সোমবার ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ২ পৌষ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৮ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

ফাইনালের মহারণে মুখোমুখি ইংল্যান্ড-নিউজিল্যান্ড

জুলাই ১৩, ২০১৯ | ১০:৪৫ অপরাহ্ণ

বিশ্বকাপ ডেস্ক

পর্দা নামছে ইংল্যান্ডে বসা ক্রিকেট বিশ্বকাপের ১২তম আসরের। লন্ডনের লর্ডসে অনুষ্ঠিত ফাইনাল দিয়ে শেষ হচ্ছে বিশ্বকাপের ৪৬ দিন ব্যাপী আসর। স্বাগতিক ইংল্যান্ড এবং নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার ফাইনাল দিয়ে ইতি হচ্ছে এবারের বিশ্বকাপের। ২৭ বছর পর বিশ্বকাপের ফাইনালে ক্রিকেটের জনক ইংলিশরা। আর টানা দ্বিতীয়বার ফাইনালে কিউইরা।

বিজ্ঞাপন

বিশ্বকাপের শিরোপা উঠবে কার হাতে তা দেখতে চোখ রাখতে হবে রোববার (১৪ জুলাই) লর্ডসে। বাংলাদেশ সময় দুপুর সাড়ে তিনটায় শুরু হবে ম্যাচটি। গাজী টিভির পর্দায় ম্যাচটি সরাসরি উপভোগ করতে পারবেন।

দুই দলের অবস্থান: আইসিসির প্রকাশিত সবশেষ র‌্যাংকিংয়ে ১২৩ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে ইংলিশরা। বিশ্বকাপের আগে থেকেই র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষ স্থানেই ছিল ইংলিশরা। বিশ্বকাপ চলাকালীন পাকিস্তান এবং শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হেরে ভারতের কাছে শীর্ষ স্থান হাতছাড়া করে ইংল্যান্ড। এরপর ভারতের বিপক্ষে জয় দিয়ে আইসিসির র‌্যাংকিংয়ে আবারও শীর্ষ স্থান পুনঃদখল করে মরগানরা। অন্যদিকে ১১৩ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে তালিকার তিনে অবস্থান করছে নিউজিল্যান্ড।

তবে ম্যাচটি যখন বিশ্বকাপের ফাইনাল তখন রেটিং পয়েন্ট কিংবা র‌্যাংকিংয়ের অবস্থান দিয়ে ম্যাচের গুরুত্ব বোঝানো যাবে না। ম্যাচের উত্তাপের দেখা মিলবে কেবল খেলার ময়দানেই। যেখানে সমানে সমান লড়াই করতে প্রস্তুত দুই দল। বিশ্বকাপের মঞ্চে ইংলিশদের বিপক্ষের লড়াইয়ে কিছুটা এগিয়ে কিউইরা। বিশ্বকাপে দুই দলের ৯ দেখায় ব্ল্যাক ক্যাপসরা জিতেছে পাঁচ ম্যাচ অন্যদিকে ইংল্যান্ডের জয় চারটিতে। আর এবারের বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বে দু’দলের ম্যাচে কিউইদের ১১৯ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছিল ইংলিশরা।

বিজ্ঞাপন

শক্তিশালী ভারতকে সেমি ফাইনালের রিজার্ভ-ডে’তে ১৮ রানের ব্যবধানে হারিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করে নিউজিল্যান্ড আর বর্তমান চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়াকে ৮ উইকেটের ব্যবধানে হারিয়ে ফাইনালে উঠে আসে ইংলিশরা।

ফাইনালের আগে দু’দলই আছে দারুণ ফর্মে। কিউই এবং থ্রি লায়ন্স দুই দলের পেসাররা আছেন দারুণ ফর্মে। আর ইংলিশদের টপঅর্ডার এবং নিউজিল্যান্ডের মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানরাও আছেন সেরা ফর্মে। অপেক্ষার পালা প্রথমবারের মতো শিরোপা ঘরে তুলবে কোন দল। স্বাগতিক ইংলিশরা নাকি ধারাবাহিক কিউইরা।

ভেন্যু: লর্ডস নাম শুনলেই চোখের সামনে ভেসে ওঠে সাদা চকচকে একটি মিডিয়া বক্সের ছবি। আর সবুজ ঘাসে মোড়ানো মাঠ। ক্রিকেটের মক্কা নামে পরিচিত ইংল্যান্ডের লর্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ড। পৃথিবীর সব থেকে পুরাতন ক্রিকেট স্টেডিয়ামের মধ্যে এটি অন্যতম। বয়স প্রায় ২০৫ বছর। ইতিহাস ঐতিহ্য সব দিক দিয়েই ক্রিকেট বিশ্বে লর্ডস সমাদৃত। সাক্ষী হয়ে আছে বহু স্মরণীয় ক্রিকেট ইতিহাসের মুহূর্তের। প্রায় ২৮ হাজার ধারণ ক্ষমতার এই স্টেডিয়ামটি নির্মিত হয়েছিল ১৮১৪ সালে। ২০১৪ সালে ক্রিকেটের মক্কা ২০০ বছরে পদার্পন করে। আর এই দুইশত বছরে লর্ডসের বুকে অনুষ্ঠিত হয়েছে ক্রিকেটের সব থেকে পুরাতন সংস্করণ টেস্টের ১০৫টি ম্যাচ।

১৮৮৪ সালের ২১ জুলাই ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়ার ম্যাচ দিয়ে এ মাঠের যাত্রা শুরু। এরপর একে একে ১০৫টি টেস্ট ক্রিকেটের সাক্ষী হয়েছে। যার শেষটি ২০১৮ সালের ১০ আগস্ট ভারতের বিপক্ষে ইংল্যান্ডের ম্যাচ। ওয়ানডে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট আসার পর ১৯৭২ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ইংল্যান্ডের প্রথম ওয়ানডে অনুষ্ঠিত হয় এই মাঠে।

বিশ্বকাপে মুখোমুখি দুই দল: মোট ম্যাচ: ৯টি, নিউজিল্যান্ড জয়ী: ০৫টি, ইংল্যান্ড জয়ী: ০৪টি। মুখোমুখি দুই দল মোট ম্যাচ: ৮৪টি, নিউজিল্যান্ড জয়ী: ৪১টি, ইংল্যান্ড জয়ী: ৩৭টি। ড্র: ২টি ম্যাচ পরিত্যক্ত: ৪টি।

দৃষ্টি থাকবে যাদের ওপর: জনি বেয়ারস্টো, জোফরা আর্চার (ইংল্যান্ড), কেন উইলিয়ামসন, ট্রেন্ট বোল্ট (নিউজিল্যান্ড)।

বিশ্বকাপে ইংল্যান্ড স্কোয়াড: ইয়ন মরগান (অধিনায়ক), মঈন আলি, জনি বেয়ারস্টো, জস বাটলার, টম কুরান, জোফরা আর্চার, লিয়াম ডসন, জেমস ভিঞ্চ, লিয়াম প্লাংকেট, আদিল রশিদ, জো রুট, জেসন রয়, বেন স্টোকস, ক্রিস ওকস এবং মার্ক উড।

বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ড স্কোয়াড: কেন উইলিয়ামসন (অধিনায়ক), মার্টিন গাপটিল, হেনরি নিকোলস, রস টেইলর, টম লাথাম (উইকেটরক্ষক), কলিন মুনরো, টম ব্লান্ডেল, কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম, মিচেল স্যান্টনার, জিমি নিশাম, ইশ সোধি, ম্যাট হেনরি, লুকি ফার্গুসন, টিম সাউদি ও ট্রেন্ট বোল্ট।

বাংলাদেশের দর্শকরা বিশ্বকাপের সব ম্যাচ অনলাইনে কোনো ধরনের সাবস্ক্রিপশন ফি বা চার্জ ছাড়াই দেখতে পারবেন র‍্যাবিটহোলের ওয়েবসাইট www.rabbitholebd.com-এ। এছাড়া র‍্যাবিটহোলের অ্যাপেও দেখা যাবে প্রতিটি ম্যাচ। অ্যাপটি অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীরা ডাউনলোড করতে পারবেন https://goo.gl/UNCWS2 (শুধুমাত্র বাংলাদেশ) এই লিংকে ক্লিক করে। তাছাড়া আইওএস ব্যবহারকারীরা ডাউনলোড করতে পারবেন https://goo.gl/vJjyyL (শুধুমাত্র বাংলাদেশ) এই লিংকে ক্লিক করে।

** রোড টু দ্য লর্ডস-ইংল্যান্ড
** রোড টু দ্য লর্ডস-নিউজিল্যান্ড

সারাবাংলা/এসএস/এমআরপি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন