বৃহস্পতিবার ১৭ অক্টোবর, ২০১৯ ইং , ২ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৭ সফর, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

বজ্র-বৃষ্টির পূর্বাভাস, সাগরে ৩ নম্বর সংকেত

জুলাই ৭, ২০১৯ | ১০:০৫ পূর্বাহ্ণ

সিরাজুম মুনিরা, সিনিয়র নিউজরুম এডিটর

অনেকদিন পর শহরে হরতালের উত্তাপ টের পাওয়া যাচ্ছে। কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুরেরও খবর এসেছে। তবে এই উত্তাপের মধ্যেও তুলনামূলক শীতল রয়েছে আমাদের শহর। দিনটা শুরুই হয়েছে বৃষ্টি দিয়ে। গত কয়েকদিনের তুলনায় গরমও বেশ কম। তবে একটা ভ্যাপসা ভাব রয়েই গেছে।

বিজ্ঞাপন

আজ সকালে রাজধানীর তাপমাত্রা ছিল ৩১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। দিনে অন্য সময় কিছুটা বেড়ে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা হবে ৩২ ডিগ্রি। বৃষ্টি আর মেঘের আনাগোনা থাকলেও গরম থাকবে।

ওদিকে সাগরে কিন্তু এখনও তিন নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত বহাল রয়েছে। সেইসঙ্গে উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করা মাছ ধরার নৌকা আর ট্রলারগুলোকে উপকূলের কাছে থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়া অফিস বলছে, উত্তর বঙ্গোপসাগরে বায়ুচাপের তারতম্যের আধিক্য রয়েছে। ফলে সমুদ্র বন্দরগুলোর ওপর দিয়ে বয়ে যেতে পারে ঝড়ো হাওয়া। সাগরও রয়েছে বেশ উত্তাল। বাংলাদেশের ওপর মৌসুমী বায়ুও সক্রিয় রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

এসবের প্রভাবে দেশের রংপুর, ময়মনসিংহ, ঢাকা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের বেশিরভাগ স্থানে আজ বৃষ্টির আশঙ্কা রয়েছে। দেশের কোথাও কোথাও ভারী বৃষ্টিও হতে পারে।

সারাদেশেই বৃষ্টির সঙ্গে বজ্রপাতের শঙ্কা রয়েছে। এই বজ্রপাতের সময় সাবধানে থাকতে হবে। কারণ যে কোনো অসতর্ক মুহূর্ত ডেকে আনতে পারে বিপদ।

এইতো গতকালই সেভ দ্য সোসাইটি এন্ড থান্ডারস্টর্ম অ্যাওয়ারনেস ফোরাম জানিয়েছে, গত মে ও জুন মাসে সারাদেশে বজ্রপাতে মারা গেছেন ১২৬ জন। এরমধ্যে সবচেয়ে বেশি মারা গেছে কিশোরগঞ্জে। আর ধান কাটার সময় বজ্রপাতে মৃত্যুর সংখ্যাই সবচেয়ে বেশি।

তাই নিজে সাবধান হোন, অন্যকেও সাবধান করুন। বজ্রপাতের সময় যতটা সম্ভব নিরাপদে থাকুন।

সারাবাংলা/এসএমএন

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন