সোমবার ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ১ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৬ মুহাররম, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

বিশ্বের ‘ক্ষমতাধর’ পাসপোর্ট এশিয়ায়

জুলাই ৫, ২০১৯ | ৮:৩৩ অপরাহ্ণ

সারাবাংলা ডেস্ক

ঢাকা: বিশ্বের ‘ক্ষমতাধর’ পাসপোর্টের তালিকায় এ বছর শীর্ষে রয়েছে তিনটি দেশ। আর এই তিনটি দেশই এশিয়া মহাদেশের। ২০১৯ সালের ফেলে আসা অর্ধেক মাসের হিসাবে, বিশ্বের সবচেয়ে ট্র্যাভেল ফ্রেন্ডলি পাসপোর্ট রয়েছে জাপান এবং সিঙ্গাপুরে। আর এ বছর প্রথমস্থান ছেড়ে দ্বিতীয় অবস্থানে এসেছে দক্ষিণ কোরিয়া।

বিজ্ঞাপন

হেনলে পাসপোর্ট ইনডেস্ক এই তালিকা প্রকাশ করেছে। দক্ষিণ কোরিয়ার সারিতে এসেছে ফিনল্যান্ড এবং জার্মানি।

তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ইউরোপীয় দেশ ডেনমার্ক, ইতালি এবং লুক্সেমবুর্গ। যে দেশে ভিসা প্রয়োজন হয় না (ভিসা ফ্রি) এবং আগমন-পরবর্তী ভিসার (অন অ্যারাইভাল) দেশগুলোসহ মোট ১৮৬টি দেশে ইউরোপীয় এই তিনটি দেশের নাগরিকরা ভ্রমণ করেছেন।

যেখানে ১৮৫টি দেশ ঘুরে চতুর্থ অবস্থানে রয়েছে ফ্রান্স, স্পেন এবং সুইডেন। পাঁচ বছর আগেও এই তালিকায় শীর্ষে ছিল যুক্তরাষ্ট্র এবং যুক্তরাজ্য। সেখান থেকে ছিটকে দেশ দু’টির অবস্থান বর্তমানে ষষ্ঠ। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, ব্রেক্সিট প্রক্রিয়া এখানে প্রভাব ফেলেছে।

অন্যদিকে, গত ১৪ বছরের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো তালিকায় কুড়ির ঘরে এসেছে সংযুক্ত আরব আমিরাতের দেশ। গত পাঁচ বছরে ইউএই’র দেশগুলো তালিকায় এগিয়েছে প্রায় দ্বিগুণ। তবে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি নেই আফগানিস্তানের।

বিজ্ঞাপন

এক বার্তায় হেনলে অ্যান্ড পার্টনার্স’র চেয়ারম্যান এবং পাসপোর্ট ইনডেস্ক কনসেপ্টের উদ্ভাবক ড. ক্রিশ্চিয়ান এইচ কালিন বলেন, ‘এই তালিকার মধ্য দিয়ে একটি দেশের অর্থনৈতিক এবং সামাজিক অগ্রগতির চিত্র উঠে আসে।’

পাসপোর্ট

২০১৯ সালের সেরা পাসপোর্টধারী দেশ:

০১. জাপান ও সিঙ্গাপুর (১৮৯টি গন্তব্য)
০২. ফিনল্যান্ড, জার্মানি ও দক্ষিণ করিয়া (১৮৭)
০৩. ডেনমার্ক, ইতালি ও লুক্সেমবুর্গ (১৮৬)
০৪. ফ্রান্স, স্পেন ও সুইডেন (১৮৫)
০৫. অস্ট্রিয়া, নেদারল্যান্ড, পর্তুগাল ও সুইজারল্যান্ড (১৮৪)
০৬. বেলজিয়াম, কানাডা, গ্রিস, আয়ারল্যান্ড, নরওয়ে, যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র (১৮৩)
০৭. মালটা (১৮২)
০৮. চেক রিপাবলিক (১৮১)
০৯. অস্ট্রেলিয়া, আইসল্যান্ড, লিথুয়ানিয়া ও নিউজিল্যান্ড (১৮০)
১০. লাতভিয়া, স্লোভাকিয়া ও স্লোভেনিয়া (১৭৯)

পিছিয়ে থাকা দেশগুলো:

১০১. বাংলাদেশ, ইরিত্রিয়া, ইরান, লেবানন ও উত্তর কোরিয়া (৩৯টি গন্তব্য)
১০২. নেপাল (৩৮)
১০৩. লিবিয়া, ফিলিস্তিনি অঞ্চল, সুদান (৩৭)
১০৪. ইয়েমেন (৩৩)
১০৫. সোমালিয়া (৩১)
১০৬. পাকিস্তান (৩০)
১০৭. সিরিয়া (২৯)
১০৮. ইরাক (২৭)
১০৯. আফগানিস্তান (২৫)

ইন্টারন্যাশনাল এয়ার ট্রান্সপোর্ট অথরিটির (আইএটিএ) কাছে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে হেনলে অ্যান্ড পার্টনার্স এই তালিকা তৈরি করে থাকে। এতে বিশ্বের ১৯৯টি দেশের পাসপোর্ট এবং ২২৭টি গন্তব্যের হিসাব অন্তর্ভুক্ত করা হয়। প্রতিবছর রিয়েল টাইম অনুযায়ী তথ্য হালনাগাদ করা হয়।

সারাবাংলা/এটি

Advertisement
বিজ্ঞাপন

Tags:

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন