মঙ্গলবার ২৩ জুলাই, ২০১৯ ইং , ৮ শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৯ জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

ট্রলারডুবির পর এক সপ্তাহ ধরে সাগরে ভাসছিল মানুষটি!

জুলাই ১০, ২০১৯ | ১০:২৩ অপরাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম ব্যুরো: উত্তাল সাগরে মাছ ধরার ট্রলার ডুবির পর প্রায় এক সপ্তাহ ধরে ভাসতে থাকা এক ভারতীয় জেলেকে উদ্ধার করেছে বাংলাদেশি পতাকাবাহী একটি জাহাজের নাবিকরা। বঙ্গোপসাগরের ভারত সীমানায় ট্রলারডুবির পর ওই জেলে ভাসতে ভাসতে সাগরের বাংলাদেশ সীমানায় ঢুকে পড়ে।

বাংলাদেশের বেসরকারি শিল্প প্রতিষ্ঠান কেএসআরএম গ্রুপের মালিকানাধীন জাহাজ এমভি জাওয়াদ-এর নাবিকরা ওই জেলেকে বুধবার (১০ জুলাই) সকাল ১১টার দিকে উদ্ধার করে।

রবীন্দ্রনাথ দাস কানু নামে ওই জেলের বাড়ি ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের দক্ষিণ চব্বিশপরগণা জেলায়।

বিজ্ঞাপন

কেএসআরএম গ্রুপের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মেহেরুল করিম সারাবাংলাকে জানান, কেএসআরএম-এর প্রতিষ্ঠান এস আর শিপিং লিমিটেডের জাহাজ এমভি জাওয়াদ আমদানি পণ্য নিয়ে চট্টগ্রাম বন্দরের দিকে আসছিল। কুতুবদিয়া এলাকায় সাগরে একটি কাঠ ধরে একজনকে ভাসতে দেখে ওই জাহাজের নাবিকরা বিষয়টি মাস্টারকে জানান। জাহাজের মাস্টার কোস্টগার্ড, নৌবাহিনী এবং চট্টগ্রাম বন্দরের নিয়ন্ত্রণ কক্ষে বার্তা পাঠান। পাশাপাশি ভাসমান লোকটিকে উদ্ধারে লাইফ জ্যাকেট ও লাইফ বয়া সাগরে ছুঁড়ে দেন নাবিকরা।

ভাসমান লোকটি জ্যাকেট ধরতে পারলেও বয়াটি ধরতে ব্যর্থ হন। কিন্তু উদ্ধারের আগেই তিনি অদৃশ্য হয়ে যান। প্রায় ৪০ মিনিট ধরে জাহাজ সাগরে অবস্থানের পর আবারও তার দেখা মেলে। এরপর আবারও লাইফ বয়া ছুঁড়ে মারা হয়। তখন তিনি সেটি ধরতে সক্ষম হন। এরপর নাবিকরা তাকে দ্রুত উদ্ধার করে জাহাজে তুলে আনেন।

মেহেরুল করিম সারাবাংলাকে বলেন, ‘লোকটির পুরো শরীর সাদা হয়ে গেছে। এতটাই দুর্বল হয়ে গেছেন যে, তিনি কথা বলতে পারছিলেন না। এরপরও ক্ষীণ কণ্ঠে জানিয়েছেন- এক সপ্তাহ আগে বৈরি আবহাওয়ার মধ্যে তাদের মাছ ধরার ট্রলার সাগরে ডুবে যায়। ওই ট্রলারে আরও ১০ জন ছিল। তিনি কোনোভাবে কাঠের টুকরো ধরে ভেসেছিলেন। তাকে সুস্থ করার জন্য জাহাজে কর্তব্যরত চিকিৎসক এবং নাবিকেরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।’

উদ্ধার করা ভারতীয় জেলেকে বৃহস্পতিবার নৌবাহিনীর কাছে হস্তান্তর করা হবে বলে জানিয়েছেন কেএসআরএম-এর এই কর্মকর্তা।

সারাবাংলা/আরডি/এমআই

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন