শুক্রবার ১৫ নভেম্বর, ২০১৯ ইং , ১ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৭ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

ইংল্যান্ডের বাতাসে নতুন দিনের গান

জুলাই ১২, ২০১৯ | ৬:৩০ অপরাহ্ণ

বিজ্ঞাপন

ইংল্যান্ডের বাতাসে এখন নতুন দিনের গান। ক্রিকেটে নতুন ইতিহাস গড়ার হাতছানি। মাত্র একদিন বাদে লর্ডসে নিউজিল্যান্ডকে হারাতে পারলেই রচিত হবে সেই ইতিহাস। বহু কাঙ্খিত বিশ্বকাপ শিরোপা ঘরে তুলতে পারবে ক্রিকেটের জনক এই দেশটি। অবসান হবে ৪৪ বছরের প্রতীক্ষার।

এর আগে তিন বার (১৯৭৯, ১৯৮৭, ১৯৯২) শিরোপার মুকুট স্বপ্ন উঁকি দিয়েছিল ক্রিকেট কুলীনদের। কিন্তু উইন্ডিজ, অস্ট্রেলিয়া ও পাকিস্তান বাধায় প্রতিবারই বহু যত্নে লালিত স্বপ্নের বিসর্জন দিতে হয়েছে। নিঃশ্বাস দূরত্বে থাকা দ্যুতি ছড়ানো কাপটি নিয়ে উল্লাসে মেতেছে প্রতিপক্ষ। যেখানে ইংলিশরা ছিলেন স্রেফ দর্শকের ভূমিকায়। হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হয়েছে অবিরত। কখনো নিজেদের মাটিতে, কখনো বা উপমহাদেশ কিংবা তাসমান সাগর পাড়ে।

এবার নিশ্চয়ই হৃদয় বিদারক সেই দৃশ্যের অবতারণা হবে না। মুঠো গলে বেরিয়ে যাবে না স্বপ্নের বিশ্বকাপ শিরোপা, ঐতিহ্যবাহী লর্ডসের বারান্দায় কিউইদের হাতে শিরোপার বুনো উল্লাস দর্শকের ভূমিকায়ও দেখতে হবে না ইংলিশদের। ইংল্যান্ডের অধিবাসীরা তো তেমনই কামনা করছেন।

বিজ্ঞাপন

তার পেছনে অবশ্য শক্ত কারণও আছে। গতকাল এজবাস্টনে ৫ বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়াকে যে প্রবল বিক্রমে ইংল্যান্ড গুড়িয়ে দিয়েছে, সেই রণ কৌশল এবং দুর্বার মানসিকতাই স্বাগতিক ভক্তদের আশাতুর করে তুলেছে। ইংল্যান্ডের রাস্তা ঘাটে বেরুলেই এখন প্রিয় দলকে নিয়ে আশাবাদী সব কথা। বেয়ারস্টো, মরগানদের মতো তারা বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্নে স্বপ্নাতুর হয়ে উঠেছেন।

স্বপ্নটা কত গভীর তা একটি ঘটনা বললেই আশা বোঝা যাবে। গতকাল সেমি ফাইনাল ম্যাচ শেষে লন্ডনের রাস্তায় বেরিয়েছিলাম। এক ইংলিশ ভদ্রলোক লেইটনের রাস্তায় হাঁটছিলেন। বয়স ৬০ ছুঁই ছুঁই। তাকে জিজ্ঞাসা করি, আজকের খেলা দেখেছেন? ভেবেছিলাম তিনি খেলা দেখেননি। কেননা রাগবি বা ফুটবলের প্রতি ইংলিশদের যে আগ্রহ দেখেছি, ক্রিকেটের প্রতি তার অর্ধেকও আছে বলে মনে হয়নি।

যা হোক, উনি আমাকে চমকে দিয়ে বললেন, ম্যাচটি গোটা গ্রেট বৃটেনের জন্যই গুরুত্বপূর্ণ ছিল। নয় কি? আমি বলি, জ্বি। পাল্টা প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে বলি… কী মনে হয় ফাইনালে নিউজিল্যান্ডকে হারাতে পারবে? ইনিয়ে বিনিয়ে বা ভনিতা না করে সোজা সাপ্টা বলে দিলেন, এই দলটি ইতিহাস তৈরি করবে। তাদের মনোবল দেখেছ?’ আর কথা না বাড়িয়ে গুরুগম্ভীর অ্যাটিটিউডে হেঁটে চলে গেলেন।

তার মতো শুধু ইংলিশরাই নন। এখানে বসবাসকারী প্রবাসীরাও ইংল্যান্ডের জয়ের জন্য মুখিয়ে আছেন। উগান্ডার এক যুবকের সঙ্গে টিউবে কথা হলো। ১৩ বছর হলো ইংল্যান্ডে থাকেন। অস্ট্রেলিয়ার হারে তিনি যেন হাঁফ ছেড়ে বেঁচেছেন, ‘অসাধারণ! অস্ট্রেলিয়া হেরেছে। সত্যি বলতে ইংল্যান্ডের একটি শিরোপা জেতা উচিত। আপনি জানেন তারাই ক্রিকেটের জনক। অতএব তাদের উচিত একটি শিরোপা জেতা। এবার হবে নিশ্চয়ই।’

প্রবাসী বাংলাদেশিদেরও একই কথা, ‘অস্ট্রেলিয়া ৫ বার শিরোপা জিতেছে। একই দল বার বার শিরোপা জেতে, ভালো লাগে না। এবার ইংল্যান্ড জিতুক। আপনি লিখে রাখেন ইংল্যান্ডই এবারের চ্যাম্পিয়ন। শুরু থেকে তারাই ফেভারিট ছিল। পরশু নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচেও তাই।’

তাহলে নিউজিল্যান্ডের কী হবে? তাদের ইতিহাসও তো ইংল্যান্ডের অনুরূপ। গেল ১১ আসরে যারা ৬ বার শেষ চার ও ১ বার ফাইনালে উঠেও শিরোপা বঞ্চিত হয়েছে! শিরোপার জন্য মুখিয়ে থাকা দলটি যদি ম্যানচেস্টারের মতো পরশু লর্ডসেও জ্বলে উঠে!

নিঃসন্দেহে ক্রিকেট বিশ্ব একটি নেইল ব্যাটিংয়ের ফাইনাল ম্যাচ দেখতে যাচ্ছে। পেতে যাচ্ছে নতুন বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন।

ফাইনাল ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করবে গাজী টিভি। বাংলাদেশ সময় রোববার (১২ জুলাই) দুপুর সাড়ে তিনটায় ফাইনাল ম্যাচটি শুরু হবে।

বাংলাদেশের দর্শকরা বিশ্বকাপের সব ম্যাচ অনলাইনে কোনো ধরনের সাবস্ক্রিপশন ফি বা চার্জ ছাড়াই দেখতে পারবেন র‍্যাবিটহোলের ওয়েবসাইট www.rabbitholebd.com-এ। এছাড়া র‍্যাবিটহোলের অ্যাপেও দেখা যাবে প্রতিটি ম্যাচ। অ্যাপটি অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীরা ডাউনলোড করতে পারবেন https://goo.gl/UNCWS2 (শুধুমাত্র বাংলাদেশ) এই লিংকে ক্লিক করে। তাছাড়া আইওএস ব্যবহারকারীরা ডাউনলোড করতে পারবেন https://goo.gl/vJjyyL (শুধুমাত্র বাংলাদেশ) এই লিংকে ক্লিক করে।

সারাবাংলা/এমআরএফ/এমআরপি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন