বৃহস্পতিবার ১৭ অক্টোবর, ২০১৯ ইং , ২ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৭ সফর, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

মৃত্যুর আগে কি ঘ্রাণশক্তি কমে আসে?

জুলাই ৫, ২০১৯ | ৬:৫৭ অপরাহ্ণ

সারাবাংলা ডেস্ক

ঢাকা: নতুন একটি প্রশ্ন গবেষকদের ভাবিয়ে তুলেছে। মৃত্যুর আগে কি মানুষের ঘ্রাণশক্তি কমে আসে? ১৩ বছর ধরে এই একটি প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে ব্যস্ত এক দল গবেষক। ইতোমধ্যে অনেক বিশেষজ্ঞ মত দিয়েছেন, ঘ্রাণ শক্তি কমে আসা হলো মৃত্যুঝুঁকি বাড়ার লক্ষণ।

বিজ্ঞাপন

তবে এখনই চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে রাজি নন গবেষকরা। তারা বলছেন, আরও অনেক কাজ করার আছে।

মিশিগান স্টেট ইউনিভার্সিটির এক দল গবেষক যুক্তরাষ্ট্রের ২ হাজার ২০০ জনের ওপর এই পর্যবেক্ষণ গবেষণা চালান। দু’টি ভাগে গবেষণা চালানো হয়। প্রথমেই খোঁজা হয়, মৃত্যুর সঙ্গে ঘ্রাণশক্তি কমে যাওয়ার আদৌ কোনো সম্পর্ক আছে কি না। দ্বিতীয় ভাগে- গবেষণায় যারা অংশ নিয়েছেন, তাদের ঘ্রাণশক্তি সম্পর্কে সুনির্দিষ্ট তথ্য নিয়মিতভাবে সংগ্রহ করা।

গবেষকরা নিশ্চিত হন, ঘ্রাণশক্তি কমে এলে মৃত্যুঝুঁকি শতকরা ৫০ ভাগ পর্যন্ত বেড়ে যায়। আর মূলত যাদের বয়স ৭০ বছরের বেশি তাদের ক্ষেত্রে এই মত প্রযোজ্য হবে। তবে কেন ঘ্রাণ শক্তি কমে আসে সে বিষয়ে এখনো খুব বেশি তথ্য-উপাত্ত গবেষকদের হাতে আসেনি।

বিজ্ঞাপন

মিশিগান স্টেট ইউনিভার্সিটির গবেষকরা জানিয়েছেন, ৭১ থেকে ৮২ বছর বয়সী ২ হাজার ২০০ জনকে ১৩ বছর নজরদারির আওতায় রাখা হয়। প্রথমেই তাদের ঘ্রাণ সংক্রান্ত ১০টি পরীক্ষা নেওয়া হয়। কেবল তাই নয়, গবেষণায় যাদের অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল তাদের প্রত্যেকের শারীরিক অবস্থা ভালো ছিল।

বিশ্ববিদ্যালয়টির অধ্যাপক হংলে চেন বলেন, ‘আমরা একটি বিষয়ে নিশ্চিত হয়েছি যে, মৃত্যুর আগে মানুষের ঘ্রাণশক্তি কমে যায়। এখন ক্লিনিক্যালি প্রমাণ করার অপেক্ষা। আমরা আরও একটি বিষয় জানার চেষ্টা করছি, কেন মৃত্যুর আগে মানুষের ঘ্রাণশক্তি কমে যায়, এবং এর পেছনের কারণ কি কি?”

‘আমরা মনে করি, যখনই কেউ বুঝতে পারবেন তার ঘ্রাণশক্তি কমে আসছে তখনই তার উচিত চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, ঘ্রাণশক্তি কমে আসার অর্থ হলো তিনি কোনো না কোনো স্বাস্থ্যঝুঁকিতে রয়েছেন’, বলেন চেন।

সারাবাংলা/এটি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন