রবিবার ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ৭ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২২ মুহাররম, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

বিশ্বকাপ থেকে বাংলাদেশ পেয়েছে ২ কোটি টাকা

জুলাই ১৬, ২০১৯ | ১:৫০ অপরাহ্ণ

বিশ্বকাপ ডেস্ক

ইংল্যান্ড বিশ্বকাপের পর্দা নেমছে লর্ডসে মহাকাব্যিক ফাইনালের মধ্য দিয়ে। স্বাগতিক ইংল্যান্ড এবং নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার ম্যাচটির ফলাফল সুপার ওভারের শেষে বিজয়ী নির্ধারিত হয়েছিল বাউন্ডারি সংখ্যার ওপর ভিত্তি করে। বিশ্বকাপ শুরুর আগে আইসিসি ঘোষণা দিয়েছিল এবারের বিশ্বকাপের প্রাইজমানি অন্য সকল বিশ্বকাপকে ছাড়িয়ে যাবে।

বিজ্ঞাপন

আইসিসির ঘোষণা অনুযায়ী এবারের বিশ্বকাপের প্রাইজমানি নির্ধারিত করেছিল ১০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার অর্থাৎ ১ কোটি ডলার অথবা প্রায় সাড়ে ৮৫ কোটি বাংলাদেশি টাকায়। এবারের বিশ্বকাপ থেকে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে দেওয়া হয়েছে প্রায় ২ লাখ ৪০ হাজার মার্কিন ডলার। বাংলাদেশি টাকায় যার পরিমাণ দাঁড়ায় প্রায় ২ কোটি ৩ লাখ টাকা।

গ্রুপ পর্বের তিন ম্যাচে জয় এবং একটি পরিত্যক্ত হওয়ায় বাংলাদেশকে এই প্রাইজমানি দেওয়া হয়। অন্যদিকে এবারের বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডকে দেওয়া হয়েছে টুর্নামেন্ট সর্বোচ্চ ৪ মিলিয়ন ডলার অর্থাৎ ৪০ লাখ মার্কিন ডলার। বাংলাদেশি টাকায় যা ৩৪ কোটি টাকার সমমূল্য। এছাড়াও গ্রুপ পর্বের ছয়টি ম্যাচ জয়ের কারণে ইংলিশদের পকেটে ঢুকেছে প্রায় ২ লাখ ৪০ হাজার ডলার। গ্রুপ পর্বের প্রত্যেকটি ম্যাচ জয়ের কারণে ৪০ হাজার ডলার করে দেওয়া হয়েছে প্রত্যেকটি দলকে।

এবারের বিশ্বকাপের রানার্সআপ নিউজিল্যান্ড দল পেয়েছে ২০ লাখ ডলার অর্থাৎ ১৭ কোটি টাকা। সেই সাথে গ্রুপ পর্বে পাঁচ ম্যাচ জয়ের জন্য কিউইরা পেয়েছে ২ লাখ ডলার যা বাংলাদেশি টাকায় ১ কোটি ৭০ লাখ। সেমিতে খেলা ভারত এবং অস্ট্রেলিয়া পেয়েছে আট লাখ ডলার করে। যা বাংলাদশি টাকায় দাঁড়ায় প্রায় ৭ কোটি টাকা। এছাড়া গ্রুপ পর্বে সাত জয় ও একটি পরিত্যক্ত ম্যাচের জন্য ভারত পেয়েছে তিন লাখ ডলার অর্থাৎ আড়াই কোটি টাকা। অন্যদিকে গ্রুপ পর্বে সাত ম্যাচ জেতায় অস্ট্রেলিয়া পেয়েছে বাড়তি আরও ২ লাখ ৮০ হাজার ডলার।

গ্রুপ পর্ব থেকেই যেসব দল বাদ পড়েছে, তাদের প্রতি ম্যাচ জয়ের টাকার সাথে দেওয়া হয়েছে টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করার জন্য বাড়তি এক লাখ ডলার। ৫ জয় ও এক পরিত্যক্ত ম্যাচে পাকিস্তান পেয়েছে ২ লাখ ২০ হাজার ডলার। তারা মোট পেয়েছে ৩ লাখ ২০ হাজার ডলার। তিন জয় ও দুই পরিত্যক্ত ম্যাচে শ্রীলংকার মোট আয় ২ লাখ ৬০ হাজার ডলার।

বিজ্ঞাপন

তিন জয় ও এক পরিত্যক্ত ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকা পেয়েছে ২ লাখ ৪০ হাজার ডলার। তিন জয় ও এক পরিত্যক্ত ম্যাচে বাংলাদেশের পাওয়া অর্থও সমান। বাংলাদেশি টাকার এটা প্রায় ২ কোটি টাকা। দুই জয় ও একটি পরিত্যক্ত ম্যাচের সুবাদে ওয়েস্ট ইন্ডিজ পেয়েছে ২ লাখ ডলার। আর গ্রুপ পর্বে কোন ম্যাচ না জেতা আফগানিস্তান পেয়েছে শুধু অংশগ্রহণের ১ লাখ ডলার।

আরও পড়ুন: ইংলিশরা পেল ৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন