেত্রে শরিয়তসম্মত মাহরামের সঙ্গে সম্পর্কের সনদ, ব্যাংকে টাকা জমা দেওয়ার রসিদ। সরকারি চাকরিজীবী হলে অফিস আদেশ বাংলাদেশ ইমিগ্রেশনে দেখাতে হয়। সৌদি সরকার এবার হজযাত্রীদের জন্য ই-ভিসা চালু করেছে। এই ভিসা পাসপোর্টের সঙ্গে লাগানো থাকে না। কাগজে প্রিন্ট করে দেবে। ফলে হজযাত্রীদের এটি আলাদাভাবে সংরক্ষণ করতে হবে।  প্রত্যেক হজযাত্রীর ৭ সংখ্যার একটি পরিচিতি নম্বর থাকে। এর প্রথম ৪ সংখ্যা এজেন্সির নম্বর আর শেষ ৩ সংখ্যা হজযাত্রীর নম্বর হিসেবে বিবেচিত। ১০ সংখ্যার ট্র্যাকিং এই নম্বরটি প্রাক–নিবন্ধনের সময় কম্পিউটারের দেওয়া নম্বর যেমন N1AB*7F0*9D জানা থাকলে হজযাত্রী ও তাঁর আত্মীয়স্বজন ওয়েবসাইটে ওই হজযাত্রীর তথ্য পেতে পারেন সহজে।

ঢাকার হজ ক্যাম্প ও বিমানযাত্রা

একজন হজযাত্রী সৌদ আরবের উদ্দেশে রওনার আগে ঢাকার আশকোনায় হজ ক্যাম্পে অবস্থান করেন। সেখানে হজযাত্রী যত দিন অবস্থান করবেন, তার শরীর ও মালপত্রের দিকে নিজেকেই খেয়াল রাখতে হবে। এছাড়া প্রয়োজনীয় বৈদেশিক মুদ্রা সংগ্রহ করে নিতে হবে। বিমানে ওঠার সময় হাতব্যাগে ছুরি, কাঁচি, দড়ি নেওয়া যাবে না। একজন হজযাত্রী সর্বোচ্চ ৪০ কেজির বেশি মালামাল বহন করতে পারবেন না। এছাড়া নিবন্ধিত চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র ছাড়া কোনো ওষুধও নিতে পারবেন না। রান্না করা খাবার চাল, ফলমূল, ডাল, শুঁটকি, গুড়, পান-সুপারি ইত্যাদিসহ পচনশীল খাদ্যদ্রব্য বিমানে নেওয়া যাবে না।

সারাবাংলা/পিটিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন