মঙ্গলবার ২৩ জুলাই, ২০১৯ ইং , ৮ শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৯ জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

জাপানে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সোসাইটির অভিষেক

জুলাই ৬, ২০১৯ | ১:৫১ পূর্বাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা : প্রবাসে জন্ম নেয়া নতুন প্রজন্মের মধ্যে বাংলাদেশের ইতিহাস ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি তুলে ধরতে জাপানে গঠিত হয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সোসাইটি, জাপান। জাপানে বসবাসকারী ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সন্তানদের নিয়ে গঠিত হয়েছে সংগঠনটি। অভিষেক অনুষ্ঠানে চার শতাধিক অতিথি উপস্থিত ছিলেন।

রোববার (৩০ জুন) জাপানের রাজধানী টোকিওর তাকিনোগাওয়া বুনকা সেন্টারে ব্যাপক উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে সংগঠনটির অভিষেক হলো। সংগঠনের সভাপতি লিপিকা চৌধুরী জুঁই’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কৃতি সন্তান  ও জাপানস্থ বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা।

বিজ্ঞাপন

তুহিন বিনতে মান্নান চৌধুরী ময়না‘র উপস্থাপনায় অভিষেক অনুষ্ঠানে শুরুতে চারজন উপদেষ্টাসহ সংগঠনের ১৯ সদস্য বিশিষ্ট কার্যকরী কমিটিকে পরিচয় করিয়ে দেয়া হয়। এরপর জাপানের রাষ্ট্রদূত ও অভিষেক অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি রাবার ফাতিমা‘র হাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সোসাইটি, জাপান‘র পক্ষ থেকে ক্রেস্ট তুলে দেন সংগঠনের সভাপতি লিপিকা চৌধুরী জুঁই ও সাধারণ সম্পাদক আবু সুফিয়ান জুয়েল ও সাংগঠনিক সম্পাদক শরীফ আহমেদ খাঁন। পরিচয় পর্বের পর সভায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার ইতিহাস, ঐতিহ্যের ওপর একটি প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন করা হয়।

প্রধান অতিথির শুভেচ্ছা বক্তব্যে রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা বলেন, ‘বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত হিসাবে ৬৪টি জেলায় আমার দেশ। তারপরেও আমার বাবা দাদার জন্মস্থান হিসাবে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় রয়েছে আমার নাড়ির টান। এখানে রয়েছে আমার অনেক স্মৃতি। আজ যদি আমার দাদা বাবা বেচেঁ থাকতেন এবং তারা যদি জানতেন যে এই ধরনের একটি অনুষ্ঠানে আমি এসেছি, তাহলে তারা বেশ খুশি হতেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘আজকের অনুষ্ঠানে এসে আমার সবচেয়ে ভালো লেগেছে প্রবাসীদের একটি আঞ্চলিক অনুষ্ঠানে সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন একজন নারী। এটা সত্যি গর্বের বিষয়। এছাড়াও অনুষ্ঠানে অনেক নারী উপস্থিত রয়েছেন এটা দেখে আমার বেশ ভালো লেগেছে।’

অভিষেক অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে লিপিকা চৌধুরী জুঁই সংগঠনের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য সম্পর্কে বলেন, ‘ব্রাহ্মণবাড়িয়া সোসাইটি, জাপান একটি আঞ্চলিক সংগঠন হলে সংগঠনটি জাপানে বসবাসরত সকল বাংলাদেশী প্রবাসীদের স্বার্থ রক্ষায় কাজ করবে। এছাড়াও দেশে দরিদ্র জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে সংগঠনটি ভূমিকা রাখবে। বিশেষ করে গ্রামের দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদান করা হবে। এছাড়াও দেশের যে কোন প্রাকৃতিক দুর্যোগকালীন সময়ে সংগঠনের পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে।’

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে আয়োজন করা হয় মনোমুগ্ধকর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। অভিষেক অনুষ্ঠানটি প্রাণবন্ত করে তুলেন প্রবাসী ব্যান্ড দল ‘ঝি ঝি পোকার’ কনসার্ট। এই ব্যান্ড দলেরও টোকিওতে প্রথম কনসার্ট। গোলাম মাসুম জিকো ‘ঝি ঝি পোকা’ ব্যান্ডের লিডার।

সারাবাংলা/জিএস/এসবি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন