বিজ্ঞাপন

ইবি কর্মকর্তার মুক্তিযোদ্ধা সনদে অসঙ্গতি, তদন্ত কমিটি গঠন

July 13, 2019 | 7:55 pm

ইবি করেসপন্ডেন্ট

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) একজন কর্মকর্তার দাখিল করা মুক্তিযোদ্ধার সনদে অসঙ্গতি ধরা পড়েছে। অভিযুক্ত ওই কর্মকর্তা হলেন অর্থ ও হিসাব বিভাগের উপহিসাব পরিচালক মো. মাহবুব হোসেন।

বিজ্ঞাপন

শনিবার (১৩ জুলাই) বিষয়টি তদন্তের জন্য তিন সদদ্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. রাশিদ আসকারী।

বায়োটেকনোলজি অ্যান্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. রেজওয়ানুল ইসলামকে আহ্বায়ক করে গঠিত কমিটির অন্য দুই সদস্য হলেন, ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক ড. মেহের আলী ও উপরেজিস্ট্রার (প্রশাসন) মোহাম্মদ রশিদুজ্জামান।

বিজ্ঞাপন

বিশ্ববিদ্যালয় রেজিস্ট্রার দফতর সূত্রে জানা গেছে, অর্থ ও হিসাব বিভাগের উপহিসাব পরিচালক মো. মাহবুব হোসেন মুক্তিযোদ্ধা সনদ (ম-১৬৪১৭৭) দাখিল করেন। তবে উল্লিখিত মুক্তিযোদ্ধার সনদটি যাচায়ের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের পত্রের পরিপ্রেক্ষিতে মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের স্মারকে মাহবুব হোসেনের সনদটির মিল নেই।

এছাড়া মুক্তিযোদ্ধা গেজেটে তার যে জন্ম তারিখ রয়েছে তার সঙ্গে মাহবুব হোসেনের এসএসসি পরীক্ষার সনের সঙ্গে বিস্তর অসংগতি রয়েছে। মুক্তিযোদ্ধা ভাতা উত্তোলনের জন্য দাখিল করা কাগজপত্রসহ অন্যান্য কাগজপত্রেও রয়েছে ব্যাপক অসঙ্গতি। ফলে এ কমিটি গঠন করে যাথা শিগগিরই যাচাই-বাছাই করে রিপোর্ট পেশ করতে বলা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এস এম আবদুল লতিফ বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তিযোদ্ধা কর্মকর্তা-কর্মচারীদের যে তালিকা আছে; তাতে আগে থেকেই এই কর্মকর্তার নাম ছিল না। ফলে তার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে কাগজপত্র দাখিল করতে বলা হয়েছিল। পরে গড়িমসি করে হলেও যে কাগজ তিনি দাখিল করেছেন তাতে বিস্তর অসঙ্গতি পাই। ফলে বিষয়টি তদন্তের জন্য কমিটি গঠন করা হয়েছে।’

সারাবাংলা/এমআই

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন